1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ক্রিকেট

নিশ্চিন্তেই এগোচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

দিনের শুরু থেকেই লাগামটা যেন অস্ট্রেলিয়ার হাতে৷ মুশফিকুর রহিমকে লায়ন বিদায় করার পর বাংলাদেশকে ৩০৫ রানে অলআউট করতে বেশি সময় নেয়নি৷ ওপেনার ওয়ার্নার, স্মিথ আর হ্যান্ডসকম্বের ফিফটির সুবাদে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ২ উইকেটে ২২৫৷

প্রথম টেস্টের সেঞ্চুরিয়ান ওয়ার্নার ও হ্যান্ডসকম্বের জুটি বড় স্কোরের সম্ভাবনা জোরালো করেছে৷দিন শেষে ওয়ার্নার ব্যাট করছিলেন ৮৮ রানে আর হ্যান্ডসকম্ব ৬৯ রানে৷ এ জুটিতে এ পর্যন্ত ১২৭ রান পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া৷

এর আগে স্মিথ-ওয়ার্নার মিলে ৯৩ রান তুলে প্রাথমিক ধাক্কাটা সামাল দিয়েছিলেন৷ রেনশ-কে মুশফিকের তালুবন্দি করে সেই ধাক্কাটা দিয়েছিলেন মুস্তাফিজ৷ তবে পরে আর সাকিবের নেতৃত্বে স্পিনাররা প্রত্যাশিত সাফল্য পাননি৷ তাইজুলের বলে স্মিথ বোল্ড হলেও হ্যান্ডসকম্ব উইকেট বাঁচিয়ে রানের গতিও সচল রেখেছেন৷

তাতেই ধীরে ধীরে কমছে ব্যবধান৷ বাংলাদেশের ৩০৫ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ২২৫ করে ফেলায় ম্যাচের লাগাম যে অস্ট্রেলিয়া শক্ত হাতেই ধরছে, তা তো বলা যেতেই পারে৷

তবে ঝটপট দু-তিন উইকেট পড়ে গেলে দৃশ্যপট বদলে যেতেই বা কতক্ষণ!

সকালে বোলাররা ঠিক সেই কাজটাই করেছেন৷ প্রথমে মুশফিকুরকে বিদায় করলেন লায়ন৷ তারপর নাসিরের ৪৫ রানের ইনিংস শুধু স্কোর তিনশ ছাড়াতেই সহায়তা করেছে৷ মাত্র ৪০ রানে শেষ চার উইকেট হারিয়ে ৩০৫ রানে অলআউট হওয়া তাতে রোখা যায়নি৷ ভালো সম্ভাবনা থাকলেও অন্তত সাড়ে তিনশ'র স্কোরও পায়নি বাংলাদেশ৷ ৯৪ রানে ৭ উইকেট নিয়েবাংলাদেশকে এ হতাশায় পোড়ানোতে সবচেয়ে বড় ভূমিকা নাথান লায়নের৷

এসিবি/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়