1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

প্রতারক ফিঙে!

বহু পাখির ডাক নকল করতে পারে বলে আফ্রিকার ফিঙে সব সময়ই গবেষকদের আগ্রহের বিষয়৷ কিন্তু লম্বা লেজের কুচকুচে কালো এই পাখি সেই কৌশল কাজে লাগিয়ে যেভাবে অন্যের খাবার চুরির করে, তা দেখে বিজ্ঞানীরাও বিস্মিত৷

কালাহারি মরুভূমিতে ৮৭৪ ঘণ্টা ধরে ৬৪টি চামচপুচ্ছ ফিঙের ওপর পর্যবেক্ষণ চালিয়ে এ পাখির ‘মিথ্যে বলার কৌশল' সম্পর্কে বিশদ জানতে পেরেছেন তারা৷

গবেষকরা বলছেন, মরুভূমিতে যে কোনো বিপদে-আপদে পশুপাখিদের মধ্যে ‘বিপদ সংকেত' বিনিময় একটি সাধারণ নিয়ম৷ আগে থেকে সংকেত দিতে পারে বলে আফ্রিকার ফিঙের ওপর অন্য পাখি ও ছোট প্রাণীরা আস্থাও রাখে৷ আর এর সুযোগ নিয়েই মিথ্যে সংকেতে ছোট পশু-পাখিদের ভড়কে দেয় ফিঙে৷ তারপর তাদের জোগাড় করা খাবার নিয়ে সটকে পড়াই এঁদের কৌশল৷

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবর্তনীয় জীববিজ্ঞানের অধ্যাপক টম ফ্লাওয়ার বলেন, এ প্রজাতির ফিঙেরা এমনিতে সৎভাবেই খাবার সংগ্রহ করে৷ তাদের প্রধান শিকার বাতাসে উড়ে চলা ছোটখাট পতঙ্গ৷ কিন্তু বিরূপ আবহাওয়ায় যখন পোকামাকড় খুঁজে পাওয়া কঠিন, তখনই অন্যের খাবারে নজর পড়ে তাদের৷ একটি ফিঙে প্রতিদিন যে খাবার খায়, তার এক চতুর্থাংশই সে জোগাড় করে ‘মিথ্যে' সংকেতের প্রতারণার মাধ্যমে৷

পাইড ব্যাবলার, গ্লসি স্টারলিং, সোশ্যাল উইভার, ফ্যাকাশে চান্টিং গসহক, এমনকি মিয়ারক্যাটের মতো অন্তত ৫১ ধরনের পশু-পাখির ডাক নকল করতে পারে আফ্রিকার ফিঙে৷ তবে কাউকে ধোঁকা দেয়ার সময় প্রথমে নিজেদের বিপদ সংকেতটিই তাঁরা ব্যবহার করে৷

কাছাকাছি কোনো শিকারী পশু না থাকলেও ফিঙে এমনভাবে ডেকে ওঠে, যেন বিপদ একেবারে ঘাড়ের ওপর এসে পড়েছে৷ সেই সংকেতে ভয় পেয়ে নির্ধারিত পাখি বা প্রাণীটি পালালেই তাঁর খাবার নিজের দখলে নেয় ফিঙে৷ ফিঙের ডাকে কাজ না হলে অন্য প্রাণীর ডাক নকল করে আবারো সংকেত দেয় সে৷ তার পরের পদ্ধতি একই রকম৷

টম ফ্লাওয়ার জানান, ফিঙেরা সাধারণত যে আকারের পতঙ্গ শিকার করে, তার চেয়ে বড় আকারের খাবার – যেমন কাঁকড়াবিছা, গুবরে পোকা, এমনকি বড় আকারের টিকটিকিও সে এই কৌশলে পেয়ে যায়৷ ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিজ্ঞানী আমান্ডা রিডলি বলেন, ‘‘মনুষ্য সমাজে এমন প্রতারণা ভাল চোখে দেখা হবে না, সেটাই স্বাভাবিক৷ কিন্তু এমন বুদ্ধিদীপ্ত কৌশল যখন ছোট্ট একটি পাখি ব্যবহার করে, তখন আমরা চমৎকৃত না হয়ে পারি না৷''

কেবল কৌশলে নয়, আফ্রিকার ফিঙে সাহসেও অনন্য৷ আকারে চারগুণ বড় ঈগল বা বাজের সঙ্গেও তাঁরা যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে, যেন ভয়ডর বলে কিচ্ছুটি নেই৷

জেকে / এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়