1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পাকিস্তানি নারী আর ভারতীয় পুরুষের ‘চুমু’ নিয়ে বিতর্ক

পাকিস্তানি অভিনেত্রী হুমাইমা মালিক ও ভারতীয় অভিনেতা ইমরান হাশমি অভিনয় করেছেন ‘রাজা নাটওয়ারলাল’ ছবিতে৷ ২৯শে আগস্ট মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ছবিটিতে এই দুই তারকার চুমুর দৃশ্য রয়েছে৷ আর তা নিয়েই যত বিতর্ক৷

Emraan Hashmi Schauspieler

ইমরান হাশমি

বিতর্কের শুরুটা করেছেন হুমাইমা মালিক নিজেই৷ তাঁর ধারণা, পাকিস্তানি সেন্সর বোর্ড চুমুর দৃশ্য সম্ভবত সেন্সর বা ‘ডিলিট' করে দেবে৷ একথা শোনার পর সামাজিক মাধ্যমে শুরু হয়েছে নানা ধরনের আলোচনা৷

ইতোমধ্যে ইউটিউটবে ছবিটির ট্রেইলার প্রকাশ করেছে ‘ইউটিভি মোশন পিকচারস'৷ প্রায় ৩০ লাখবার সেটি ইউটিউবে প্রদর্শিত হয়েছে৷ ভিডিওটির নীচে থাকা মন্তব্যের ঘরে অনেক ইতিবাচক মন্তব্যের পাশাপাশি ছবিটির সমালোচনাও দেখা গেছে:

চুমুর দৃশ্যে অভিনয় প্রসঙ্গে আত্মবিশ্বাসী হুমাইমা মালিক জানিয়েছেন, চুমুর দৃশ্যে অভিনয় সহজ ছিল না৷ তাছাড়া ক্যামেরার সামনে চুমু দেয়ার বাস্তব অভিজ্ঞতা তাঁর ছিল না৷ তাই খানিকটা ‘নার্ভাস' ছিলেন তিনি৷

তবে ইমরান হাশমি এক্ষেত্রে তাঁকে সহায়তা করেছেন৷ সেকারণে ভালোভাবে শুটিং সম্পন্ন করা গেছে বলে জানান হুমাইমা৷ পাকিস্তানি এই অভিনেত্রী বলেন, ‘‘ইমরান চুমু বিশেষজ্ঞ৷ আর মানুষও তাঁকে এ জন্য ভালোবাসে৷''

সমালোচনা যাই থাক, ২৬ বছর বয়সি হুমাইমা মনে করেন, ‘রাজা নাটওয়ারলাল' ছবিতে জোর করে কোনো যৌন দৃশ্য যোগ করা হয়নি৷ বরং কাহিনির প্রয়োজনেই অন্তরঙ্গ হয়েছেন অভিনেতা, অভিনেত্রীরা৷ ফলে এ সব দৃশ্যে ‘অভদ্র' ব্যাপার নেই৷

ছবিটি নিয়ে টুইটারে মন্তব্য করেছেন অনেকে৷ #RajaNatwarlal হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে বিভিন্ন ছবিও পোস্ট করা হচ্ছে৷ ইমরান হাশমি ফ্যানক্লাব নামের টুইটার আইডিতে রয়েছে এই ছবিটি:

চুমুর দৃশ্য নিয়ে পাকিস্তানে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া তৈরি হতে পারে – এটা জেনেই অভিনয় করেছেন হুমাইমা৷ তিনি তাই বিষয়টি নিয়ে বেশি ভাবছেন না৷ বরং তাঁর ধারণা, পাকিস্তানের মানুষ তাঁকে সমর্থন করবেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি জানি কিছু মানুষ আমার সমালোচনা করবে৷ কিন্তু আমি যদি সেটা গুরুত্ব সহকারে নেই তাহলে ক্যারিয়ারে অনেক কিছু করতে পারবো না৷''

প্রসঙ্গত, বলিউডের ‘সিরিয়াল কিসার' খ্যাত ইমরান হাশমিকে নিয়ে বাংলা ব্লগেও বিভিন্ন সময় নিবন্ধ প্রকাশ হয়েছে৷ সামহয়্যারইন ব্লগে নাসরিন আকতার লিখেছেন, ‘‘ইমরান হাশমি নামক এক হিরো তাঁর ঠোট আর জিব দিয়ে কোনো না কোনো নায়িকা নামক ভোগবাদী বস্তুর (সম্ভবত এখানে ‘ভোগ্য' বস্তুর কথা বলা হচ্ছে) শরীর পরিষ্কার করছে৷ এখন হিরো মানেই ‘আইডল', যাঁকে পুরো পাবলিক সমাজ ফলো করে৷ আর তাই ভারতের পুরো সমাজে নেমে এসেছে মেয়েদের জন্য নরকের দুনিয়া৷ যার খেসারৎ দিতে হচ্ছে পুরো ভারতবাসীকে৷''

সংকলন: আরাফাতুল ইসলাম (পিটিআই)

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন