1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পাকিস্তানকে ৯০ কোটি ডলার ঋণ দেবে বিশ্ব ব্যাংক

ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পাকিস্তানকে ত্রাণ সহায়তা হিসেবে বিশ্ব ব্যাংক ৯০ কোটি ডলার ঋণ দেবে৷ ৮০ বছরের মধ্যে ভয়াবহ এই বন্যায় দেশটির দুই কোটি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত দুই হাজার মানুষ৷

default

সিন্ধ প্রদেশের বন্যা কবলিত এলাকা দড়ি ধরে পার হচ্ছে লোকজন

পাকিস্তানকে ৯০ কোটি ডলার ঋণ সহায়তা দেয়ার কথা ঘোষণা করেছে বিশ্ব ব্যাংক৷ বিশ্ব ব্যাংকের মুখপাত্র মরিয়ম আলতাফ বলেছেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই ঋণ পৌঁছানোর জন্যে সব কিছুই করছি আমরা৷ পরিকল্পিত প্রকল্পের মাধ্যমেই বিশ্ব ব্যাংকের এই তহবিল আসবে৷ তবে বন্যা দূর্গতদের কাছে ত্রাণ সহায়তা হিসেবে কীভাবে এটি ব্যবহার করা হবে, তা বলা হয়নি৷

পাকিস্তানের কয়েক'শো গ্রাম এখনও পানিবন্দি৷ মহাসড়কের সঙ্গে বেশিরভাগ যোগাযোগ ব্যবস্থাই অনেক আগেই বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে৷ গৃহহারা হাজার হাজার মানুষ পথের পাশে তাঁবু খাটিয়ে বসবাস করতে বাধ্য হচ্ছে৷

Pakistan Hochwasser Flut

দেরা গাজীর বন্যা কবলিত এলাকা

এএফপি বলছে, এই পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা প্রায় ২ হাজার৷ দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে চলমান এই বন্যায় সরকারের বিরুদ্ধে জনরোষ বাড়ছে, যা পরে রাজনৈতিক সঙ্কট তৈরি করতে পারে৷ সোমবার বন্যা দুর্গতরা একটি মহাসড়ক অবরোধ করে সরকারি সাহায্যের দাবি জানায়৷ এদিকে লাখ লাখ বন্যা দুর্গত মানুষের জন্যে পরিষ্কার পানি, খাবার এবং আশ্রয়ের ব্যবস্থা করতে সরকার প্রচুর সময় নেয়ায় সাহায্য সংস্থাগুলো হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে৷

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পূণনির্মাণ কাজ দীর্ঘ মেয়াদি এক অর্থনৈতিক সঙ্কট তৈরি করবে পাকিস্তান সরকারের জন্যে৷ এদিকে ব্রিটেনে নিয়োজিত পাকিস্তানের হাইকমিশনার ওয়াজিদ শামসুল হাসান রয়টার্সকে বলেছেন, বন্যা পরবর্তী পূণনির্মাণের জন্যে ১ হাজার কোটি ডলার থেকে ১৫'শ কোটি ডলারেরও বেশি অর্থ প্রয়োজন৷ ত্রাণ এবং পূণনির্মাণের জন্যে তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে তহবিলের ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান৷ পাকিস্তানকে ইসলামি জঙ্গিরা অস্থিতিশীল করে তুলছে বলে আন্তর্জাতিক মহলের অভিযোগ রয়েছে৷ বন্যা দূর্গতদের সাহায্যে ইসলামি দাতব্য প্রতিষ্ঠানগুলো এগিয়ে এসেছে, তবে এমন কিছু গোষ্ঠীও এদের মধ্যে রয়েছে যারা জঙ্গিদের সঙ্গে সম্পর্কিত৷ তারা ত্রাণ তৎপরতা বাড়িয়ে চলেছে, পর্যবেক্ষক মহলের ধারণা, দেশের ভেতরে তাদের পক্ষে সমর্থন বাড়াতেই তারা ত্রাণ কাজে অংশ নিচ্ছে৷ পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, ইসলামি জঙ্গিরা যদি নিজেদের আধিপত্য এভাবে বিস্তার করতেই থাকে তবে তা হবে ভয়ংকর এক ব্যাপার৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

ইন্টারনেট লিংক