1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পোশাক শ্রমিকদের জন্য ৫০ মিলিয়ন ডলার দেবে ওয়ালমার্ট

বাংলাদেশের তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিক নিরাপত্তা উন্নয়নে ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ সহায়তা দেবে ওয়ালমার্ট৷ এই ঋণ বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন সাপেক্ষে স্বল্প সুদে দেয়া হবে৷ বিজিএমইএ-র সহ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান জানান এ তথ্য৷

গত ২৫শে এপ্রিল সাভারের রানা প্লাজা ধসে ১,১২৯ জন পোশাক শ্রমিক নিহত হওয়ার পর, শ্রমিক নিরাপত্তার ব্যাপারে ক্রেতাদের দায়দায়িত্ব নিয়েও প্রশ্ন ওঠে৷ জুলাই মাসে ওয়ালমার্ট ও গ্যাপসহ বেশ কয়েকটি ক্রেতা প্রতিষ্ঠান ১০০ মিলিয়ন মর্কিন ডলার ঋণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেয়৷ তারই অংশ হিসেবে মার্কিন ক্রেতা প্রতিষ্ঠান ওয়ালমার্ট বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোকে ৫০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে বলে জানা গেছে৷ এ জন্য তারা বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে কথা বলেছে৷ অবশ্য বাংলাদেশের পোশাক কারখানার নিরপত্তা উন্নয়নে কী করণীয়, তা ঠিক করার পরই এই অর্থ দিতে চায় তারা৷

তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ-র সহ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ওয়ালমার্টের এই সিদ্ধান্ত ইতিবাচক৷ তিনি মনে করেন এই ঋণ সহায়তা ছোট ছোট কারখানাগুলোর শ্রমিক নিরপত্তা এবং কর্ম পরিবেশ উন্নয়নে সহায়ক হবে৷ তবে বড় কারখানাগুলো শ্রমিক নিরাপত্তার উন্নয়নে নিজেরাই কাজ করছে৷ আর তাদের কাজ মনিটরিং করছে বিজিএমইএ৷ ওদিকে ওয়ালমার্ট বাংলাদেশের ২৮০টি পোশাক কারখানার ওপর নজর রাখছে৷

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. হেলাল উদ্দিন ডয়চে ভেলেকে বলেন, শ্রমিক নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার প্রধান কারণ দুর্বল কারখানা ভবন৷ রানা প্লাজা ধসই তার প্রমাণ৷ ত্রুটিপূর্ণ অগ্নি-নিরাপত্তা ব্যবস্থাও আরেকটি কারণ৷ গত নভেম্বরে তাজরীন ফ্যাশানস-এ আগুন লেগে ১১২ জন পোশাক শ্রমিক নিহত হন৷ তাঁর মতে, ওয়ালমার্টের এই ঋণ দিয়ে কারাখানা ভবন নির্মাণ বা অগ্নি-নিরাপত্তার যন্ত্রপাতি কেনা সম্ভব নয়৷ কারণ তার জন্য ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার তেমন কোনো অর্থ নয়৷ তাই এই ঋণের অর্থ দক্ষতা উন্নয়নে ব্যবহার করা যায়৷ পোশাক কারখানাগুলো যাতে শ্রমিক নিরাপত্তা এবং কর্ম পরিবেশ নিশ্চিত করতে বাধ্য হয়, সেই ধরণের নজরদারি প্রতিষ্ঠান ও জনবল গড়ে তোলা যায়৷ পোশাক কারখানাগুলোতে অগ্নি-নিরাপত্তার জন্যও দক্ষ জনবল, প্রশিক্ষণ দেয়া যায়৷

অধ্যাপক ড. হেলাল উদ্দিন বলেন, এই কাজগুলো করা গেলে শ্রমিক নিরপত্তা বাড়বে৷ উন্নতি হবে কর্ম পরিবেশের৷ তাঁর মতে, বাংলাদেশে ঋণের টাকা অপচয় বা অপব্যবহরের অনেক নজির আছে৷ আছে এক খাতের টাকা অন্য খাতে ব্যবহারের উদাহরণ৷ তাই এই ঋণ যেন আসলেই শ্রমিকদের স্বার্থে ব্যবহার হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে বলেন মনে করেন ড. হেলাল৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন