1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

পাকিস্তানি খেলোয়াড়দের শুনানির জন্যে আইসিসি’র ট্রাইবুনাল

পাকিস্তানের তিনজন খেলোয়াড়ের পাতানো খেলায় জড়িত থাকার অভিযোগ তদন্তে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল আইসিসি শুক্রবার তিন সদস্যের একটি দুর্নীতি বিরোধী ট্রাইবুনাল গঠন করেছে৷

Pakistan, cricket, captain, Salman, Butt, Taunton, England, International Cricket Council, Pakistan, পাকিস্তান, আইসিসি, ট্রাইবুনাল

ইংল্যান্ডে সাবেক টেস্ট ক্যাপটেন সালমান বাটসহ সতীর্থরা (ফাইল ছবি)

সাবেক টেস্ট ক্যাপটেন সালমান বাট এবং ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ আসিফ ও মোহাম্মদ আমিরের বিরুদ্ধে গত মাসে ইংল্যান্ড সফরের সময়ে স্পট-ফিক্সিং-এর অভিযোগ আনা হয়েছে৷ আইসিসি-র এক বিবৃতিতে শুক্রবার বলা হয়েছে, ‘‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল নিশ্চিত করতে পারে যে, তিনজন পাকিস্তানি খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে, আইসিসি-র দুর্নীতি বিরোধী নিয়ম ভঙ্গের অভিযোগ তদন্তে মাইকেল বেলোফ কিউসি একটি স্বতন্ত্র দুর্নীতি দমন ট্রাইবুনাল গঠন করেছেন৷''

ঐ ট্রাইবুনালের চেয়ারম্যান বেলোফ৷ সঙ্গে থাকা বাকি দুইজনই কোড অফ কন্ডাক্ট কমিশনার৷ দক্ষিণ আফ্রিকার জাস্টিস আলবি সাচস এবং কেনিয়ার সারদ রাও৷ বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, আগামী বছর দোহাতে জানুয়ারির ৬ থেকে ১১ তারিখ পর্যন্ত শুনানি অনুষ্ঠিত হবে৷ দোহাতে শুনানি অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, কারণ নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক বহনের দায়ে ২০০৮ সালের পর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আসিফের প্রবেশ নিষিদ্ধ৷

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘‘২০১০ সালের ২ সেপ্টেম্বর, আইসিসি-র দুর্নীতি দমন কোডের ২ নং অনুচ্ছেদের আওতায় ঐ তিন খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷ এবং তখন থেকেই তারা পেশাগতভাবে বরখাস্ত৷''

এদিকে সালমান এবং আমির আইসিসির বিরুদ্ধে সময় ক্ষেপণের অভিযোগ এনেছে৷ তবে আইসিসি এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, তারা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই ব্যাপারটি সমাধান করতে চান৷ গত আগস্টে লর্ডসে, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট চলাকালে স্পট-ফিক্সিং-এর অভিযোগ স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড তদন্ত করবে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড-এ এই খবরটি ছাপার পরেই কেলেঙ্কারি প্রকাশ হয়ে যায়৷

এরপরেই পুলিশ লন্ডনে দলের হোটেলে গিয়ে সালমান, আসিফ, আমির এবং বোলার ওয়াহাব রিয়াজকে জিজ্ঞাসাবাদ করে৷ তবে তাদের বিরুদ্ধে কোন মামলা দায়ের করা হয়নি৷

প্রতিবেদন:ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই

নির্বাচিত প্রতিবেদন