1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

পৌর নির্বাচন হবে দুই বড় দলের মর্যাদার লড়াই

বাংলাদেশে এবারের পৌর নির্বাচন হবে বড় দুই দলের মর্যাদার লড়াই৷ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোট সরকারের জনপ্রিয়তার ব্যারোমিটারে পারদ কোন জায়গায় আর বিরোধী দল বিএনপি কতটা এগিয়েছে তা বোঝা যাবে এই নির্বাচনে৷

default

পৌর নির্বাচন হবে মর্যাদার লড়াই (ফাইল ফটো)

এমন ধারণা পৌর নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী আর সাধারণ মানুষের৷ আর তফসিল ঘোষণার পর পরই সক্রিয় হয়ে উঠেছেন প্রার্থীরা৷ সক্রিয় কর্মী-সমর্থকরাও৷ পৌর নির্বাচনের তফসিল ঘোষনণর পরদিন শুক্রবার ঢাকার অদূরে সাভারে গিয়ে দেখা গেল পৌর নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রর্থীদের বাড়ি সরগরম৷ সমর্থক আর কর্মীরা দেখা করতে এসেছেন৷ আর প্রার্থীও তাদের সঙ্গে কথা বলেন নির্বাচনের নানা দিক নিয়ে৷ সেখানে ভীড় করেন সাধারণ মানুষও৷ তারা হিসেব কষেন নির্বাচন নিয়ে, প্রার্থী নিয়ে৷ তাদের মতে সন্ত্রাস দূর করে আইন-শৃংখলা নিয়ন্ত্রণে যে রাখতে পারবে তাকেই তারা ভোট দেবেন৷ প্রার্থীকে হতে হবে জনদরদি ও সৎ৷

পৌর মেয়র প্রার্থী হিসেবে ইতিমধ্যেই নিজেকে ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা হায়দার আলী৷ দেরিতে হলেও নির্বাচন শেষ পর্যন্ত হচ্ছে এতেই তিনি বেজায় খুশি৷ তার মতে সবাই নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চললে নির্বাচন ভালই হবে৷ তিনি বলেন, মেয়র প্রার্থীদের নির্বাচনী ব্যয় সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা বেধে দেয়ায় সবার জন্যই ভাল হয়েছে৷ এতে টাকার খেলা বন্ধ হবে৷

বর্তমান পৌর মেয়র মো. রেফাত উল্লাহর বাসায় গিয়ে দেখা গেল তিনি সাধারণ মানুষের সঙ্গে আলোচনায় ব্যস্ত৷ স্থানীয় সমস্যা আর সামাজিক বিষয় নিয়ে কথা বলছেন৷ বললেন, বিএনপি তাকেই প্রার্থী করছে৷ তার মতে এবার ভোটাররা বিএনপিকেই ভোট দেবেন৷ কারণ আওয়ামী লীগ গত দু'বছরে তাদের কোন প্রতিশ্রুতি পূরণ করেনি বলে তিনি মনে করেন৷

আর আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য এবং সাবেক মেয়র আশরাফ উদ্দিন খান ইমুকে পাওয়া যায় তার বাসায়ই এক জরুরি মিটিংয়ে৷ তিনিও প্রার্থী হিসেবে তার কৌশল নির্ধারণে ব্যস্ত৷ দলের মনোনয়ন এখনো নিশ্চিত না হলেও তিনি যে প্রার্থী হবেন তা নিশ্চিত৷তিনি বলেন, এবার নির্বাচনে জনপ্রিয়তার পরীক্ষা হবে আওয়ামী লীগের৷ কারণ, বিএনপির পরীক্ষা আগেই হয়ে গেছে৷ তারা এখন ক্ষমতায় নেই তাই তাদের বদনামও নেই৷

সাভারের এই চিত্র এখন পুরো দেশের৷ ২৬৯টি পৌর এলাকার প্রার্থী, সমর্থক, কর্মী আর সাধারণ মানুষ সবাই ভাবছেন পৌর নির্বাচন নিয়ে৷ কারণ পৌর নির্বাচনে নিয়ম অনুযায়ী দলীয়ভাবে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার বিধান না থাকলেও বাস্তবে নির্বাচন হবে রাজনৈতিকভাবেই৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক