1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

পথের দাবীর কাছে হার মানলেন বেন আলি

বেকারত্ব, নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি থেকে শুরু করে টিউনিশিয়ায় বিক্ষোভ যে এ’রকম ব্যাপক চেহারা নেবে, তা বোধহয় ক্ষমতাসীনরা কল্পনা করতে পারেননি৷ এখন সেই চাপের সামনে কিছু নতিস্বীকারও করতে হচ্ছে তাদের৷

default

পথের দাবী

টিউনিশিয়ার প্রেসিডেন্ট জিনে আল-আবিদিন বেন আলি ২৩ বছর ধরে ঐ পদে কায়েম আছেন৷ আজ তাঁর বয়স ৭৪৷ বৃহস্পতিবার তাঁকে নিজেই বলতে শোনা গেল, তিনি ২০১৪ সালের পর আর প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হবেন না৷ ফলে রাজধানী টিউনিসের পথে পথে আনন্দোল্লাস! বস্তুত বেন আলি টিউনিশিয়ার মাত্র দ্বিতীয় প্রেসিডেন্ট, তা'তেই দেশটির কায়েমি ভোগপ্রথা প্রমাণ হয়৷ এবং জনতার ক্ষোভ ঠিক সেখানেই৷

রাগ নেই?

একদিকে সমাজের এক ক্ষুদ্র অংশের হাতে বিপুল সম্পদ, অন্যদিকে বেকারত্ব এবং সেই সঙ্গে খণ্ডিত নাগরিক অধিকার৷ বেন আলি যে একটি ষষ্ঠ কর্মকালের প্রচেষ্টা করবেন না, সেটাই জনতার কাছে একটা জয়৷ কাজেই টিউনিসের যে লাফায়েত এলাকায় মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগেও পুলিশ বিক্ষোভকারীদের দিকে গুলি চালিয়েছে, কারফিউ উপেক্ষা করে ঠিক সেখানেই উল্লসিত জনতার ভিড় দেখা যায়৷ তাদের কিন্তু বেন আলির উপর রাগ নেই৷ ‘ধন্যবাদ, বেন আলি', ‘বেঁচে থাকুন বেন আলি', এই তাদের বক্তব্য৷ বেন আলি যেন তাদেরই মনের কথা বলেছেন৷ এবং সত্যিই তো, টেলিভিশনে বেন আলির বক্তৃতার কিছু পরেই ইউটিউব সহ ইন্টারনেটের যে সাইটগুলো সপ্তাহের পর সপ্তাহ ব্লক করা ছিল, সেগুলো আবার উন্মুক্ত হয়ে যায়৷

নিরুপায় বেন আলি

বেন আলির এই পদক্ষেপ কিন্তু আর কোনো উপায় না দেখে৷ আন্তর্জাতিক দিক থেকেও তাঁর উপর চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছিল, যেমন টিউনিশিয়ার প্রাক্তন ঔপনিবেশিক শক্তি ফ্রান্স৷ যে সব আরব দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি টিউনিশিয়ার অনুরূপ, তারাও এখন বিনা মন্তব্যে ঘটনাবলীর বিকাশধারা পর্যবেক্ষণ করছে৷ বেন আলি যে তাঁর বক্তৃতায় খাঁটি আর্বি না ব্যবহার করে, এই প্রথম স্থানীয় ভাষায় কথা বলেছেন, সেটাও নিশ্চয় তাদের নজর এড়ায়নি৷

টিউনিশিয়ায় বিক্ষুব্ধ জনতা এবং তাদের বিদায়ী প্রেসিডেন্টের পক্ষে একা গণতান্ত্রিক বিপ্লব আনা সম্ভব হবে কিনা, বলা শক্ত৷ বেন আলি নিরাপত্তা বাহিনীর প্রতি বেসামরিক নাগরিকদের উপর গুলি চালানো বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন, সংবাদপত্রের স্বাধীনতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন৷ এমনকি বিরোধীপক্ষে তাঁর সবচেয়ে সোচ্চার সমালোচক নাজিব চেবি'ও বলেছেন যে, বেন আলি ঠিক কাজই করেছেন৷ সেই সঙ্গে তিনি একটি সর্বজোটের সরকারও দাবী করেছেন৷ বিক্ষোভ ছেড়ে রাজনীতির মারপ্যাঁচ সবে শুরু হতে চলেছে৷ কাজেই টিউনিশিয়ার মানুষদের এখনও অনেক ধৈর্য্য ধরতে হবে৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার