1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ব্লগওয়াচ

‘পাঁচ কেজি স্কুল ব্যাগ, কত কেজি আওয়ামী লীগ?'

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন পাটোয়ারীর একটি ছবি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড়৷ হাতে হাত রেখে বানানো ‘পদ্মা সেতুতে'  শুয়ে থাকা এক শিক্ষার্থীর পিঠে চড়ে হেঁটেছেন তিনি!

সোমবার নীলকমল ওছমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার দিনে শিক্ষার্থীদের হাতের উপর ওঠা উপজেলা চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারীর ছবি নিয়ে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড় চলছে৷ অনেকেই এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন৷

ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে নূর হোসেন অবশ্য বলছেন, স্কুলের আয়োজনে সেটি ছিল পদ্মা সেতুর প্রতীকী উপস্থাপনা৷ তাঁর দাবি, ইচ্ছে না থাকলেও ছাত্রদের অনুরোধে তিনি এটা করেছেন৷ ছবিতে দেখা যায়, দুই দল শিক্ষার্থী হাতে হাত রেখে ‘সেতু' তৈরি করেছে এবং আরেক ছাত্র তার ওপর উপুড় হয়ে শুয়েছে৷ ওই অবস্থায় তার পিঠের উপর দিয়ে হেঁটে চলেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান নূর হোসেন৷

দৈনিক প্রথম আলোর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে স্কুলটিতে এ রকম আয়োজন চলছে৷ প্রধান অতিথিরা এর আগেও এ রকম মানবসেতু পার হয়েছেন৷ ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন বলেছেন, ২০০২ সালে এই বিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকে তিনি এই রেওয়াজ দেখে আসছেন৷ স্কুলের ক্রীড়া শিক্ষক প্রশান্ত কুমার দাস এই সেতুর পরিকল্পনা করে আসছেন এবং প্রতিবছর এটি শিক্ষার্থীদের দিয়ে বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানে প্রদর্শন করেছেন৷ আগেও যাঁরা প্রধান অতিথি ছিলেন, এই সেতুর ওপর দিয়ে হেঁটে গেছেন৷ এ ব্যাপারে নূর হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ‘‘সেতুটি বানানোর পুরস্কার হিসেবে তিনি শিক্ষার্থীদের পাঁচ হাজার টাকা দেন৷''

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার ওই ছবি শেয়ার করে লিখেছেন,

‘‘এই বদমাশটা নাকি জনপ্রতিনিধি? চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং উপজেলা চেয়ারম্যান৷ নাম নূর হোসেন পাটোয়ারী৷ এই অমানুষটাকে খোঁয়াড়ে ভরা কি খুব কঠিন?''

শহীদুল ইসলাম ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘মহামান্য হাইকোর্ট আইন করে নির্ধারণ করে দিয়েছেন কত কেজি ওজনের স্কুল ব্যাগ ছাত্ররা বহন করতে পারবে, কিন্তু কত কেজি আওয়ামী লীগ পিঠে চড়তে পারবে সে ব্যাপারে আদালত কোনো নির্দেশনা দেননি৷''

শিহাব এ মামুন ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘নূর হোসেন পাটোয়ারী, এলাকার একটি স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথি হয়ে ছাত্রদের পিঠের উপর হেঁটেছেন! শিক্ষার্থীদের কী শিক্ষা দেয়া হলো? টাকার জন্য জুতো চাটতেও পিছপা হওয়া যাবে না৷ যেমন মাস্টার, তেমন চেয়ারম্যান৷ মেরুদণ্ড ভাঙা শিক্ষক থাকার চেয়ে না থাকাই ভালো৷ হয়ত পরবর্তী প্রজন্মও মেরুদণ্ডহীন হবে এমন কারিগর থেকে শিক্ষা নিয়ে৷ অন্তত শিক্ষা ব্যবস্থা রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত থাকুক এই আশা রাখি৷''

অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী সাংবাদিক ফজলুল বারী লিখেছেন, ‘‘

‘‘চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন পাটোয়ারী নামের জানোয়ারটাকে কী গ্রেফতারের নির্দেশ দেবে বাংলাদেশের কোনো আদালত? সংশ্লিষ্ট স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও দায়ী শিক্ষকদের? স্কুল কমিটি, শিক্ষকরা এভাবে উপজেলা চেয়ারম্যানকে খুশি করতে বাচ্চাদের বলির পাঠা বানিয়েছে! ''

আলম পিন্টু নামের একজন সাংবাদিক ছবিটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘বাহ! আমার বাংলাদেশ.. তিনি নাকি চাঁদপুরের হাইমচরের উপজেলা চেয়ারম্যান? বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথি হয়ে ছাত্রদের পিঠের উপর হাঁটছেন৷ হাঁটবেনই না কেন? আজ পিঠে কাল মাথার উপর হাঁটবেন৷ এই স্কুলের শিক্ষকগুলো শিক্ষক নামের কলঙ্ক৷''

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়