1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পাকিস্তানে সরকার বাঁচানোর প্রচেষ্টা গিলানির

মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট বা এমকিউএম সত্যিই এবার জোট ছেড়ে বিরোধীপক্ষে যোগ দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রজা গিলানি’র প্রথম প্রচেষ্টা এখন অনাস্থা ভোটের হাত থেকে বাঁচবার৷ তার পরে আসবে সরকার বাঁচানোর উদ্যোগ৷

Pakistan, Prime, Minister, Yousuf, Raza, Gilani, chief, Punjab, province, Shahbaz, Sharif, power, crisis, Islamabad, Pakistan, পাঞ্জাব, প্রদেশ, মূখ্যমন্ত্রী, শাহবাজ, শরিফ, পাকিস্তান, প্রধানমন্ত্রী, ইউসুফ, রাজা, গিলানি

পাঞ্জাব প্রদেশের মূখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের সাথে পরামর্শ করছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি

সহজ কথা হচ্ছে, গিলানি সরকার তার সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে৷ এবং তত্ত্বগতভাবে বিরোধীরা এখন একটি অনাস্থা প্রস্তাব এনে সেই সরকারের পতন ঘটাতে পারে৷ কিন্তু সেই উদ্যোগ নিতে হবে সংসদে বৃহত্তম বিরোধীদল পিএমএল-এন, অর্থাৎ পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ'কে৷ গিলানি আজ সোমবারেই পিএমএল-এন'এর প্রেসিডেন্ট শাহবাজ শেরিফের সঙ্গে দেখা করেছেন৷ তবে শাহবাজ একদিকে যেমন গিলানি'কে কোনো আশ্বাস দেননি, অন্যদিকে বিশেষ কোনোরকম ভয়ও দেখাননি৷ গিলানি সংসদের অপর মুখ্য বিরোধীদল পিএমএল-কিউ, অর্থাৎ পিএমএল'এর অপর অংশ, পাকিস্তান মুসলিম লীগ-কায়দি আজম'এর নেতা চৌধরি শুজাত হুসেনের সঙ্গেও কথা বলেছেন৷

লাভালাভ

তাহলে প্রশ্ন দাঁড়াচ্ছে: এ'সব আলাপ-আলোচনায় গিলানি'র কি লাভ হচ্ছে? ঐ যেমন হুসেন নাকি গিলানির সঙ্গে আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী বদলের কথা উল্লেখ করেননি৷ হুসেন এ'ও বলেননি যে, তাঁর দল সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোটের প্রচেষ্টা করবে৷ বরং বলেছেন যে, তাঁর দল সরকারকে ‘ব্ল্যাকমেল' করার, অর্থাৎ সুযোগসুবিধা আদায় করার চেষ্টা করবে না৷ - আসল পটভূমি সম্ভবত এই: গিলানির পাকিস্তানি রাজনীতিতে বিশেষ শত্রু নেই৷ এবং সামরিক মহলের সঙ্গেও তাঁর ভালো সম্পর্ক আছে৷ কাজেই ওয়াকিবহালরা যেমন বলছেন, প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জরদারি স্বয়ং গিলানিকে বিদায় করার চেষ্টা করছেন - সে প্রচেষ্টা আপাতত সফল হবে না বলেই মনে হচ্ছে৷

এমকিউএম

আর যাদের থেকে এই গোটা সঙ্কটের শুরু, সেই এমকিউএম, তারা কোনদিকে যাবে, সেটাও আপাতত স্পষ্ট নয়৷ সিন্ধ প্রদেশে তারা তো জোটেই থাকছে৷ ওদিকে করাচি থেকেই তাদের এক নেতা, ফয়জাল সবজাওয়ারি, রয়টার্স'কে বলেছেন যে, তাঁর দল সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট সম্পর্কে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি৷ অবশ্য এই সবজাওয়ারি'ই গত সপ্তাহে ডয়চে ভেলে'র একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন যে, এমকিউএম সরকার ত্যাগ করলেও, বিরোধীদের আসনে যোগ দেবে না৷

নওয়াজের মনমেজাজ

তৃতীয় প্রশ্ন: পিএমএল-এন নেতা নওয়াজ শরিফ তো জারদারি-গিলানির পরম বৈরী৷ তিনি এই সুবর্ণ সুযোগটা নিচ্ছেন না কেন? নওয়াজ শরিফ নিঃসন্দেহে পাকিস্তানের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনীতিক, কিন্তু তাঁর অন্যান্য বিরোধী দলগুলির সঙ্গে ভালো সম্পর্ক নেই৷ কাজেই ভবিষ্যতে পিএমএল-এন'এর নেতৃত্বে একটি নতুন জোট সরকার গড়ে ওঠার সম্ভাবনা কম৷ ওদিকে পাকিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতিতে সরকারের পতন ঘটিয়ে আরো বেশি অরাজকতার দায় নিজের ঘাড়ে নিতে চান'না শরিফ - অথবা অন্য কেউ৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন