1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

প্রতি মিনিটে গড়ে ২৪ জন গৃহহীন হয়েছে

সোমবার বিশ্ব শরণার্থী দিবস উপলক্ষ্যে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর কিছু পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে৷ তাতে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে গৃহহীন ও শরণার্থীর সংখ্যা ছিল ছয় কোটি ৫৩ লক্ষ, যা একটি নতুন রেকর্ড৷

‘গ্লোবাল ট্রেন্ডস' নামে জাতিসংঘের এই প্রতিবেদন বলছে, ২০১৪ সালের তুলনায় ২০১৫ সালে গৃহহীনের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৫৮ লক্ষ৷

২০১৫ সালে বিশ্বের প্রতি ১১৩ জন মানুষের মধ্যে একজন হয় শরণার্থী না হয় বিভিন্ন কারণে নিজ দেশেই ঘরছাড়া অবস্থায় ছিলেন৷

গৃহহীনদের মধ্যে শরণার্থীর সংখ্যা দুই কোটি ১৩ লক্ষ৷ আর নিজে দেশে ঘরছাড়া হয়েছেন চার কোটি আট লক্ষ মানুষ৷

ইউএনএইচসিআর মুখপাত্র মেলিসা ফ্লেমিং তাঁর টুইটে জানিয়েছেন, গত বছর প্রতি মিনিটে ২৪ জন মানুষ গৃহহীন হয়েছেন৷ ২০০৫ সালে সংখ্যাটি ছিল ছয় জন৷

সবচেয়ে বেশি শরণার্থী

শরণার্থীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি নাগরিক ফিলিস্তিনের৷ সংখ্যাটি ৫০ লক্ষের বেশি৷ ১৯৪৮ সালে ইসরায়েল রাষ্ট্র সৃষ্টির কারণে যে ফিলিস্তিনিরা পালিয়েছেন তাঁরা সহ তাঁদের বংশধররা আছেন এই তালিকায়৷ ফিলিস্তিনিদের পর সবচেয়ে বেশি শরণার্থী হয়েছেন সিরিয়ার নাগরিকরা৷ তাঁদের সংখ্যা ৪৯ লক্ষ৷ তালিকায় এরপর আছেন আফগান (২৭ লক্ষ) ও সোমালীয়রা (১১ লক্ষ)৷

শরণার্থীদের অর্ধেকই শিশু!

জাতিসংঘ বলছে, গত বছর যতজন শরণার্থী ছিলেন তাদের মধ্যে ৫১ শতাংশই শিশু৷ এদের অনেককে বাবা-মা থেকে আলাদা করা হয়েছে, কেউ আবার একাই দেশ ছেড়ে বেরিয়ে পড়েছে৷ ২০১৫ সালে প্রায় ৯৮ হাজার চারশ সঙ্গিহীন শিশু আশ্রয়ের জন্য আবেদন করেছে৷

আশ্রয়ের আবেদন সবচেয়ে বেশি জার্মানিতে

গত বছর জার্মানিতে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন পড়েছে সবচেয়ে বেশি৷ চার লক্ষ ৪১ হাজার নয়শটি৷ তালিকায় এরপর আছে যুক্তরাষ্ট্র (এক লক্ষ ৭২ হাজার)৷ সুইডেন আর রাশিয়াতেও দেড় লক্ষের বেশি আবেদন পড়েছে৷

সবচেয়ে বেশি শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়েছে তুরস্ক

গত বছর তুরস্ক প্রায় ২৫ লক্ষ শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে৷ এদের প্রায় সবাই সিরীয় নাগরিক৷ এরপর আছে পাকিস্তান (১৬ লক্ষ) ও লেবানন (১১ লক্ষ)৷

জেডএইচ/ডিজি (এপি, এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন