1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী আসনে জার্মানি, ভারত

দুই বছরের জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য হয়েছে জার্মানি৷ এই আসনটি স্থায়ী না হলেও গুরুত্বপূর্ণ বলে মত বিশেষজ্ঞদের৷ নির্বাচনের মাধ্যমে জার্মানি ছাড়াও পর্তুগাল, দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত ও কলম্বিয়া অস্থায়ী আসন পেয়েছে৷

default

জাতিসংঘের অধিবেশনে গিডো ভেস্টারভেলে

জার্মানির প্রতিক্রিয়া

জার্মানির এই প্রাপ্তিতে সন্তুষ্ট পররাষ্ট্রমন্ত্রী গিডো ভেস্টারভেলে৷ বর্তমানে নিউ ইয়র্ক সফররত ভেস্টারভেলে জানান, এই অর্জন জার্মানির ওপর বিশ্বের আস্থারই প্রতিফলন৷ তিনি বলেন, নিরাপত্তা পরিষদে আসন লাভ করলে দায়িত্ব বেড়ে যায়, একইসঙ্গে বিশ্ব শান্তি, নিরাপত্তা এবং উন্নয়নে অনেক বেশি অংশগ্রহণের সুযোগও সৃষ্টি হয়৷

সহজেই উতরালো জার্মানি

পশ্চিমা দেশগুলোর জন্য বেঁধে দেয়া দুটি উম্মুক্ত আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জার্মানি, পতুর্গাল এবং ক্যানাডা৷ ১৯২ জাতির জাতিসংঘে জার্মানির পক্ষে ভোট পড়ে ১২৮টি৷ ফলে নির্বাচনের প্রথম রাউন্ডেই দুই বছরের আসন নিশ্চিত করে এই দেশ৷ অন্যদিকে, ভোটাভুটির দ্বিতীয় রাউন্ডে ক্যানাডাকে পেছনে ফলে পর্তুগাল৷ ফলে পশ্চিমা দেশগুলোর এই দুই প্রতিনিধি আগামী দু’বছরের জন্য নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য নির্বাচিত হয়৷

অস্থায়ী আসনে ভারত

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের কাঠামো সম্পর্কে একটুখানি বলা যাক এখানে৷ মোট ১৫টি আসন রয়েছে নিরাপত্তা পরিষদে৷ এরমধ্যে পাঁচটি স্থায়ী এবং ১০টি অস্থায়ী আসন৷ অস্থায়ী আসনে প্রতিবছর নির্বাচনের মাধ্যমে পাঁচটি দেশকে দু’বছর মেয়াদে সদস্য করা হয়৷ এবছর জার্মানি এবং পর্তুগাল ছাড়াও অস্থায়ী আসনে নির্বাচিত হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত এবং কলম্বিয়া৷ এদের মধ্যে ভারতের পক্ষে ভোট পড়ে সবেচেয়ে বেশি, ১৮৭টি৷

স্থায়ী আসনের লড়াই

গণমাধ্যমের মতে, এই প্রাপ্তি স্থায়ী সদস্য হবার পথে জার্মানিকে আরো এগিয়ে নেবে৷ তাছাড়া জাতিসংঘের পরিকাঠামোগত যে সংস্কারের দাবি উঠেছে, সেখানে নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যসংখ্যা বাড়ানোর কথাও রয়েছে৷ ফলে স্থায়ী সদস্য হবার চেষ্টা অব্যাহত রাখছে জার্মানি৷ তবে আরো তিন দেশ রয়েছে প্রতিযোগিতায়৷ এরা হচ্ছে ভারত, ব্রাজিল এবং জাপান৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার

সংশ্লিষ্ট বিষয়