1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

প্রবৃদ্ধির উল্লম্ফনে চাঙা জার্মান অর্থনীতি

চলতি অর্থবছরের দ্বিতীয়ার্ধে রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে জার্মানিতে৷ ইউরোপের সবচেয়ে বড় অর্থনীতির এই উল্লম্ফন মন্দার পর আশীর্বাদ হয়ে এসেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা৷

default

জার্মানির অর্থমন্ত্রী রাইনার ব্রুডেরলে

বেশিদিন আগের কথা নয়, গ্রিসসহ কয়েকটি দেশে অর্থনৈতিক অস্থিরতা সঙ্কটে ফেলে দেয় ইউরোপীয় ইউনিয়নকে৷ বিশ্ববাজারে ইউরোর মানও পড়তে শুরু করে৷ আর এর মধ্যেই ইউরোপীয় ইউনিয়নকে সুখবর শুনিয়েছে জার্মানি৷ দেশের কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান দপ্তর আজ জানিয়েছে, বছরের দ্বিতীয়ার্ধে জিডিপি প্রবৃদ্ধি এক লাফে বেড়ে হয়েছে ২ দশমিক ২৷ দুই জার্মানি জোড়া লাগার পর অর্থবছরের কোনো ভাগে এই পরিমাণ প্রবৃদ্ধি আর অর্জিত হয়নি৷ এমনটা যে হবে, তা আগে কেউ অনুমানও করতে পারেনি৷ রয়টার্স পূর্বাভাস দিয়েছিল, প্রবৃদ্ধি হতে পারে সর্বোচ্চ ১ দশমিক ৩ শতাংশ৷

Frankfurter Wertpapierbörse

জার্মানির ফ্রান্কফুর্ট স্টক এক্সচেঞ্জ

জার্মানির অর্থমন্ত্রী রাইনার ব্রুডেরলে আশা করছেন, বছর শেষেও প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত থাকবে৷ তিনি রয়টার্সকে বলেন, ‘‘এটাকে নাটকীয় বলা যায় না৷ তবে খবরটি আনন্দের তো বটেই৷ বছর শেষে প্রবৃদ্ধি ২ এর ওপরে থাকবে, এটা এখন বলাই যায়৷'' জার্মান সরকার অবশ্য এই বছর জিডিপি প্রবৃদ্ধি আরো কম ধরছিল৷ তা ছিল ১ দশমিক ৪৷ তবে এখন তা যে বাড়বে, তা বলছেন অর্থনৈতিক বিশ্লেষকরাও৷ ডেকাব্যাংকের কর্মকর্তা অ্যান্ড্রেয়াস শুয়েরলে বলেন, ‘‘এখন তো মনে হচ্ছে বছর শেষে প্রবৃদ্ধি ৩ ছাড়াবে৷ জার্মানি গোটা বিশ্বের জন্যই আশীর্বাদ বয়ে আনেছে৷''

জার্মানি শুধু নিজেদের অর্থনীতির ভিতই মজবুত করেনি, টেনে তুলছে ইউরো জোনকেও৷ আঞ্চলিক প্রবৃদ্ধিও শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ বাড়তে পারে বলে আভাস মিলছে৷ আর জার্মানির সুখবরে চাঙা হয়েছে ইউরোপের স্টক এক্সচেঞ্জগুলো৷ অর্থনীতিবিদরা মন্দা কাটার পূর্বাভাস দিলেও এখন পর্যন্ত তার গতি ধীর দেখা যাচ্ছে৷ বিশ্বের দুই অর্থনৈতিক পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র ও চীনেও একই অবস্থা৷ তবে জার্মানিতেই তার ব্যতিক্রম দেখা যাচ্ছে৷ জার্মানির এই প্রবৃদ্ধির কারণ কী - তা খুঁজতে গিয়ে যা পাওয়া গেল, তা হচ্ছে বিনিয়োগ৷ সরকারি ও বেসরকারি উভয় খাতেই এই সময়ে বিনিয়োগ বেড়েছে৷ ফলে সরকারি এবং বেসরকারি উভয় ব্যয়ই বেড়েছে৷ আর বেড়েছে রপ্তানি৷ এসবই গতিশীল করেছে অর্থনীতির চাকাকে৷

তবে অর্থনীতির এই চাঙা ভাবের মধ্যে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিলেন কয়েকজন অর্থনীতিবিদ৷ তাঁদেরই একজন কার্স্টেন ব্রাসেস্কি বললেন, ‘‘এখনই খুশি হওয়ার কিছু নেই৷ বছরের পরবর্তী সময়ে এই ধারা অব্যাহত নাও থাকতে পারে৷'' আর জিডিপি প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধির খুঁটিনাটি জানতে অপেক্ষা করতে হবে ২৪ আগস্ট পর্যন্ত৷ কারণ পরিসংখ্যান দপ্তর জানিয়েছে, সেদিনই এ নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করবে তারা৷

প্রতিবেদন: মনিরুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়