1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

প্যারাগুয়ের উপজাতিরা নিজেদের জমি কিনে নিচ্ছেন

প্যারাগুয়ের ৯৬ শতাংশ জমি বেসরকারি মালিকানায় থাকায় এমনকি প্রতিবেশী দেশের লোকজনও সেই জমি কিনে ফেলছে৷ প্রাণী ও উদ্ভিদ বৈচিত্র্যকে বাঁচাতে উপজাতীয় নেতারা নিজেদের জমি কিনতে বাধ্য হচ্ছেন৷

বিপন্ন প্রাকৃতিক সম্পদ

রাজধানী আসুনসিয়ন থেকে বিমানে দু'ঘণ্টা যেতেই শুরু হয় খেত, মাঠঘাট৷ আগে এখানে ঘন জঙ্গল ছিল, যা ক্রমেই আরো তাড়াতাড়ি উধাও হতে দেখেছেন ‘গুইরা প্যারাগুয়ে' নামের প্রকৃতি সংরক্ষণ সংগঠনের আলব্যার্তো ইয়ানোস্কি৷ প্রতিদিন হারিয়ে গেছে প্রায় এক হাজার হেক্টার জঙ্গল৷ যার আয়তন প্রায় ব্রিটেনের সমান৷ জঙ্গল কেটে তৈরি হয় গরু চরানোর মাঠ৷

ইয়ানোস্কি আর তার সহকর্মীরা নিয়মিতভাবে পরখ করেন, কতটা জঙ্গল কাটা বা পোড়ানো হয়েছে৷ তারপর স্যাটেলাইট থেকে তোলা ছবির সঙ্গে তা মিলিয়ে দেখেন৷ এলাকার ওপর দিয়ে পাঁচ ঘণ্টা ওড়ার পর কঠিন উপলব্ধি হয় তাঁদের৷ জীববিজ্ঞানীরা যতটা আশঙ্কা করেছিলেন, তার চেয়েও বেশি জঙ্গল কাটা হয়েছে৷

ইয়ানোস্কি বললেন, ‘‘প্যারাগুয়েতে গরু চরানোর জমির চাহিদা বিরাট৷ পাশের আর্জেন্টিনা বা ব্রাজিলের মতো দেশ থেকেও অনেক খামার-মালিক এখানে আসেন জমি কিনতে, কেননা তাদের নিজের দেশে জমির দাম বেশি৷ ওদিকে গরুর মাংসের উৎপাদনে প্যারাগুয়ে আজ বিশ্বে ন'নম্বর৷ রাজধানী আসুনসিয়ন হলো দেশের অর্থনীতির কেন্দ্র৷''

19.03.2013 DW Magazine Global 3000 Klima Paraguay

উপজাতিদেরর জনজীবন হুমকির মুখে

জমির যথেচ্ছ ব্যবহার

প্যারাগুয়ের ৯৬ শতাংশ জমি বেসরকারি মালিকানায়৷ কাজেই তা সহজে কেনা বা বেচা সম্ভব৷ দেশের পূর্বাঞ্চলে তার ফল দেখতে পাওয়া যায়৷ এককালে এখানে ‘রেইনফরেস্ট' ছিল, যেখানে প্রায় বিশ হাজার বিভিন্ন ধরনের গাছপালা পাওয়া যেত৷ আজ সে সব গাছপালার ৯০ শতাংশ উধাও হয়ে গেছে৷ যা বাকি আছে, ইয়ানোস্কি ও তাঁর সংগঠন তা বাঁচানোর চেষ্টা করছেন, প্রায় বিশজন কর্মী নিয়ে৷ জঙ্গল কাটার হিসেব রাখছেন৷ নিজে জঙ্গল মহল কিনছেন, যেমন এখানে সান রাফায়েলে৷

আলব্যার্তো ইয়ানোস্কির সংগঠন সাত হাজার হেক্টার জঙ্গল কিনেছে ও আরো কিনবে, এই অঞ্চলের সুবিশাল প্রাণী ও উদ্ভিদ বৈচিত্র্যকে বাঁচানোর প্রচেষ্টায়৷ জঙ্গল তো শুধু গাছপালা আর জীবজন্তুর জন্যই নয়৷ জঙ্গলে মানুষও বাস করে৷ যেমন ইউসেবিও চাপারো৷ সে একজন ‘কাসিক', ম্-বিয়া গুয়ারানি-দের নেতা৷ এই উপজাতির ২৫টি পরিবার এই জঙ্গলেই বাস করে৷ এখানেই তারা খাবার-দাবার, ঘর তৈরির মালমশলা, জড়িবুটি, তাদের যা কিছু প্রয়োজন, খুঁজে পায়৷

চাপারোর গুয়ারানিরা সরকারের কাছ থেকে মাত্র দশ বর্গকিলোমিটার জঙ্গল পেয়েছে৷ মহলটা আলব্যার্তো ইয়ানোস্কির পরিবেশ সংরক্ষণ সংগঠনের জমির লাগোয়া৷ গুয়ারানিরা আলব্যার্তোর সঙ্গে মিলে আরো জঙ্গল কিনতে চায়৷ উপজাতীয় নেতা ইউসেবিও চাপারো বললেন, ‘‘আমরা অন্যভাবে বাঁচতে পারব না৷ জঙ্গলে শিকার করা, শিকড়বাকড় খোঁজা, মধু বানানো, এই হলো আমাদের ঐতিহ্য৷ অন্য কোথাও গেলে আমরা সে সব করতে পারব না৷''

কিন্তু জমির দাম চড়া, তা সে জঙ্গুলে হলেও৷ ম্-বিয়া গুয়ারানিরা ভুট্টার দানা আর মধু বেচে সেই জমি কেনার টাকা সংগ্রহ করবে৷ এ ভাবে পরিবেশ সংরক্ষণকারী আর উপজাতির মানুষেরা মিলে প্যারাগুয়ের শেষ দশ ভাগ রেইন ফরেস্ট বাঁচানোর চেষ্টা করবে৷

এসি/ডিজি

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়