1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

নিষ্ক্রিয় গ্যাস জেনন, একই মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ

শীতকালীন অলিম্পিক শেষ হয়েছে৷ কিন্তু রাশিয়ার খেলোয়াড়দের ঘিরে ডোপিং কেলেঙ্কারির রেশ কাটেনি৷ ধারণা করা হচ্ছে যে, তাঁরা নিষ্ক্রিয় গ্যাস জেননের সাহায্যে খেলার দক্ষতা বাড়িয়েছেন৷ এটা কি ডোপিং? নিষ্ক্রিয় গ্যাস জিনিসটাই বা কী?

David Wise

ফাইল ফটো

প্রতিটি মানুষ নিঃশ্বাসের সঙ্গে অল্প পরিমাণে নিষ্ক্রিয় গ্যাস জেনন গ্রহণ করে৷ এটি বাতাসের একটি উপাদান এবং বিষাক্ত নয়৷ নির্ভর করে এর পরিমাণের ওপর৷ এই গ্যাস অনেক দিন ধরে প্রচুর পরিমাণে শরীরে ঢুকলে তার প্রতিক্রিয়া হয়৷ এটি শরীরের এরিথ্রোপয়টিন বা ইপিও হরমোনে প্রভাব বিস্তার করে, যা রক্তের লোহিত কণিকা চাঙা করতে সাহায্য করে৷ লোহিতকণিকা রক্তে অক্সিজেন সরবরাহের দায়িত্বরত৷ ‘‘শরীরে লোহিত কণিকা বৃদ্ধি পেলে অক্সিজেনের মজুদও বাড়ে৷ এর অর্থ দীর্ঘস্থায়ী চালিকা শক্তি পাওয়া'', বলেন ক্রিড়া চিকিৎসক উডো মার্টিন৷ বিভিন্ন ধরনের খেলাধুলায় এর একটা বড় ভূমিকা রয়েছে৷

কিছু খেলায় দক্ষতা বৃদ্ধি করতে পারে

শীতকালীন অলিম্পিকে ‘ক্রস-কান্ট্রি স্কিং', ‘বায়েথলন', ‘স্পিড স্কেটিং' ইত্যাদি খেলায় দক্ষতা বৃদ্ধি করতে পারে জেনন৷ উঁচু স্থানে ট্রেনিং নিলেও জেননের মতো প্রভাব লক্ষ্য করা যায়৷

খেলোয়াড়রা ২০০০ মিটারের ওপরে ট্রেনিং নিলে এই রকমটি ঘটে থাকে৷ সেখানে অক্সিজেনের পরিমাণ কম বলে শরীরে এর প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়৷ প্রচুর পরিমাণে ইপিও হরমোন উৎপাদন করে শরীর৷ এটা একেবারে স্বাভাবিক, বলেন ড. মার্টিন৷ তাঁর কথায়, ‘‘লোহিত কণিকাকে চাঙা করে এমন কিছু যদি আমি নিঃশ্বাসের সাথে গ্রহণ করি, তাহলে তা ডোপিং হতে পারে না৷ তবে এটাও পরিষ্কার যে জেনন ব্যবহার দক্ষতা বাড়ানোর এক পদক্ষেপ৷ একে ওষুধ হিসাবে দেখলে ডোপিংও বলা যেতে পারে৷''

জেননকে ডোপিং-এর আওতায় ফেলা যায় কিনা এ নিয়ে মতভেদ রয়েছে৷ জাতীয় ডোপিং এজেন্সির এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, মনে করেন ড. মার্টিন৷

চিকিৎসা ক্ষেত্রেও পরিচিত

চিকিৎসা ক্ষেত্রেও জেনন পরিচিত৷ ১৯৫১ সালে অ্যামেরিকান চিকিৎসক স্টুয়ার্ট সি. কুলেন এক অপারেশনের এই নিষ্ক্রিয় গ্যাস প্রথমবারের মতো ব্যবহার করেন৷ এখনও কিছু ক্লিনিকে অ্যানাসথেসিয়ার উপাদান হিসাবে জেনন ব্যবহার করা হয়৷

এর ফলে চেতনানাশক সহজে কাজ করে৷ কেননা এতে অন্যান্য গ্যাসের চেয়ে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কম থাকে৷ অ্যানেসথেসিয়ার ক্ষেত্রে সময় স্বল্প সময়ে বেশি ডোজে জেনন ব্যবহার করা হয়৷ অন্যদিকে স্পোর্টস-এর ক্ষেত্রে অল্প ডোজের জেনন দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার করা হয়৷ সেক্ষেত্রে অক্সিজেন ও জেননের অনুপাত থাকে ৫০-৫০৷

ক্ষতিকর প্রতিক্রিয়া হয় কিনা দেখার বিষয়
এই নিষ্ক্রিয় গ্যাস দীর্ঘদিন গ্রহণ করলে শরীরে ক্ষতিকর প্রতিক্রিয়া হয় কিনা, তা দেখার বিষয়৷ জানান চিকিৎসক উডো মার্টিন৷ বলেন, ‘‘এই মুহূর্তে স্বাস্থ্যহানিকর কোনো প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়নি৷ তবে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বহু নতুন অর্জনের ক্ষেত্রেও এ রকমটি দেখা গিয়েছে৷ যেগুলিকে প্রথমে নিরাপদ মনে হলেও পরে উল্টোটাই প্রমাণিত হয়েছে৷ বোলতার চাকে ঢিল মারা হয়েছে৷ এখন গবেষণাই স্বচ্ছতা আনতে পারবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন