1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

পশ্চিমবঙ্গে পরিবেশ বান্ধব আবাসন

প্রথাবহির্ভূত বিকল্প শক্তির ব্যবহারকে জনপ্রিয় করে তুলতে পরিবেশ বান্ধব বাড়ি বা ইকো হাউসিং-এর প্রচলনে উৎসাহ দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার৷ সম্প্রতি সেরকমই এক গ্রিন বিল্ডিং-এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হল সল্ট লেকে৷

default

পরিবেশ বাঁচাতে উদ্যোগে হচ্ছে কলকাতাবাসী (ফাইল ফটো)

শুধু ইকো ফ্রেন্ডলি বা পরিবেশ বান্ধব বাড়ি নয়, ওঁরা বলছেন ইকো রেসপন্সিভ বিল্ডিং৷ যে বাড়ি পরিবেশের আলো-হাওয়ায় সাড়া দেয়৷ পশ্চিমবঙ্গে বিকল্প শক্তি উদ্যোগের প্রাণ পুরুষ যিনি, সেই শক্তিপদ গনচৌধুরী জানালেন, সেই নকশা তৈরির সময় থেকেই একটি বাড়িকে পরিবেশমুখী করে তোলা যায়৷ যেমন বাড়ি তৈরি করতে যে সিমেন্ট, লোহা, ইঁট ইত্যাদি লাগে, এই সব নির্মাণসামগ্রী উৎপাদন করতেও শক্তি খরচ হয়৷ কাজেই বাড়ির প্ল্যান করার সময় যদি এমনভাবে নকশা করা যায় যাতে এই সব সামগ্রীর ব্যবহার কিছুটা কমিয়ে আনা যায় তাহলেও শক্তি সাশ্রয় হয় এবং পরোক্ষে দূষণ কম হয়৷

এইসব লো কার্বন নির্মাণসামগ্রী ব্যবহারের পাশাপাশি বাড়িতে প্রাকৃতিক আলো-হাওয়া খেলার সুযোগ করে দেওয়াও খুব জরুরি৷

Teearbeiter in Darjeeling, West Bengal, Indien

শুধু চা বাগানগুলিতেই নয়, খোদ শহরতলিতেও তৈরি হচ্ছে যাচ্ছে পরিবেশ বান্ধব বাড়ি-ঘর

যেমন বাড়িতে জানালা যদি একটু বেশি থাকে, তাহলে যথেষ্ট আলো আসতে পারে৷ সেক্ষেত্রে দিনের বেলায় আলো জ্বালানোর দরকার প্রায় হয়ই না৷ হাওয়ার ক্ষেত্রেও একই পরামর্শ দেওয়া যায়৷

এই সঙ্গে দৈনন্দিন জীবনে কীভাবে শক্তি সাশ্রয় করা যায়, তারও উপায় বাতলে দিলেন শক্তিপদ গনচৌধুরী৷ যেমন ঘরের আলোর ক্ষেত্রে প্রথাগত বৈদ্যুতিক বাল্বের বদলে সিএফএল ব্যবহার করা, বা আরও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী এলইডি ব্যবহার করা যায়৷ ছাদে সোলার প্যানেল লাগানো যায়৷ তাতে একদিকে ছাদ ঠান্ডা থেকে যেমন পাখা বা এয়ার কন্ডিশনারের ওপর চাপ কমাবে, তেমন বিদ্যুতও তৈরি করে নেওয়া যাবে যা ঘরোয়া কাজে যেমন জল গরম করার জন্য ব্যবহার করা যাবে৷

ডয়চে ভেলের তরফ থেকে শক্তিপদ গনচৌধুরীর কাছে জানতে চাওয়া হয়, যে কেউ যদি নিজের বাড়িকে গ্রিন বিল্ডিং করে তুলতে চায় তাহলে কার কাছে পরামর্শ এবং সাহায্য চাওয়া যায়৷ শ্রী গনচৌধুরী জানালেন যে ২০ জনের মত স্থপতি এবং বাস্তুকারকে তাঁরা প্রশিক্ষণ দিয়েছেন যাঁরা গ্রিন বিল্ডিং তৈরির পরামর্শ দিতে পারবেন৷ সামান্য পারিশ্রমিকে এরা এই পরামর্শ যোগাবেন, নতুন বাড়ি তৈরির ক্ষেত্রে তো বটেই, এমনকী পুরনো বাড়ি-র শক্তি সঞ্চয় এবং সাশ্রয়ের পরামর্শও দেবেন ওরা৷

কাজেই দরকার কেবল আমার-আপনার পরিবেশ সচেতনতা৷ দূষণ নিয়ন্ত্রণের ভার রয়েছে আমাদের হাতেই৷

প্রতিবেদন: শীর্ষ বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়