1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পালিত হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলার নবম বার্ষিকী

দিনটি ছিল ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর৷ ইসলামি চরমপন্থিরা বিমান নিয়ে আঘাত হেনেছিল পেন্টাগন এবং ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে৷ প্রাণ হারিয়েছিলেন প্রায় তিন হাজার মানুষ৷ ধর্মীয় বিতর্কের মধ্যে পালিত হচ্ছে ঐ ঘটনার নবম বার্ষিকী৷

Ground Zero, World Trade Center, September 11, 2001, New York, USA, যুক্তরাষ্ট্র, সন্ত্রাসী হামলা,

নিহতদের স্মরণে মার্কিন জনগণ (ফাইল ছবি)

অন্যান্য বছরের মতো এবারও নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে স্মরণ করা হচ্ছে ঐ হামলায় নিহতদের৷ শ্রদ্ধা জানানো হচ্ছে তাদের প্রতি৷ বিশেষ প্রার্থনা করা হচ্ছে বিদেহী আত্মার শান্তির জন্য৷ অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাসহ আমেরিকার জাতীয় নেতৃবৃন্দ৷ পেন্টাগনের অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট ওবামা এবং নিউইয়র্কের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকছেন ভাইস-প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন৷ তবে এসব ঘটনাকে ছাপিয়ে গেছে নানা ধর্মীয় বিতর্ক৷ বিশেষ করে ফ্লোরিডার এক গির্জার যাজকের কোরআন পোড়ানোর ঘোষণা৷ এই ঘোষণার প্রতিবাদে বিশ্ব জুড়ে নিন্দা ও বিক্ষোভ৷ অন্যদিকে, গ্রাউন্ড জিরোর কাছেই মসজিদ নির্মাণ নিয়ে উত্তপ্ত বিতর্ক৷ এসব ধর্মীয় উত্তেজনার মধ্যে বিশেষ রূপ পেয়েছে এবারের ১১ সেপ্টেম্বর৷

শেষ পর্যন্ত কোরআন পোড়ানোর পরিকল্পনা বাতিল হলেও নিন্দার ঝড় এখনও বিদ্যমান৷ বিশেষ করে আফগানিস্তানে শনিবারও পথে নামে দেশটির মুসলমান জনতা৷ অনেকেই দাহ করে ফ্লোরিডার যাজক টেরি জোনসের কুশপুত্তলিকা৷ এসময় বিক্ষোভকারীদের সাথে নিরাপত্তা কর্মীদের সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে৷ এর আগে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও কোন ধর্মীয় বই পোড়ানোর মতো ঘটনা থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান৷ স্মরণ করিয়ে দেন আমেরিকার সকল নাগরিকের ধর্মীয় স্বাধীনতার কথা৷ তিনি বলেন, ‘‘আমরা ইসলামের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছি না৷ বরং আমরা ঐসব সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যুদ্ধরত, যারা ইসলামকে বিকৃত করেছে এবং প্রতারণামূলকভাবে ইসলামের নাম ব্যবহার করছে৷''

এদিকে, ২০০১ সালের ঐ হামলার ঘটনা সংক্রান্ত গবেষণার প্রতিবেদনে আমেরিকার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর কৌশলগত পরিবর্তনের আভাস দেওয়া হয়েছে৷ ওয়াশিংটন ভিত্তিক সংস্থা ‘বাইপার্টিসান পলিসি সেন্টার' এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘‘নয় বছর আগের সন্ত্রাসী হুমকি থেকে আমেরিকার বিরুদ্ধে বর্তমান হুমকি ভিন্নরকম৷'' বর্তমানে আমেরিকার অভ্যন্তরেই চরমপন্থি তৈরির প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে৷ এছাড়া আল কায়েদা এবং তাদের সহযোগী গোষ্ঠীগুলো তাদের নীতি-কৌশলেও পরিবর্তন আনছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে ঐ প্রতিবেদনে৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: ফাহমিদা সুলতানা

নির্বাচিত প্রতিবেদন