1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পার্ল হার্বারে ওবামা, আবের প্রতীকী সফর

১৯৪১ সালের ৭ই ডিসেম্বর জাপানি জঙ্গিবিমান হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে মার্কিন নৌ-ঘাঁটির উপর আক্রমণ করে৷ ফলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে যোগদান করে যুক্তরাষ্ট্র৷ জাপানের প্রধানমন্ত্রী সেখানে আসছেন বটে, কিন্তু ক্ষমাপ্রার্থনা হয়ত করবেন না৷

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে সোমবারেই হাওয়াইতে পৌঁছান৷ অপরদিকে বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর পরিবার সহ হাওয়াইতে বড়দিনের ছুটি কাটাচ্ছেন৷ আবেই প্রথম জাপানি নেতা যিনি ইউএসএস অ্যারিজোনা মেমোরিয়ালটি পরিদর্শন করবেন৷ জাপানের জনমত যে কতটা এগিয়েছে, এটা তারই প্রমাণ, টুইট করেছে দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকা৷

পার্ল হার্বারের উপর জাপানি বিমানবাহিনীর অতর্কিত আক্রমণে ২,৪০৩ জন মার্কিনি প্রাণ হারান ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত মহাসাগরীয় নৌবহর ছিন্নভিন্ন হয়৷ এই আক্রমণের ফলে যুক্তরাষ্ট্রে জনমত পুরোপুরি বদলে যায় ও প্রেসিডেন্ট ফ্র্যাংকলিন ডি. রুসভেল্ট অ্যামেরিকার দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে যোগদানের সপক্ষে বিপুল জনসমর্থন লাভ করেন৷ ইউরোপে তখন দু'বছরের বেশি সময় ধরে যুদ্ধ চলেছে৷

মঙ্গলবারের সফরে আবে দৃশ্যত ৭৫ বছর আগে পার্ল হার্বারের উপর জাপানি আক্রমণের জন্য ক্ষমাপ্রার্থনা করবেন না, কিন্তু তিনি যুদ্ধে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করবেন৷ এই প্রতীকী পদক্ষেপের ফলে ওয়াশিংটনের সঙ্গে সম্পর্ক আরো জোরদার হবে, বলে টোকিওর আশা৷

হাওয়াই যাত্রার আগে আবে সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘যুদ্ধের বিভীষিকার কোনোদিন পুনরাবৃত্তি হওয়া উচিত নয়৷ আমি ভবিষ্যতের জন্য এবং জাপান ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে পুনর্মিত্রতার মূল্যায়ন হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে এই শপথ নিতে চাই৷'' প্রসঙ্গত, ছ'মাস আগে ওবামা যখন প্রথম ক্ষমতাসীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে হিরোশিমা সফর করেন, তখন তিনিও হিরোশিমার উপর অ্যামেরিকার আণবিক বোমা নিক্ষেপের জন্য ক্ষমাপ্রার্থনা করেননি৷

ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকা পার্ল হার্বারে আবে ও ওবামার প্রতীকী সফরকে ডোনাল্ট ট্রাম্পের আসন্ন ক্ষমতাগ্রহণের পটভূমিতে দেখছে৷ পত্রিকাটি টুইট করেছে, এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘‘ট্রাম্প যে ধরনের উত্তেজনা সৃষ্টি করতে পারেন, তা প্রশমন করার চেষ্টা করছেন ওবামা৷''

সোমবার আবে অন্যান্য স্মৃতিসৌধ পরিদর্শন করেন৷ মঙ্গলবার অ্যারিজোনা মেমোরিয়াল দর্শন করার আগে উভয় নেতা একটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন এবং মার্কিন সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তা ও স্থানীয় কর্মকর্তাদের সামনে কিছু প্রাসঙ্গিক মন্তব্য করবেন৷ পার্ল হার্বার আক্রমণের ভেটারান ও প্রত্যক্ষদর্শীরাও সেই সমাবেশে উপস্থিত থাকবেন, বলে প্রকাশ৷

এসি/ডিজি (এএফপি, এপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন