1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘নির্বাচন না হলে মৌলবাদের উত্থান হবে’

বাংলাদেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা দেখতে চায় ভারত৷ মৌলবাদ বা জঙ্গিবাদের উত্থান তারা দেখতে চায় না৷ বাংলাদেশ সফররত ভারতের পররাষ্ট্রসচিব সুজাতা সিং বলেছেন নির্বাচনে যত বেশি দল অংশ নেয় ততই ভালো৷

বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে ভারতের এই খোলাখুলি মন্তব্যকে স্বাভাবিক মনে করেন বাংলাদেশ নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদ, জানিপপ-এর প্রধান অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ৷ কারণ তিনি মনে করেন বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ভারতের ওপর সরাসরি প্রভাব ফেলে৷

বুধবার ঢাকা সফরের প্রথম দিনে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব সুজাতা সিং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলীয় নেত্রী, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এবং সংবাদ মাধ্যমের সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠক করেন৷

এরমধ্যে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের সঙ্গে তাঁর বৈঠকটি এখন সবচেয়ে আলোচিত৷ সুজাতা সিং-এর সঙ্গে বৈঠকের পরই এরশাদ সংবাদ মাধ্যমকে তাঁর দলের মন্ত্রীদের নির্বাচনকালীন সরকার থেকে পদত্যাগের নির্দেশের কথা জানান৷ তিনি দাবি করেন সুজাতা সিং তাঁকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার অনুরোধ করেছেন৷ এরশাদের ভাষায় সুজাতা বলেছেন, ‘‘জাতীয় পার্টি নির্বাচনে না গেলে জামায়াত-শিবিরসহ উগ্র সাম্প্রদায়িক মৌলবাদী গোষ্ঠীর উত্থান হবে৷ তারা ক্ষমতায় আসবে৷''

এদিকে বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠকে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব বাংলাদেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার কথা বলেছেন৷ খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা শমসের মবিন চৌধুরী জানান, সুজাতা সিং বলেছেন বাংলাদেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য যা যা করা দরকার, তা করবে ভারত৷ ভারত চায় বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকুক৷

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকেও সুজাতা সিং বাংলাদেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা এবং গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখার কথা বলেছেন৷ বলেছেন নির্বাচনে যত বেশি দল অংশ নেবে ততই ভালো৷ তাঁর দেশ চায় বাংলাদেশের নির্বাচনে অধিক সংখ্যক দল অংশগ্রহণ করুক৷

এদিকে বুধবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘‘সর্বোচ্চ সংখ্যক দলের অংশগ্রহণে বাংলাদেশে নির্বাচন দেখতে চায় ভারত৷ বাংলাদেশের মানুষই ঠিক করবে কারা ক্ষমতায় যাবে, কিভাবে নির্বাচন হবে৷ তবে ভারত চায় বাংলাদেশে স্থিতিশীলতা বজায় থাকুক, অব্যাহত থাকুক গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া৷''

জানিপপ-এর প্রধান অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ ডয়চে ভেলেক জানান, সুজাতা সিং-এর সফরে স্পষ্ট হয়েছে সামনের জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে ভারতের অবস্থান, সেটা বেশ খোলাখুলি বলে মনে করেন ড. কলিমুল্লাহ৷ তিনি বলেন ভারত বাংলাদেশে একটি নির্বাচন চায়, চায় ধারাবাহিকতা৷ আর অবস্থানগত কারণেই ভারত বাংলাদেশে মৌলবাদের উত্থানকে নিরুৎসাহিত করবে, চাইবে মৌলবাদ বা উগ্রবাদের উত্থান যাতে বাংলাদেশে না ঘটে৷ এটা হলে ভারতের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ঝুঁকির মুখে পড়বে৷

কলিমুল্লাহ বলেন ভারতকে বাংলাদেশের অন্য প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সঙ্গে তুলনা করলে চলবে না৷ কারণ ভারত মনে করে বাংলাদেশের সঙ্গে তার সম্পর্ক আত্মীয়ের৷ আর বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্কের ঐতিহাসিক দিক রয়েছে৷ তাই ভারত বাংলাদেশ নিয়ে একটু খোলাখুলি কথাই বলছে৷

নির্বাচন যথাসময়ে হবে

বুধবার রাতে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের বৈঠক শেষে জানানো হয়েছে ৫ জানুয়ারি নির্বাচন হবে৷ কোনো কারণে নির্বাচনের তারিখ পেছানো মানবে না তারা৷ আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই নির্বাচনকালীন সরকারের প্রধান থাকবেন৷

এদিকে রাতেই জাতীয় পার্টির মুখপাত্র রহুল আমিন হাওলাদার জানিয়েছেন সর্বদলীয় সরকার থেকে জাতীয় পার্টির মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী এবং উপদেষ্টারা বৃহস্পতিবারই পদত্যাগ করবেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়