1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

নিজের শেষ বিশ্বকাপেও জয় চান পন্টিং

বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান রিকি পন্টিং৷ পরপর দুইটি বিশ্বকাপ জয়ী দলের নেতৃত্ব দেওয়া এই ব্যাটসম্যান তাঁর দেশের ইতিহাসে সেরাদের তালিকায় নাম লিখিয়েছেন৷

default

১৯৯২ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয় তাঁর

ক্ষিপ্রগতির ফুটওয়ার্ক আর বলের লাইন ধরে ফেলার অসাধারণ ক্ষমতা রিকি পন্টিংকে অন্যান্য ব্যাটসম্যানদের চেয়ে আলাদা করেছে৷ ১৯৯২ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে তাসমানিয়ার হয়ে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয় তাঁর৷ আর প্রথম ম্যাচেই ওয়াকা গ্রাউন্ডে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি করে নিজের জাত চিনিয়ে দেন৷ তিন বছর পর মার্ক ওয়াহ-র অনুপস্থিতিতে জাতীয় দলে জায়গা হয় তাঁর৷ আর প্রথম টেস্টেই মাত্র চার রানের জন্য সেঞ্চুরি থেকে বঞ্চিত হন পন্টিং৷ একই বছর ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হলেও প্রথম ম্যাচে মাত্র এক রান করেন তিনি৷ তবে অসি দলে নিয়মিত হতে বেশিদিন সময় লাগেনি এই জাত ব্যাটসম্যানের৷ পন্টিং এর একটি দারুণ বৈশিষ্ট্য হলো, ম্যাচের গুরুত্ব যত বেশী তার ব্যাটও যেন তত বেশী ঝলসে ওঠে৷ বিশ্বকাপের ফাইনালগুলোই তার প্রমাণ৷

ওয়ানডে এবং টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে সফল এই ব্যাটসম্যান ২০০২ সালে ওডিআই দলের অধিনায়কত্ব পান৷ এবং তার পরের বছরই বিশ্বকাপ জয়ে দলকে নেতৃত্ব দেন৷ অধিনায়ক হিসেবে টানা দুটি বিশ্বকাপ জয় করে নিজেকে কিংবদন্তীদের সমতুল্য করে তুলেছেন পন্টিং৷ তবে শেষের দিকে অসি দলের একাধিক পরাজয়ে তাঁর অধিনায়কত্ব নিয়ে কিছুটা সমালোচনা দেখা গেছে৷ টেস্টে ১২ হাজার এবং ওয়ানডেতে ১৩ হাজারেরও বেশি রান করেছেন পন্টিং যা অস্ট্রেলিয়ার যে কোন ব্যাটসম্যানের জন্য সর্বোচ্চ৷ মোট ৩৯টি টেস্ট সেঞ্চুরি এবং ২৯টি ওয়ানডে সেঞ্চুরি রয়েছে তাঁর৷ টেস্টে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ২৫৭ এবং ওয়ানডেতে ১৬৪ রান করেন পন্টিং৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সংশ্লিষ্ট বিষয়