1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পাকিস্তানি সেনাদের বিচারের উদ্যোগ

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে চিহ্নিত ১৯৫ জন পাকিস্তানি সেনার বিচারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে৷ মানবতাবিরোধী আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট রানা দাসগুপ্তের মতে, বিচারে আইনগত কোনো বাধা নেই৷

১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর, ১৯৭৪ সালে ত্রিপক্ষীয় চুক্তির মাধ্যমে ১৯৫ জন পাকিস্তানি সেনা সদস্যকে দেশটি ফেরত নিয়েছিল৷ যা শিমলা চুক্তি নামে পরিচিত৷ এই ১৯৫ জন পাকিস্তানি সেনা সদস্যকে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়৷ পাকিস্তান তাদের নিজের দেশে বিচারের মুখোমুখি করার প্রতিশ্রুতি দিলেও, এখনও পর্যন্ত তাদের বিচার করেনি৷

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক রবিবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘‘আমি জানতে পেরেছি ঐ ১৯৫ জন, যাদের ১৯৭৩ সালে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল তাদের বিচারের একটি উদ্যোগ নেয়া হয়েছে৷'' তিনি বলেন, ‘‘আমাদের এখন কর্তব্য এটা দেখা যে, শিমলা চুক্তির মাধ্যমে যাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছিল তাদের বিচারে সে চুক্তির কোনো ব্যাঘাত ঘটবে কিনা৷ আনটিল অ্যান্ড আনলেস আই গেট দিস ক্লারিফিকেশন, আমি এটার ওপর আর কিছু বলতে চাই না৷''

Audioslideshow Pakistan Bangladesh Bürgerkrieg



তিনি বলেন, ‘‘এই চুক্তি সংসদে পাশ আর না পাশের কিছু নেই৷ এই চুক্তি কার্যকর হয়ে গেছে৷ তাদেরও ছেড়ে দেয়া হয়েছে৷ এখন দেখতে হবে, চুক্তি কার্যকরের পরেও এটা আমরা করতে পারি কিনা৷'' তিনি বলেন, ট্রাইব্যুনাল স্বাধীন৷ আর অভিযুক্তদের অনুপস্থিতিতে বিচার করার একটা পদ্ধতি আছেই৷ আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত আইন এবং তার সকল সংশোধনীতেই সেই সুযোগ আছে৷

ট্রাইবুন্যালের প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট রানা দাসগুপ্ত ডয়চে ভেলেকে বলেন, পাকিস্তানের হামিদুর রহমান কমিশনও ১৯৫ জনকে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করে৷ শিমলা চুক্তি অনুযায়ী, পাকিস্তান নিজেই তাদের বিচারের কথা বলেছিল৷ কিন্তু এখানো তার বিচার করেনি৷ আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এখন তাদের সহযোগিদের প্রশ্নটি খুঁটিয়ে দেখছে৷ আইনে যুদ্ধাপরাধ, গণহত্যা এবং মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য পাকিস্তানের ১৯৫ জন সেনা সদস্যেরও বিচার করতে পারে ট্রাইব্যুনাল৷ তবে এ জন্য সরকারের সিদ্ধান্ত নিতে হবে৷ কারণ এর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কসহ আরো অনেক বিষয় জড়িত৷ তিনি দাবি করেন, ১৯৫ জনের সকলেরই বিচার যেন করা হয়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়