1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

নোবেল জয়ী জিয়াওবোর মুক্তি চাইলেন ওবামা

শান্তিতে নোবেল জয়ী লিউ জিয়াওবোকে অভিনন্দন জানিয়েছে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওবামা জিয়াওবোকে দ্রুত মুক্তি দিতে চীনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন৷ ইইউ আশা করছে, জিয়াওবো এই পুরস্কার সশরীরে গ্রহণের সুযোগ পাবেন৷

default

জিয়াওবোর নোবেল জয়ের পর চীনের ভিন্নমতাবলম্বীদের উচ্ছ্বাস

মার্কিন প্রতিক্রিয়া

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা নোবেল জয়ী লিউ জিয়াওবোর দ্রুত মুক্তির আহ্বান জানিয়েছেন৷ বর্তমানে চীনে কারাভোগ করছেন শান্তিতে নোবেল জয়ী এই মানবাধিকার কর্মী৷ এক বিবৃতিতে ওবামা জানান, গত বছর আমি আমার চেয়ে অনেক বেশি ত্যাগ স্বীকারকারীকে নোবেল জয়ের তালিকায় দেখেছিলাম৷ এবছর সেখানে যোগ হয়েছেন লিউ, যিনি কিনা নিজ বিশ্বাসের কারণে নিজের স্বাধীনতাকে বিসর্জন দিয়েছেন৷ ওবামা জানান, গত ৩০ বছরে অর্থনৈতিক খাতে চীন নাটকীয় সংস্কার করেছে৷ সেদেশের কোটি কোটি মানুষকে দারিদ্রতা থেকে তুলে এনেছে৷ কিন্তু রাজনৈতিক খাতে চীনের সংস্কার তেমন একটা হয়নি৷ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টনও জিয়াওবোর নোবেল জয়কে স্বাগত জানিয়েছেন৷

Norwegen China Friedensnobelpreis 2010 an Liu Xiaobo Flash-Galerie

২০০৪ সালে জিয়াওবো

ইইউ’র প্রতিক্রিয়া

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান ক্যাথরিন অ্যাশটন আশা করছেন, জিয়াওবো সশরীরে নোবেল পুরস্কার গ্রহণের সুযোগ পাবেন৷ তিনি বলেন, চীনে গণতান্ত্রিক এবং মানবাধিকার ভিত্তিক রাজনৈতিক সংস্কারের দাবিতে জিয়াওবোর অগ্রণী ভূমিকার স্বীকৃতি দিয়েছে নোবেল কমিটি৷ বলাবাহুল্য, ১০ই ডিসেম্বর অসলোতে জিয়াওবোকে নোবেল পুরস্কার দেয়ার কথা রয়েছে৷ কিন্তু সেখানে তিনি আদৌ হাজির হতে পারবেন কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দিহান খোদ নোবেল কমিটি৷

আনন্দিত লোসা

এবছর সাহিত্যে নোবেল জয়ী পেরুর লেখক মারিও ভার্গাস লোসা জিয়াওবোর নোবেল জয়কে স্বাগত জানিয়েছেন৷ এই পুরস্কারের মাধ্যমে চীনের সকল ভিন্নমতাবলম্বীকে শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে বল মত ভার্গাস লোসার৷

চীন-নরওয়ে সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাব

লিউ জিয়াওবোকে নোবেল পুরস্কারে ভূষিত করায় নরওয়েকে সরাসরি হুমকি দিয়েছে চীন৷ বেইজিংয়ে নিযুক্ত নরওয়ের রাষ্ট্রদূতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করেছে চীন৷ অন্যদিকে অসলোতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত নরওয়ে সরকারের কাছে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদলিপি হস্তান্তর করেছে৷ তবে, নরওয়ে সরকার জানিয়েছে, নোবেল কমিটির উপর সেদেশের সরকারের কোন নিয়ন্ত্রণ নেই৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: ফাহমিদা সুলতানা

নির্বাচিত প্রতিবেদন