1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

পাকিস্তানের স্কুলে নিষিদ্ধ ‘আই অ্যাম মালালা’

পাকিস্তানের বেসরকারি স্কুলগুলোর একটি সংগঠন মালালা ইউসুফজাইয়ের সদ্য প্রকাশিত বই ‘আই অ্যাম মালালা’ নিষিদ্ধ করেছে৷ তাদের দাবি, বইটি তরুণ শিক্ষার্থীদের নীতিভ্রষ্ট করতে পারে৷

১৬ বছর বয়সি মালালার বইটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বেশ সাড়া ফেলেছে৷ তবে তাঁর নিজের দেশ পাকিস্তানে এটি নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে৷ রক্ষণশীলদের দাবি, আত্মজীবনীমূলক বইটিতে ইসলাম ধর্মের মহানবী মোহাম্মদ এবং পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর মর্যাদাহানি করা হয়েছে৷ ডানপন্থিরা আরো দাবি করেছে, শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পাওয়া মালালা তাঁর বাইয়ে সালমান রুশদি এবং সংখ্যালঘু আহমেদিয়া সম্প্রদায়ের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন৷ আহমেদিয়াদের পাকিস্তানে ‘অমুসলিম' হিসেবে বিবেচনা করা হয়৷

ATTENTION EDITORS - REUTERS PICTURE HIGHLIGHT TRANSMITTED BY 2210 GMT ON OCTOBER 20, 2013 OCH101 - Pakistani teenage activist Malala Yousafzai, who was shot in the head by the Taliban for campaigning for girls' education, signs a copy of her book before an event launching her memoir, I Am Malala, at the Southbank Centre in central London. REUTERS/Olivia Harris REUTERS NEWS PICTURES HAS NOW MADE IT EASIER TO FIND THE BEST PHOTOS FROM THE MOST IMPORTANT STORIES AND TOP STANDALONES EACH DAY. Search for TPX in the IPTC Supplemental Category field or IMAGES OF THE DAY in the Caption field and you will find a selection of 80-100 of our daily Top Pictures. REUTERS NEWS PICTURES. TEMPLATE OUT

মালালা ইউসুফজাই

প্রসঙ্গত, গত বছরের অক্টোবরে সোয়াত ভ্যালিতে বন্দুকধারীদের গুলিতে মালালাসহ আরো তিন মেয়ে আহত হন৷ তালেবান জঙ্গিরা সেই হামলার দায় স্বীকার করে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘ধর্মনিরপেক্ষতাকে' উৎসাহ দেওয়ায় মালালার উপর হামলা চালানো হয়েছে৷ সেসময় পাকিস্তানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁকে যুক্তরাজ্যে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়৷ বর্তমানে মালালা যুক্তরাজ্যে স্বপরিবারে বাস করছেন৷

তালেবানের হামলার শিকার হওয়ার আগে মালালা সোয়াতে নারী শিক্ষার পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছিলেন৷ তালেবানের কঠোর সমালোচক ছিলেন তিনি৷ উগ্র ইসলামপন্থীদের নিষ্ঠুরতা নিয়ে বিবিসি উর্দূতে ব্লগ লিখে আন্তর্জাতিক স্তরে সুনাম কুড়ান এই কিশোরী৷

পাকিস্তানের আইনজীবী আলী জাফর ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, ‘‘মালালার বইয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা বাকস্বীধানতার লঙ্ঘন৷ অথচ পাকিস্তানের সংবিধানেই বাকস্বাধীনতা রক্ষায় বিষয়টি সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে৷'' একই বিষয়ে ইসলামাবাদের কায়েদ-ই-আযম বিশ্ববিদ্যালয়ের ওম্যানস স্ট্যাডিজ বিভাগের প্রধান ফারজানা বারী বলেন, ‘‘বইটি নিষিদ্ধ করা হবে কিনা সে সিদ্ধান্ত শুধু সরকার নিতে পারে৷''

ইসলামাবাদ সরকার বইটির বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত না নিলেও ক্ষমতাসীন পাকিস্তান মুসলিম লিগের সদস্য রফিক রাজওয়ানা জানিয়েছেন, আত্মজীবনীটি ‘বিতর্কিত' এবং সরকার প্রয়োজন মনে করলে সেটি নিষিদ্ধ করবে৷

A woman browses a copy of Malala Yousufzai's book I am Malala at a book store in Islamabad October 8, 2013. REUTERS/Mian Khursheed (PAKISTAN - Tags: MEDIA POLITICS)

পাকিস্তানের বেসরকারি স্কুলগুলোর একটি সংগঠন মালালা ইউসুফজাইয়ের সদ্য প্রকাশিত বই ‘আই অ্যাম মালালা’ নিষিদ্ধ করেছে

তিনি বলেন, ‘‘বইটিতে পাকিস্তান এবং ইসলামের মানহানিকর কিছু বিষয় রয়েছে৷ অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, ‘আই অ্যম মালালা' একটি বড় ষড়যন্ত্রের অংশ৷ বইটির মাধ্যমে পাকিস্তানের তরুণ সমাজকে উদার হতে এবং নিজের দেশের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে উৎসাহ দেওয়া হয়েছে৷ আমরা এটা মানতে পারিনা৷''

উল্লেখ্য, পাকিস্তানে অনেকেই বিশ্বাস করেন, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম অল্পবয়সি সমাজকর্মী মালালাকে নিয়ে অপ্রয়োজনীয় ‘হাইপ' তৈরি করছে৷ ডানপন্থিদের মতে, মালালাকে নিয়ে এসব প্রচারনা থেকে বোঝা যায় পুরো ঘটনার পেছনে ‘আন্তর্জাতিক লবি' কাজ করছে৷ তবে মালালার সমর্থকরা মনে করেন, মালালাকে যারা সহ্য করতে পারে না, মূলত তারাই তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন কুৎসা রটাচ্ছে৷