1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

নয় বছরের মেয়ের কংকালের কাছে এক ‘খুনির' ডিএনএ

পনের বছর আগে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে হারিয়ে গিয়েছিল জার্মানির নয় বছরের মেয়ে পেগি কে.৷ গত জুলাইয়ে তার কংকাল পাওয়া যায়৷ এবার সেখানে পাওয়া গেল নব্য-নাৎসি ভাবধারায় উদ্বুদ্ধ এক ব্যক্তির ডিএনএ৷

ঐ ব্যক্তির নাম উভে ব্যোনহার্ডট৷ তিনি ও তাঁর দুই সঙ্গী - উভে মুন্ডলোস ও বেয়াটে শ্যাপে- ২০০০ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত অন্তত ১০ জনকে হত্যা করেন বলে অভিযোগ রয়েছে৷ নিহতদের মধ্যে আটজন তুর্কি বংশোদ্ভূত৷ ধারাবাহিক এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা জানা যায় ২০১১ সালে, যখন পুলিশ তাঁদের ধরতে এক বাড়িতে অভিযান চালায়৷ পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ব্যোনহার্ডট ও মুন্ডলোস আত্মহত্যা করেন৷ পুলিশ শ্যাপেকে গ্রেপ্তার করেছে৷ তার বিচার চলছে৷ একে একে এতজনকে হত্যার ঘটনা সেই সময় জার্মানিতে বেশ আলোড়ন তুলেছিল৷ চরম ডানপন্থিদের ক্ষমতাকে যথেষ্ট গুরুত্ব না দেয়ায় জার্মান সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীর সমালোচনা হয়েছিল৷

উল্লেখ্য, পেগির বাড়ি ছিল বাভারিয়া রাজ্যের লিশ্টেনব্যার্গ এলাকায়৷ ২০০১ সালের মে মাসে স্কুল থেকে সে আর বাড়ি ফিরতে পারেনি৷ কংকাল পাওয়া যায় তার বাড়ি থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে টুরিঙ্গিয়া রাজ্যের একটি বনে৷ ব্যোনহার্ডট যেখানে আত্মহত্যা করেন সেই আইজেনাখ শহরটি ঐ বন থেকে প্রায় দেড়শো কিলোমিটার দূরে অবস্থিত৷ পেগির কংকালের কাছে ব্যোনহার্ডটের ডিএনএ কীভাবে এলো, পুলিশ এখন তা তদন্ত করে দেখছে৷

পেগির মায়ের আইনজীবী এ ব্যাপারে এখনও কোনো মন্তব্য করেননি৷

জেডএইচ/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়