1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

নেপালের যৌনদাসীদের উদ্ধারের কাজে ডেমি মুর

‘গোস্ট' ও ‘স্ট্রিপটিজ'এর মত ছবির নায়িকা ডেমি মুর এখন নেপালে প্রত্যন্ত এলাকায় কিশোরী ও নারীদের উদ্ধারের কাজে সক্রিয় হয়ে উঠেছেন৷

default

স্বামী অ্যাশটন কাচারের সঙ্গে ডেমি মুর

আজকের এই মিডিয়া-সর্বস্ব যুগে কোনো খবরই বেশিদিন সংবাদ শিরোনামে থাকতে পারে না৷ তলিয়ে যায় বাকি সংবাদের ভিড়ে৷ যেমন আধুনিক যুগের ক্রীতদাস প্রথা৷ এমনই এক ঘৃণ্য প্রবণতা সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে সাহায্য করছে সিএনএন টেলিভিশন নেটওয়ার্ক৷ ‘ফ্রিডম প্রজেক্ট' নামের এক প্রকল্পের সাহায্যে অসাধারণ এক উদ্যোগের কাহিনী তুলে ধরা হচ্ছে৷ নেপালে যেসব কিশোরী ও যুবতীদের যৌনদাসী হিসেবে পাচার করা হয়, তাদের উদ্ধার করে পুনর্বাসনের চেষ্টা করছে ‘মাইতি নেপাল' নামের এক সংগঠন৷ তাদের সম্পর্কে একটি তথ্যচিত্র তৈরি করছেন হলিউড তারকা ডেমি মুর৷ নেপালের এক টেলিভিশন কেন্দ্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‘আমি বিখ্যাত তারকা হিসেবে এখানে আসি নি৷ সাধারণ মানুষ হিসেবে অন্য মানুষের দুঃখ-কষ্ট নিয়ে চিন্তিত আমি৷ আমি অ্যামেরিকান, আপনি নেপালি হতে পারেন – কিন্তু আমাদের কষ্ট একই৷''

Frauenhandel in Indien

ভারত-নেপাল সীমান্ত নারী পাচারের এক বড় কেন্দ্র হয়ে উঠেছে

শুধু তথ্যচিত্র তৈরি নয়, ডেমি মুর সরাসরি নারীদের উদ্ধারকার্যেও জড়িয়ে পড়েছেন৷ ভারত-নেপাল সীমান্তে প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে কাজ করছেন তিনি৷ তবে নেপালের এই অসহায় নারীদের সাহায্যের তাগিদ ডেমি মুরের জন্য কোনো কাকতালীয় ঘটনা নয়৷ স্বামী অ্যাশটন কাচার ও নিজের যৌথ ফাউন্ডেশন আগে থেকেই এমন কাজ করে চলেছে৷ শিশুদের যৌনকর্মী হিসেবে কাজে লাগানোর প্রবণতা বন্ধ করতে তাদের এই অভিযানের শিরোনাম ‘রিয়েল মেন ডোন্ট বাই গার্লস' – অর্থাৎ আসল মরদ কখনো পয়সার বিনিময় নারীসঙ্গ চাইতে পারে না৷

প্রতিবেদন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

ইন্টারনেট লিংক