1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

প্রবীণ উপযোগী বিজ্ঞাপন প্রয়োজন

জার্মানিতে প্রবীণ জনগোষ্ঠীর সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে৷ কিন্তু তার সাথে সমাজ ও অর্থনীতি ঠিকমত তাল মিলিয়ে চলতে পারছে না৷ বিশেষ করে ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিষয়টি চোখে পড়ে৷ পণ্য ও দ্রব্যের বিজ্ঞাপনে তারুণ্যের জয়জয়কার৷

default

জাপান, অ্যামেরিকায় প্রবীণদের আকৃষ্ট করতে বিজ্ঞাপন নির্মিত হলেও জার্মানিতে সেরকম দেখা যাচ্ছে না

জার্মানিতে শিশু জন্মের হার প্রতি বছর হ্রাস পাচ্ছে৷ আর এই অবস্থাটা চলছে ৪০ বছরেরও বেশি সময় ধরে৷ অন্যদিকে বয়োবৃদ্ধদের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে৷ বিশ্লেষকরা মনে করেন ৫০ বছর পর প্রতি তিন জনে একজনের বয়স ৬৫'র ওপর হবে৷ তাই ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রেও বর্ষীয়ান জনগোষ্ঠীর চাহিদার দিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন৷ কেননা তাদের আর্থিক সামর্থ্য তরুণদের চেয়ে বেশি৷ আজকের পঞ্চাশ ঊর্ধ্বরা কেনাকাটায় ৭২০ বিলিয়ন ইউরোর বেশি খরচ করতে পারেন৷ অর্থাৎ এই জনগোষ্ঠীকে ঘিরে রয়েছে এক বিশাল বাজার৷ কিন্তু বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে বিষয়টিকে আমল দেওয়া হচ্ছে না৷

বয়োবৃদ্ধদের জন্য চিন্তাভাবনা করা প্রয়োজন

ডর্টমুন্ড ইউনিভার্সিটির বার্ধক্য সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গবেষণা করছেন ভেরা গ্যার্লিং৷ তিনি জানান, গত সহস্রাব্দের শেষে এসে মানুষ বুঝতে পারে যে প্রবীণ ক্রেতার সংখ্যা বাড়ছে বাজারে৷ এই জনগোষ্ঠীর জন্য আলাদাভাবে চিন্তাভাবনা করা প্রয়োজন৷

Senioren mit Stadtplan

অবসর নেয়ার পর জার্মান প্রবীণদের শখের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ঘুরে বেড়ানো

তাদের কেনাকাটার ধরন, আগ্রহ ইত্যাদি আগের বয়োজ্যেষ্ঠদের চেয়ে ভিন্নরকম৷ গবেষক ভেরার ভাষায়, ‘‘আগে বৃদ্ধদের বাজার বলতে ওষুধপত্র ও স্বাস্থ্যসংক্রান্ত সামগ্রী বোঝাতো৷ গত কয়েক বছরে এখানে ভিন্নধরনের একটা ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে, যা ক্রমেই বিকাশ পাচ্ছে৷ জনসাধারণ ও ব্যবসায়ীদের কাছেও বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে৷''

বিজ্ঞাপন শিল্প অনেক পিছিয়ে

তবে এক্ষেত্রে বিজ্ঞাপন শিল্প অনেকটা পিছিয়ে রয়েছে৷ সংশ্লিষ্টদের এব্যাপারে সচেতন হতে হবে৷ যেমন এক বিজ্ঞাপনে দেখা যায় এক বৃদ্ধ তাঁর নাতিকে নিয়ে বেঞ্চে বসে রসিয়ে রসিয়ে টফি খাচ্ছেন৷ বর্ষীয়ানদের অনেকের কাছেই এই ধরনের চিত্র পছন্দ হবে না৷ নিজেদের চিরাচরিত নানা-নানির চরিত্রে তাঁরা দেখতে চান না৷ তারা নিজেদের বয়োবৃদ্ধ মনে করতে চান না৷ আগের তুলনায় এই যুগের প্রবীণরা অনেক বেশি সক্রিয়৷ ভ্রমণ, শিল্প ও সংস্কৃতিতে আগ্রহী৷ তাদের পোশাক-আশাকেও তারুণ্যের ছাপ লক্ষ্য করা যায়৷ তবে সনাতন চিত্রের সঙ্গে খাপ খায় এমন প্রবীণের সংখ্যাও কম নয়৷ একারণে চিন্তাভাবনা করেই যে-কোনো সামগ্রীর বিজ্ঞাপন তৈরি করা উচিত৷

Symbolbild Sport im Alter

প্রবীণের পছন্দের কাজের একটি খেলাধুলা

নিজেদের অভিজ্ঞতা থেকে বয়স্করা অনেক বিজ্ঞাপনকে সমালোচনার চোখে দেখেন৷ সব কিছু বিশ্বাস করেন না৷ যেমন কোনো সামগ্রীর বিজ্ঞাপনে যদি বিখ্যাত ব্যক্তিরা মুখর হন তাহলে বয়োজ্যেষ্ঠরা সেটা গ্রহণ করেন না, বরং প্রত্যাখ্যানই করেন৷ কেননা বিজ্ঞাপনদাতারা ঐ বস্তুটি ব্যবহার করেন না বলেই তারা মনে করেন৷ কিছু কিছু বিজ্ঞাপনে বয়স্কদের হাস্যকর অবস্থায় দেখা যায়, যা অবমাননাকর বা বৈষম্যমূলক মনে হতে পারে৷

বিবেচনা করতে হবে শারীরিক পরিবর্তন

বয়োজ্যেষ্ঠদের শারীরিক পরিবর্তনের কথা মাথায় রেখেও বিজ্ঞাপন তৈরি করা উচিত৷ বয়সের সাথে সাথে মানুষে চোখের দৃষ্টিও ঝাপসা হয়৷ চোখধাঁধানো রঙ তাদের কাছে অস্বস্তিকর মনে হতে পারে৷ এছাড়া বয়স হলে মস্তিষ্কের তথ্যগ্রহণের প্রক্রিয়াও বদলে যায়৷ তাই জটিল বিজ্ঞাপনগুলি বুঝতে অসুবিধা হয় বর্ষীয়ানদের, বলেন বয়স্কদের জন্য এক অনলাইন পোর্টালের প্রতিষ্ঠাতা আলেক্সান্ডার ভিল্ড৷

প্রবীণরা যে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে এক বড় ভূমিকা রাখতে পারেন সেটা অন্যান্য কিছু দেশ আগেই বুঝতে পেরেছে৷ যেমন জাপানে বিষয়টি নিয়ে অনেক আগে থেকেই চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে৷ রাজনৈতিক ক্ষেত্র থেকেও সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে বলে জানান ডর্টমুন্ড ইউনিভার্সিটির ভেরা গ্যার্লিং৷

বিশেষ করে অর্থনৈতিক মন্ত্রণালয় যথাযথ কর্মসূচি নিয়ে এগিয়ে এসেছে সেখানে৷ তবে সেখানকার সার্বিক পরিস্থিতি ভিন্নরকম৷ কারিগরি দিক দিয়ে অনেক এগিয়ে আছে দেশটি৷

অ্যামেরিকার সমাজেও বয়োজ্যেষ্ঠদের আলাদা পদমর্যাদা রয়েছে৷ তাঁদের জন্য রয়েছে ভালো ভালো ক্যাম্পেইন ও বিজ্ঞাপন৷ জার্মানিতে যেখানে বয়স্কদের ব্যাপারে একটা নেতিবাচক চিত্র ফুটে ওঠে সেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বার্ধক্যকে তুলনামূলকভাবে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখা হয়, বলে জানান ভিল্ড৷

পরিবেশ তৈরি করা দরকার

বিভিন্ন সমীক্ষা থেকে জানা যায়, যেমন বিজ্ঞাপন তেমনি উৎপাদনের ক্ষেত্রেও প্রবীণ জনগোষ্ঠীর চাহিদার দিকে লক্ষ্য রাখা হয় না জার্মানিতে৷

এজন্য কিছু কিছু পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে: যেমন লক্ষ্য রাখতে হবে ভোগ্যপণ্যের প্যাকেটগুলি যেন ভালভাবে খোলা যায়৷ ওপরের লেখা ভালভাবে পড়া যায়৷ এছাড়া কেনাকাটার পরিবেশও আরামদায়ক হতে হবে৷ এজন্য দোকানের প্রবেশপথ চওড়া ও শপিং কার্টে অনুবীক্ষণ যন্ত্র লাগিয়ে রাখা যেতে পারে৷ বয়স্করা শুধু কেনাকাটা করতেই দোকানে যান না, লোকজনের সঙ্গে দেখাসাক্ষাৎ করতেও যান৷ আর পছন্দসই পরিবেশের জন্য তাঁরা কিছুটা বেশি দাম দিতেও প্রস্তুত৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন