1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

পরিবেশের ক্ষতি করে গরু

গরু দুধ দেয়৷ অনেকে এর মাংসও খেতে ভালোবাসেন৷ তাছাড়া গৃহপালিত পশু হিসেবে গরুর বেশ কদর রয়েছে৷ কিন্তু এই গরুও বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছে৷ জার্মান বিজ্ঞানীরা অবশ্য চেষ্টা করছেন জলবায়ু পরিবর্তনে গরুর অবদান কমানোর৷

গরু ঢেকুর এবং বায়ু ছাড়ার মাধ্যমে প্রচুর গ্রিনহাউস গ্যাস, বিশেষ করে মিথেন বাতাসে ছেড়ে দেয়৷ আর এই মিথেন পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর৷ জার্মানির রাইনল্যান্ড কৃষি সংঘের ড. সেবোস্টিয়ান হপে এই বিষয়ে বলেন, ‘‘গরু একটি জাবর কাটা প্রাণী৷ আর তাদের শুধু একটি পেটই নয়, পূর্ণাঙ্গ পরিপাক প্রণালি রয়েছে৷

তারা যা খাচ্ছে, সেগুলো প্রাথমিকভাবে পেটের মধ্যে সরল খাদ্য উপাদানে রূপান্তর হয়৷ এই প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে ব্যাকটেরিয়া৷ আর সেসময় ‘বাই-প্রোডাক্ট' হিসেবে মিথেন উৎপন্ন হয়৷''

গোটা বিশ্বে উৎপন্ন হওয়া গ্রিন হাউসের এক তৃতীয়াংশই আসে জাবর কাটা প্রাণীদের কাছ থেকে৷ আর বিশ্বের উষ্ণতা বাড়াতে মিথেন গ্যাস কার্বন ডাই অক্সাইডের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি ভূমিকা রাখছে৷ ফলে গরুর মিথেন উৎপাদনের পরিমাণ কমিয়ে পরিবেশ রক্ষায় ভূমিকা রাখা সম্ভব৷

জার্মানির বিজ্ঞানীরা এই নিয়ে কাজ করছেন৷ এ জন্য পরীক্ষামূলকভাবে তারা একটি গরু ঠিক কতটা খাবার খায়, তার হিসেব রাখেন৷ গরুগুলো কী পরিমাণ গ্যাস নিঃসরণ করছে, তা আটটি পয়েন্টের মাধ্যমে দেখা হয়৷ বিজ্ঞানীরা বুঝতে চাচ্ছেন, গরুর খাবারে পরিবর্তন আনলে সেটি মিথেন নিঃসরণের ক্ষেত্রে কোনো পরিবর্তন আনবে কিনা৷

গোখাদ্যের এই পরীক্ষায় পশুগুলোকে প্রাথমিকভাবে ভুট্টা সাইলেজ এবং মূলত ঘাস সাইলেজ দেয়া হয়৷

বন শহরের এগ্রিকালচার ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের আলেক্সান্ডার স্মিটহাউসেন এই বিষয়ে বলেন, ‘‘আমরা আমাদের পরীক্ষায় দেখেছি, পশুকে ভুট্টা সাইলেজ খাবার হিসেবে দিলে মিথেন নিঃসরণ কম হয়৷ এগুলোর মসৃণ কাঠামো দেখতে পাচ্ছি৷ এ ধরনের খাদ্য পেটে প্রক্রিয়াজাতের সময় কম মিথেন গ্যাস তৈরি হয়৷ আর ঘাস সাইলেজের কাঠামোতে অশোধিত আঁশের পরিমাণ বেশি৷ ফলে এটি পেটে গিয়ে সরল খাদ্য উপাদানে রূপান্তরে সময় বেশি লাগে৷ আর মিথেন গ্যাসের উৎপাদনও বেশি হয়৷''

শুধু যে গরু মিথেন উৎপাদন করে এমন নয়৷ বিশ শতাংশ মিথেন আসে গোবর থেকে৷ তাই কীভাবে এবং কোথায় গোবর সংরক্ষণ করা হচ্ছে, সেটা মেঝে পরিষ্কারের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ৷ মূল কথা হচ্ছে, মিথেন নিঃসরণ কমানো৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়