1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

নিজ ঐতিহ্য রক্ষায় লড়ছে বাগদাদ

বাগদাদ হাজার বছরের ঐতিহ্যের স্বাক্ষী ক্ষতিগ্রস্ত সংস্থাপনাগুলো রক্ষা করতে লড়ছে৷ কারণ, এর মালিকরা ঐ স্থাপনাগুলো ভেঙ্গে সেখানে নতুন স্থাপনা তৈরি করছেন৷

default

বাগদাদের একটি দালান

বাগদাদ পঞ্চাশ থেকে দু'শ বছরের পুরানো ১৬০০ টি স্থাপনাকে তার ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে চিহ্নিত করেছে৷ এগুলোর মধ্যে রয়েছে - মসজিদ, চার্চ, খান ও বণিকদের প্রাসাদ অঙ্গন, গণ স্নানাগার, প্রাসাদ, ওটোম্যানের ও ইরাকের রাজতন্ত্রের সময়কার ঐতিহাসিক বাড়ি প্রভৃতি৷ স্থাপনাগুলোর বেশিরভাগই অব্যবস্থাপনা, দুর্নীতি, যুদ্ধ, নিম্নমানের পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা এবং বন্যার কারণে ক্ষতির শিকার হয়েছে৷

যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত ইরাক তার এই ঐতিহ্যময় স্থাপনাগুলো টিকিয়ে রাখতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে৷ ২০০৩ সালে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর সৃষ্ট পরিস্থিতির সুযোগ নেয় অনেকেই এবং তাদের বাড়িগুলো ভেঙ্গে ফেলেন৷ কারণ তখন ২০০২ সালের পাশকৃত আইন কার্যকর ছিল না৷

ঐ আইন অনুযায়ী চিহ্নিত ১৬০০ স্থাপনার মালিকরা যদি তা ভাঙ্গতে বা কোন প্রকার ক্ষতিসাধন বা কোন প্রকারের বেআইনী কাজ করেন তাহলে তাদের দশ বছরের কারাদন্ড দেয়ার বিধান রয়েছে৷ আর যদি কেউ স্থাপনাগুলোর

Firdoos squa, Iraq heute, Baghdad

বাগদাদের ঐতিহ্য রক্ষায় প্রচুর অর্থের প্রয়োজন

কাঠামো বা আসল রূপের কোন প্রকার পরিবর্তন করেন তাহলে আইনে তাকে সাত বছরের কারাদন্ড দেয়ার কথা উল্লেখ রয়েছে৷

ইরাকের ঐতিহ্য বিভাগের পরিচালক ফউজিয়া আল-মালিকি বাগদাদের এই স্থাপনাগুলো টিকেয়ে রাখতে উদ্যোগ নিয়েছেন৷ আর এই কারণে মৃত্যুর হুমকি সহ বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন তিনি৷ তিনি বলেন, কীফা, আল-রশিদ, আদামিয়া ও হাইফা সড়কের সংস্থাপনাগুলোর বেশিরভাগই ২০০৩ সালে সুযোগ সন্ধানী মানুষের শিকারে পরিণত হয়েছে৷

স্থাপনাগুলোর মালিকেরা বলছেন, তাদের বাড়িগুলো টিকিয়ে রাখতে সংস্কার প্রয়োজন৷ আর সে জন্য প্রয়োজন অর্থের৷ তারা চাইছেন তাদের বাড়িগুলো হয় ঐতিহ্য বিভাগের কিনে নেয়া উচিৎ না হয় তাদেরকে অর্থ সহায়তা দেয়া উচিত যাতে তারা সংস্কার করতে বা ধ্বংস করে নতুন কিছু করতে পারে৷

প্রতিবেদক: আসফারা হক

সম্পাদনা: আবদুস সাত্তার

সংশ্লিষ্ট বিষয়