1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

নিশ্চিন্তেই আদালতের ‘পরীক্ষা' দিয়ে এলেন মেসি

মাথার ওপর ৩৫ লাখ ডলারের বোঝা, সঙ্গে জেলে যাবার আশঙ্কা৷ ভক্তরা ভেবে আকুল৷ অথচ মেসি আগেই বলেছিলেন, ‘‘আমি একটুও চিন্তিত নই৷'' শুক্রবার আদালত থেকে নিশ্চিন্তেই বেরিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই সুপারস্টার৷

শুক্রবার সকালে বরাবরের মতো প্র্যাকটিসের জন্য মাঠে না গিয়ে আদালতে গিয়েছিলেন লিওনেল মেসি৷ বার্সেলোনার অদূরে গাভা অঞ্চলের আদালতে মেসি আর তাঁর বাবার ডাক পড়েছিল৷ আদালতের নির্দেশ মেনে গিয়েও ছিলেন তাঁরা৷ বাপ-ছেলে দু'জনের কাছেই বিচারক জানতে চেয়েছিলেন, ৪১ লাখ ৬০ হাজার ইউরো বা ৩৫ লাখ ইউরোর কর মেসি কেন ফাঁকি দিয়েছিলেন৷ এত বিশাল অঙ্কের করের টাকা যে চারবারের ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার দেননি – এ নিয়ে কোনো বিতর্কের অবকাশ ছিল না৷ অভিযোগ ওঠার পর গত আগস্ট মাসে আসলের সঙ্গে সুদ মিলিয়ে ৫০ লাখ ইউরো জমা দেন মেসি৷ নইলে অনেকের আদর্শ হয়েও ইচ্ছায় বা অনিচ্ছায় অসৎ পথ অবলম্বনের অপরাধে কারাভোগ মোটামুটি নিশ্চিত ছিল তাঁর৷

Barcelona football star Lionel Messi (R) and his brother Rodrigo arrive to the courhouse in the coastal town of Gava near Barcelona on September 27, 2013 to face judges on tax evasion charges. Messi and his father are accused of trying to deceive the Spanish taxman to the tune of four million euros ($5 million, £3.4 million) by ceding the player's image rights to companies based in tax havens such as Belize and Uruguay. AFP PHOTO / JOSEP LAGO (Photo credit should read JOSEP LAGO/AFP/Getty Images)

শুক্রবার আদালত থেকে নিশ্চিন্তেই বেরিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই সুপারস্টার

শুরু থেকেই মেসি অবশ্য ব্যাপারটাকে খুব একটা আমলে নেননি৷ তাঁর আসল কাজ তো ফুটবলটা যত ভালোভাবে সম্ভব খেলে যাওয়া, তারপর বাকি সব৷ এ মৌসুমে সেই কাজটা করছেন আগের মতোই বিস্ময়কর দক্ষতায়৷ মৌসুমে এ পর্যন্ত সাতটি ম্যাচে করেছেন দশ গোল, সেই সুবাদে বার্সেলোনা এখনো অপরাজিত৷

তা মামলায় কি হেরে যাবেন মেসি? করের টাকা সুদসমেত পরিশোধ করার পরও কি জেলে যেতে হবে তাঁকে? সে সম্ভাবনা ক্ষীণ৷ বার্সেলোনার তারকা ফুটবলার মোটামুটি নিশ্চিন্ত৷ শুক্রবার সকাল দশটায় তাঁর বাবাকে জেরা করেছেন বিচারক, তারপর প্রশ্নবাণে জর্জরিত করা হয়েছে তাঁকেও৷ আদালতে হাজিরা দেয়ার আগে মেসি বলেন, ‘‘আমি একটুও চিন্তিত নই৷ আমার বাবার মতো এসব বিষয় আমিও সবসময় ‘সাইডলাইন'-এ রাখি৷ এসব দেখার জন্য তো আইনজীবীরা আছেন, উপদেষ্টারা আছেন৷ তাঁদের ওপর আমাদের আস্থা আছে, তাঁরা নিশ্চয়ই ব্যাপারটি সামলাতে পারবেন৷''

শুক্রবার প্রায় এক ঘণ্টা ধরে বিচারকের নানা প্রশ্নের উত্তর দেয়ার পর আদালত থেকে বেরিয়ে আসেন মেসি৷ বাইরে তখন অনেক সমর্থকের ভিড়৷ তাঁদের উদ্দেশ্যে কিছু না বলেই আদালত এলাকা ছেড়ে যান ২৬ বছর বয়সি ফুটবলার৷ বিচারকের কাছে অনিচ্ছাকৃত ভুলের কথা স্বীকার করেছেন মেসি – তাঁর উকিল শুধু এইটুকুই জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে৷ রায়ে শাস্তি কী হতে পারে তা অবশ্য এখনো জানা যায়নি৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন