1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

নেলসন মান্ডেলা স্বয়ং এলেন সমাপ্তি অনুষ্ঠানে

দক্ষিণ আফ্রিকার সমস্ত আবেগ-অনুভূতি এবং গর্বের প্রতীক হয়ে জোহানেসবার্গের সকার সিটি স্টেডিয়ামে এলেন প্রাণপুরুষ নেলসন মান্ডেলা৷ অপরদিকে তারুণ্যের প্রতীক হয়ে ছিল চটুলপদ শাকিরা৷

default

সস্ত্রীক নেলসন মান্ডেলা

নেদারল্যান্ডস-স্পেন ফাইনালের কল্যাণে কমলা এলং লাল রঙে সেজেছিল ৮৮,০০০ দর্শকের ক্রীড়াঙ্গণ৷ সেখানেই একটি গল্ফ কার্টে চড়ে সস্ত্রীক দর্শন দিলেন ৯১ বছরের নেলসন মান্ডেলা৷ তাঁর উপস্থিতিতে ধন্য হল এই বিশ্বকাপ৷

মান্ডেলার পরণে ছিল শীতের কালো কোট, মাথায় লোমশ কালো টুপি, হাতে কালো দস্তানা৷ সে তুলনায় শাকিরার পরেছিলেন একটি ঘাসের স্কার্ট এবং পুঁতি দেওয়া হল্টার টপ৷ গাইলেন তাঁর ওয়াকা ওয়াকা গানটি৷ সঙ্গে ছিল এ্যাফ্রোপপ ব্যান্ড ফ্রেশলিগ্রাউন্ড৷ পরে গ্রামি বিজয়ী আ কাপেলা - অর্থাৎ খালি গলার - আফ্রিকান গায়ক গোষ্ঠী লেডিস্মিথ ব্ল্যাক মামবাজো গাইল ‘‘রেইন, রেইন, বিউটিফুল রেইন'' বা ‘বৃষ্টি, বৃষ্টি, সুন্দর বৃষ্টি' গানটি৷

Flash-Galerie Shakira Eröffnungskonzert Südafrika Fußball Weltmeisterschaft 2010

তারুণ্যের প্রতীক হয়ে ছিল চটুলপদ শাকিরা

বৃষ্টির গানের সঙ্গে সঙ্গে ১৩টি মানুষের বওয়া কাল্পনিক হাতি মাঠ পার হয়ে একটি জল খাওয়ার জায়গার ভিডিও প্রোজেকশনে গিয়ে জল খেল৷

বলতে কি, সকার সিটির চেহারাটাই হল আফ্রিকার একটি রান্নার হাঁড়ির মতো৷ যেমন শনিবার পোর্ট এলিজাবেথের যে স্টেডিয়ামে জার্মান দল উরুগুয়েকে হারিয়ে তৃতীয় স্থান অধিকার করে, তার চেহারা হল সূর্যমুখী ফুলের মতো৷

আফ্রিকায় বোধহয় সব কিছুই শেষমেষ জীবনের প্রতীক হয়ে যায়৷ এই সদ্য-সমাপ্ত ফুটবল বিশ্বকাপও৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: আরাফাতুল ইসলাম