1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পুটিনের সঙ্গে চীনা ফার্স্ট লেডির ভিডিও, টুইটারে শোরগোল

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের এক সাহসী পদক্ষেপ সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে৷ চীনের ফার্স্ট লেডি পেং লিইয়ুআনকে চাদর পরিয়ে দেন তিনি৷ এই ভিডিও প্রকাশে আবার ‘নিষেধাজ্ঞা’ জারি করেছে চীন৷

কেউ বলছেন ভদ্রতার বহিঃপ্রকাশ, কারো মতে ‘ফষ্টিনষ্টি৷’ ঘটনা সোমবার রাতের৷ বেইজিংয়ে এশিয়া-প্যাসিফিক অথনৈতিক সহযোগিতা জোট, অ্যাপেক-এর এক অনুষ্ঠানে হাজির বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা৷ সেখানে পুটিনের পাশেই বসেছিলেন চীনের ফার্স্ট লেডি পেং লিইয়ুআন৷ দু’জনের খুচরা আলাপের এক পর্যায়ে উঠে দাঁড়ান পুটিন৷ এরপর তাঁর হাতে থাকা চাদরটি লিইয়ুআনকে পরিয়ে দেন পুটিন৷

অনুষ্ঠানটি তখন সরাসরি সম্প্রচার হচ্ছিল সিসিটিভিতে৷ লিইয়ুআন অবশ্য চাদরটি কয়েক সেকেন্ড পরেই সরিয়ে ফেলেন এবং নিজের জ্যাকেট পরে নেন৷ তবে পুটিনকে ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং এর স্ত্রী৷ আসলে সেখানকার তাপমাত্রা ছিল শূন্য ডিগ্রির সামান্য উপরে৷ খুচরা আলাপে সে বিষয়ে কথা হতেই সম্ভবত পুটিন কাজটি করেন৷ অন্তত সংবাদ মাধ্যমগুলোর ভাষ্য সেরকম৷

তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি পৌঁছাতে খুব একটা সময় লাগেনি৷ চীনের মাইক্রোব্লগিং সাইট শিনা উইবোতে এক ব্লগার পুটিনকে আখ্যা দিয়েছেন, ‘দ্য রাশিয়ান জেন্টেলম্যান’ হিসেবে৷ যদিও রাশিয়াতে তিনি পরিচিত ‘স্ট্রংম্যান’ হিসেবে৷ অন্যদিকে, কারো কারো মতে চীনের ফার্স্ট লেডির সঙ্গে আসলে ‘ফস্টিনস্টি’র চেষ্টা করছিলেন সদ্য তালাকপ্রাপ্ত পুটিন৷ মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারেও অনেকে এই নিয়ে মন্তব্য করেছেন৷

আলোচিত এই ঘটনার ছবি এবং ভিডিও কয়েক ঘণ্টা পরেই চীনের বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে মুছে ফেলা হয়েছে৷ ধারণা করা হচ্ছে চীন সরকারের নিষেধাজ্ঞার কারণেই এটা করা হয়েছে৷ তবে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের ওয়েবসাইটে এবং ইউটিউবে ভিডিওটি এখনো রয়েছে৷

উল্লেখ্য, গত বছর সেন্ট পিটারসবুর্গে জিটোয়েন্টি সামিট উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক কনসার্টে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলকেও চাদর পরিয়ে দিয়েছিলেন পুটিন৷ সে ঘটনাও গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার হয়েছিল৷