1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পরিবেশবান্ধব ইঁটভাটা নির্মাণে ঋণ দেবে বাংলাদেশ সরকার

ধরুন আপনি বিমানে বসে আছেন৷ একটু পরেই ঢাকার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামবেন৷ পুরো ঢাকাকে চক্কর দিচ্ছে উড়োজাহাজটি৷ নীচে দেখুন ! কি দেখতে পাচ্ছেন? সারি সারি চিমনি...সেই চিমনিগুলো থেকে বের হচ্ছে ধোঁয়া... কালো বা ধূসর রঙের৷

default

এবার চলুন নীচে৷ চলে যান আমিন বাজার৷ ঢাকার গাবতলি ব্রিজ পার হয়ে একটু এগিয়ে যান৷ কিছু কি দেখতে পাচ্ছেন? হ্যাঁ দেখতে পাচ্ছেন কিন্তু সবই আবছা৷ কেন বলুন তো, জানি এই প্রশ্নের উত্তরটি আপনি দিতে পারবেন অনায়াসেই৷ কারণ আপনি জানেন, অগুনতি ইটভাটা থেকে নির্গত ধোঁয়ায় ঘোলা হয়ে উঠেছে আকাশ৷ ভারি হয়ে গেছে বাতাস৷ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকলে আপনার চোখে পানি আসবেই৷

সরকারি আইন আছে৷ কিন্তু অনেক সময়ই এই আইনের তোয়াক্কা করা হচ্ছে না৷ জনবসতির ৩ কিলোমিটারের মধ্যে ইটভাটা নির্মাণ নিষিদ্ধ থাকলেও বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার আশেপাশে গড়ে উঠেছে কয়েক হাজার ইঁটভাটা৷ এসব ইঁটভাটায় পোড়ানো হয় নিম্নমানের কয়লা, টায়ার, প্লাস্টিক ও রাবারের টুকরো৷ আর এ থেকেই নির্গত কালো ধোঁয়া প্রতিনিয়তই দূষিত করছে ঢাকার বাতাস৷ ফলে ঘনবসতিপূর্ণ ঢাকার দেড় কোটি মানুষের স্বাস্থ্য ও পরিবেশ এখন হুমকির মুখে৷

বাংলাদেশে ইঁটভাটার সংখ্যা কত? খোঁজ নিয়ে জানা গেলো এই সংখ্যা ২০ হাজারের মতো৷ রাজধানী ঢাকা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকাতেই রয়েছে প্রায় ৪ হাজার ইঁটের ভাটা৷ আকারভেদে ৩ থেকে ৬ একরের প্রতিটি ইঁটভাটার দখলে রয়েছে সারাদেশের প্রায় ১ লাখ একর জমি৷ প্রতিটি ভাটায় মৌসুমে গড়ে ৪শ থেকে ১২শ মেট্রিক টন কয়লা ও ২শ থেকে ৪ হাজার মন কাঠ জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত হয় বলেই দাবি পরিবেশবাদী সংগঠনগুলোর৷ এছাড়া আগুনের তাপমাত্রা বাড়াতে ও তা দীর্ঘ সময় স্থায়ী করতে অনেকেই নিম্নমানের কয়লার পাশাপাশি শত শত মন নিষিদ্ধ টায়ার, প্লাস্টিক ও রাবার পোড়ানো হচ্ছে বলেও জানা যায়৷ আর এ সবের ফলেই পরিবেশ হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত৷

এই পরিস্থিতির অবসান হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন পরিবেশবাদীরা৷ আর তাই পরিবেশ বান্ধব ইঁট প্রযুক্তির জন্য এগিয়ে এসেছে ইউএনডিপি৷ আগামী পাঁচ বছরের জন্য দেশের ১৫০ বছরের ইঁট প্রস্তুত এবং পোড়ানোর সনাতন প্রযুক্তিতে আমূল পরিবতর্ন আনতে চালু করা হয়েছে নতুন এক প্রকল্প৷ পরিবেশবান্ধব ইঁটভাটা নির্মাণে বাংলাদেশ সরকারকে ১শ ৭৫ কোটি টাকা ঋণ দেয়া হবে৷ এর মাধ্যমে গড়ে তোলা হবে ধোঁয়া বিহীন ইঁটভাটা৷ তৈরি হবে পরিবেশবান্ধব ইঁট৷ এই প্রকল্পের আওতায় ৫ বছরে এই টাকা দেয়া হবে৷ জ্বালানি সাশ্রয়ী এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণ কমে আসবে বলে বিশ্বাস সংশ্লিষ্টদের৷

প্রতিবেদক: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়