1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

পোর্ট এলিজাবেথে আটক প্যারিস হিল্টন

দক্ষিণ আফ্রিকার পোর্ট এলিজাবেথে হেরে বিদায় নিল ব্রাজিল৷ হল্যান্ডের কাছে হার৷ তবে পোর্ট এলিজাবেথের শুক্রবারের খবর শুধু এটিই নয়৷ আরো একটি ঘটনা আছে৷ আর তা হলো প্যারিস হিল্টনের৷

default

প্যারিস হিল্টন (ফাইল ছবি)

মাত্র ২৯ বছর বয়সি হিল্টনকে কে না চেনে৷ একাধারে মডেল, শিল্পী, অভিনেত্রী, ফ্যাশন ডিজাইনার, রিয়ালিটি টিভি তারকা আরো কতো কী৷ তবে তাঁর আরো পরিচয় আছে জন্মসূত্রে৷ হিল্টন হোটেলের প্রতিষ্ঠাতা কনরাড হিল্টনের নাতনি৷ প্যারিস হিল্টন সবচেয়ে বেশি আলোচনায় আসেন ২০০৭ এর জুনে৷ ঐ সময় তাঁকে তিন সপ্তাহ কাটাতে হয় লস অ্যাঞ্জেলসের কারাগারে৷ অপরাধ ছিল বেপরোয়া গাড়ি চালানো৷ তবে অপরাধটা একটু বেশি গুরুতর হয়েছিল শিক্ষানবিশ অবস্থাতেই ঘটার কারণে৷

এবার মাত্র একদিন আগেই দক্ষিণ আফ্রিকায় উড়ে যান হিল্টন৷ ব্রাজিলের জন্যই কী গিয়েছিলেন হিল্টন পোর্ট এলিজাবেথে? সেটি স্পষ্ট না হলেও ব্রাজিলের শোচনীয় হারের পরপরই ধরা পড়েন এই সেলিব্রেটি৷

Flash-Galerie Handschuhe

ফাইল ছবি

হিল্টনকে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ৷ একেবারে মধ্যরাতে৷ রাত ১২.২০ টায় হাজির করা হয় বিশ্বকাপের আসর উপলক্ষে গঠিত বিশেষ আদালতে৷ ঐ আদালতের প্রথম অভিযুক্ত হিল্টন৷ তবে বিচারক জলিল লুলিজা তিন মিনিটের শুনানির পর মামলার নিষ্পত্তি করেন৷ মুক্তি দেওয়া হয় হিল্টনকে৷

ও হ্যাঁ, অভিযোগ ছিল মারিজুয়ানা সেবন৷ হিল্টন বেঁচে গেলেও ফেঁসে গেছেন তাঁর বন্ধু জেনিফার রোভেরো৷ মারিজুয়ানা বহনের দায়ে অভিযুক্ত হন রোভেরো৷ শাস্তি হয় ৩০ দিনের কারাবাস নতুবা এক হাজার রান্ড জরিমানা৷ অবশ্য, জরিমানা দিয়ে মুক্ত হন তিনিও৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সংশ্লিষ্ট বিষয়