1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

পা হারিয়েও মনোবল হারান নি সনু সিনহা

মেয়েটার বয়স ২৩৷ ভারতীয় জাতীয় দলের ফুটবল এবং ভলিবল খেলোয়াড়৷ গত সপ্তাহের সোমবার রাতে তিনি ট্রেনে চেপে যাচ্ছিলেন নতুন দিল্লি৷ পথে চিনতি এবং বারেইলি রেল স্টেশনের মাঝে ট্রেনের মাঝেই তাঁকে আক্রমণ করে তিন ছিনতাইকারী৷

default

এরকম ট্রেনের নীচে পড়েই পা হারিয়েছেন সনু সিনহা

ছিনতাইকারীদের একটি উদ্দেশ্য আর তা হলো খেলোয়াড় সনু সিনহার গলার সোনার চেইনটি৷ প্রথমে ধস্তাধস্তি, তারপর সকলের সামনেই মেয়েটির গলার চেইন ছিনিয়ে নিতে দুর্বৃত্তের প্রচন্ড শক্তির কাছে পরাজিত সনু৷ এরপর তারা গলার চেন নিয়ে চলন্ত ট্রেন থেকে ছুঁড়ে ফেলে দেয় জাতীয় দলের এই খেলোয়াড়কে৷ ছিটকে পড়েন তিনি৷ পাশ দিয়ে যাচ্ছিলো আরেকটি ট্রেন৷ সেটার নীচে চলে যায় তাঁর পা৷

এরপর...মেয়েটি এখন হাসপাতালে৷ পা হীন৷ খেলোয়াড় জীবনের অবসান! ছুটে আসে রেল কর্তৃপক্ষ৷ তারা সনু সিনহাকে অভয় দিয়ে বলেছে চাকুরির ব্যবস্থা করবে তারা৷ রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্রীয় সরকার থেকে চিকিৎসার জন্য থোক বরাদ্দ দেয়া হলো৷ এগিয়ে এলেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা৷ বসে থাকেননি খেলোয়াড়রাও৷ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় যুবরাজ সিং এবং হরভজন সিং-ও তাঁদের বোনটিকে বাঁচাতে এগিয়ে এসেছেন৷ অর্থ দিয়ে সহায়তা করছেন৷

চিকিৎসা চলছে তাঁর৷ চিকিৎসরা জানিয়েছেন ভালো হতে তাঁর বেশ সময় লাগবে৷ আর নকল পায়ের ব্যবস্থা করছেন তারা৷ হাসপাতালে ব্যথায় ছটফট করছেন সনু৷ কিন্তু এরই মাঝে তিনি শুনেছেন তাঁকে সমাজের বিভিন্ন স্তর থেকে সহায়তা দেবার কথা৷ ‘কিন্তু টাকা আমার নিজের জন্য চাই না৷ এই টাকা দিয়ে আমি একটি খেলার কলেজ খুলবো৷ যেখানে দরিদ্র ঘরের সুবিধা বঞ্চিত শিশুরা খেলা শিখবে- দেশের মুখ উজ্বল করবে'- বিছানায় শুয়ে মা গায়েনবালা সিনহার কাছে বলেছেন নিজের ইচ্ছের কথা৷

আর তিনি জানিয়েছেন ট্রেনে মেয়েদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাটা খুব প্রয়োজন৷

তবে এই ঘটনায় খল নায়কেরা কিন্তু এখনো ধরা পড়েনি৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম