1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

নিরাপত্তা সবচেয়ে জরুরি

বেলজিয়াম সন্ত্রাস রোধ করেছে, ফ্রান্সে যা সম্ভব হয়নি৷ কিন্তু বিপদটা বাস্তব, তাই তদন্তকারীদের প্রয়োজন সঠিক হাতিয়ারের৷ ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষার গুরুত্ব এখন কম, তা যতোই দুঃখজনক হোক না কেন, বলেছেন ব্যার্ন্ড রিগার্ট৷

ভের্ভিয়ের এবং ব্রাসেলসে ব্যাপক অভিযান চালিয়ে বেলজিয়ামের পুলিশ একটি সন্ত্রাসবাদী সেল-এর পরিকল্পিত আক্রমণ রোধ করতে পেরেছে৷ বেলজিয়াম একটু ঢিলেঢালা দেশ, তার প্রশাসনিক কাঠামো এতোই দুরূহ যে, একটু-আধটু বিশৃঙ্খলা কারো গায়ে লাগে না৷ কিন্তু বাস্তবিক বিপদ দেখা দিলে সে দেশেও পুলিশ ও গোয়েন্দা বিভাগ ঠিকই তাদের কর্তব্য করে: দেশের নাগরিকদের সুরক্ষার ব্যবস্থা নেয়৷

অথচ পরিস্থিতি চিরকাল এ রকম ছিল না৷ গত মে মাসে ব্রাসেলসের ইহুদি সংগ্রহশালায় প্রাণঘাতী আক্রমণের পর বেলজিয়ামের পুলিশ ও গোয়েন্দাদের চোখ খুলেছে৷ নতুন আদর্শ হল প্রতিরোধমূলক হস্তক্ষেপ৷ গত সেপ্টেম্বর মাসেই বেলজিয়ামের পুলিশ ব্রাসেলসে ইইউ কমিশনের উপর একটি পরিকল্পিত আক্রমণ ঠিক সময়ে আবিষ্কার ও নিষ্ফল করতে সমর্থ হয়৷

Pegida Demonstration in Dresden Archiv 12.01.2015

ড্রেসডেনে ১২ই জানুয়ারির শেষ পেগিডা ব়্যালি

নজরদারির প্রয়োজন

বেলজিয়ান পুলিশ কীভাবে সম্ভাব্য আততায়ীদের খোঁজ পেয়েছে, তদন্তের খাতিরে স্বভাবতই সেটা জানানো হয়নি৷ তবে সন্ত্রাসীরা পরস্পরের সঙ্গে সেলফোনে যে কথাবার্তা বলেছে, তার উপর আড়ি পাতা একটা ভূমিকা রেখেছে বৈকি৷ সন্ত্রাসীরা স্মার্টফোন মারফৎ এবং ইন্টারনেটে কোড-এর মাধ্যমে যোগাযোগ রাখলে, পুলিশকে উন্নততর আড়ি পাতার প্রযুক্তি এবং ডি-কোড করার প্রযুক্তি নিয়ে মাঠে নামতে হবে৷ আগে অপরাধ প্রতিরোধ, পরে ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা নিয়ে চিন্তাভাবনা৷

স্বদেশে প্রত্যাবর্তনকারী জিহাদিরা একটি বাস্তবিক বিপদ, সে বিপদ অতি নিকটের এবং তার ফলশ্রুতি ভয়ঙ্কর হতে পারে – প্যারিসের হত্যাকাণ্ডে যা দেখা গেছে৷ সেই কারণেই আজ নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষকে তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য ও সরঞ্জাম দিতে কারোর আপত্তি থাকার কথা নয়৷ বিমানযাত্রী সংক্রান্ত তথ্যও সেই পর্যায়ে পড়ে, যদি ইউরোপীয় ইউনিয়নে আজও সেই তথ্য কেন্দ্রীয়ভাবে সংগ্রহ বা বিশ্লেষণ করা হয় না৷

Deutsche Welle Hintergrund Deutschland Bernd Riegert

ব্যার্ন্ড রিগার্ট

সুযোগের সদ্ব্যবহার

সম্ভাব্য সন্ত্রাসীরা যে এই সব পদক্ষেপের ফলে বিদেশযাত্রা পুরোপুরি বন্ধ করে দেবে, এমন নয়৷ তবে ইউরোপের তরুণরা যাতে জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবিরে যেতে না পারে, তার কিছুটা ব্যবস্থা হবে বৈকি৷ এছাড়া ফ্রান্স, জার্মানি ও অপরাপর দেশের নিরাপত্তা বিভাগে আরো বেশি কর্মী নিয়োগের প্রয়োজন, যাতে বিপজ্জনক এবং সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের উপর ২৪ ঘণ্টা নজর রাখা যায়৷ কারাগারে ইসলামপন্থিদের আলাদা রাখার আরো ভালো ব্যবস্থা চাই, যাতে তারা অন্যান্যদের জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ না করতে পারে৷

এক্ষেত্রে মার্কিন এনএসএ বা জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থা সম্পর্কেও কিছু বলা দরকার৷ তাদের বহু সমালোচিত অতি-নজরদারির কারণেই হয়তো মার্কিনিরা বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসী মহল সম্পর্কে নানা গুরুত্বপূর্ণ খবরাখবর রাখে, যা ইউরোপীয় গুপ্তচর বিভাগগুলিরও কাজে আসে৷ জার্মান গুপ্তচর বিভাগের এক কর্মী নাকি একবার বলেছিলেন: ‘মার্কিনিরা ছাড়া আমরা মধ্যপ্রাচ্য সম্পর্কে কালা এবং কানা৷' তথ্য সুরক্ষা এবং ব্যক্তিগত জীবনের অধিকার গুরুত্বপূর্ণ বৈকি৷ কিন্তু সকলকে সন্ত্রাস থেকে বাঁচানোর জন্য সেই অধিকার কিছুটা সীমিত করতে হবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন