1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

পর্নোছবির কলাকুশলীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ শ্রীলঙ্কায়

আধুনিকতার কিছু ছোঁয়া লাগলেও যেন গোঁড়ামির ছোঁয়া ঘুরে ঘুরে আসছে শ্রীলঙ্কার সমাজে এবং সরকারে৷ মদ্যপান থেকে শুরু করে অশ্লীল ছবি, এমনকি আকনের কনসার্টের বিরুদ্ধে বেশ শক্ত অবস্থানে দেশটির সরকার৷

SEX, Porno, actress, films, business, পর্নো, ছবি, শ্রীলঙ্কায়

ফাইল ছবি

শ্রীলঙ্কা মূলত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের দেশ৷ সেখানে হিন্দু, মুসলমান এবং খ্রিষ্টানদেরও বাস রয়েছে৷ তবে দেশটির সমাজ ব্যবস্থায় এখনও বিরাজ করছে বেশ পুরনো ঐতিহ্যবাহী আদর্শ এবং মূল্যবোধ৷ সম্প্রতি সেখানে মদ্যপান নিষিদ্ধ করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছিল প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ্রা রাজাপাকসে'র সরকারের একাংশ৷ তবে শেষ পর্যন্ত এই শিল্পের সাথে জড়িতদের প্রতিবাদে সেই উদ্যোগ থেমে গিয়েছে৷ কারণ হিসেবে ভাবা হয় যে, মদ নিষিদ্ধ করা হলে অর্থনৈতিকভাবে বড় ধরণের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে৷

এবার পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে শুরু হয়েছে একেবারে চিরুনি অভিযান৷ কারো কম্পিউটারে, ল্যাপটপে কিংবা মোবাইলে অশ্লীল ছবি ধরা পড়লেই যেতে হচ্ছে লাল ঘরে৷ ইতিমধ্যে দেশটির টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন অশ্লীল ছবি থাকার দায়ে বন্ধ করে দিয়েছে প্রায় এক শ' ওয়েবসাইট৷ এছাড়া পর্নোছবিতে অভিনয় করেছে এমন ৮৩ জনকে চিহ্নিত করেছে শ্রীলঙ্কার পুলিশ৷

শুধু তাই নয়, গণমাধ্যমকে আদালত থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এসব ব্যক্তিদের ছবি প্রকাশ করার জন্য, যাতে সাধারণ মানুষ তাদের চিনতে পারে৷ এই আদেশের প্রেক্ষিতে বুধবার বেশ কিছু পত্রিকায় ছাপানো হয়েছে এসব অশ্লীল ছবিতে অভিনয় করা কিছু মেয়ের ছবি৷

প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসে আকনের একটি কনসার্ট হতে দেয়নি শ্রীলঙ্কা৷ ভিসা দেওয়া হয়নি সেনেগালিজ-মার্কিন আরঅ্যান্ডবি শিল্পী আকন'কে৷ মূলত বুদ্ধের একটি মূর্তির সামনে সংক্ষিপ্ত পোশাক পরা মেয়েদের নাচের আসরে দেখা গিয়েছিল আকন'কে৷ আর সেই ভিডিও ছবির কারণেই ঐ কনসার্টের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছিল বুদ্ধের ভক্তরা৷ এমনকি ঐ কনসার্টে পৃষ্ঠপোষক বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলেও হামলা চালায় বিক্ষোভকারীরা৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন