1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

নারী স্বাধীনতা ও প্রগতির জন্য ১০ দফা দাবি পেশ

ঢাকায় প্রতিবাদী নারী গণসমাবেশ থেকে নারী স্বাধীনতা ও প্রগতির জন্য ১০ দফা দাবি পেশ করা হয়েছে৷ আর এই দাবি আদায়ে সারা দেশে ব্যাপক নারী আন্দোলন গড়ে তোলার ঘোষণা দেয়া হয়েছে৷

শুধু সরকার নয়, বিরোধীদলসহ সব রাজনৈতিক এবং সামাজিক শক্তিকে এই দাবির মর্ম বুঝে তা মেনে নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে৷

সমাবেশে নারীদের ১০ দফার প্রতি সমর্থন জানান সেখানে উপস্থিত সবাই৷ এই দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে নারী পুরুষসহ সব নাগরিকের সমান অধিকার রক্ষায় সাম্প্রদায়িক এবং ধর্ম ভিত্তিক রাজনৈতিক তৎপরতা বন্ধ করা, নারী উন্নয়ন নীতির বাস্তবায়ন, রাজনীতিতে ধর্মের ব্যবহার আইন করে নিষিদ্ধ করা, যুদ্ধাপরাধী ও মানবতা বিরোধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা, পোশাক শিল্পে কর্মরত নারীদের নিরাপত্তা ও সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা, আদিবাসী ও সংখ্যালঘুদের ব্যাপারে কোনো বৈষম্য না করা এবং নারীর প্রতি অবমাননা ও সহিংসতায় জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনা প্রভৃতি৷

নারী নেত্রী শিরিন আক্তার ডয়চে ভেলকে জানান, তারা দেশের একটি বিশেষ প্রেক্ষাপটে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছেন৷ সমাবেশে তারা যে ১০ দফা দাবি তুলে ধরেছেন তা বাস্তবায়নে সারা দেশে আন্দোলন গড়ে তুলবেন৷

কারণ স্বাধীনতার ৪২ বছরের মাথায় আবার ধর্মান্ধ মৌলবাদী চক্র মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে৷ তারা নারীকে ঘরে বন্দি করে রাখতে চায়৷

তিনি বলেন জামায়াত-শিবির যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাধাগ্রস্ত করতে মাঠে নেমেছে৷ আর তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে হেফাজতে ইসলাম৷ এই দুই অপশক্তি শুধু মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরুদ্ধেই কাজ করছেনা, তারা নারীদেরও অবমাননা করছে৷ এই নারী বিদ্বেষী চক্র এখন দাবি তুলেছে নারী নীতি বাতিল করতে হবে, বাতিল করতে হবে শিক্ষানীতি৷ তারা নারী-পুরুষের একসঙ্গে কাজ ও চলফেরার বিরুদ্ধেও অযৌক্তিক দাবি তুলছে৷ তারা চায় দেশের প্রগতির চাকা রুদ্ধ করে দেশকে তালেবান রাষ্ট্রে পরিণত করতে৷ কিন্তু এই চক্রকে প্রতিহত করতে হবে৷ তাদের তৎপরতাকে আইন করে নিষিদ্ধ করতে হবে৷

শিরিন আক্তার বলেন, সরকার ও বিরোধী দল উভয়ই এই স্বাধীনতা বিরোধী ধর্মান্ধ গোষ্ঠীর পিঠে এখনো হাত বুলিয়ে দিচ্ছে৷ তাদের জামায়াত-হেফাজতের পাশ থেকে সরে আসতে হবে৷

তিনি বলেন শুধু নারীদের বিরুদ্ধে নয় এই ধর্মান্ধ গোষ্ঠী দেশের সংবিধান এবং স্বাধীনতার বিরুদ্ধেও অবস্থান নিয়েছে৷ তাই তাদের বিরুদ্ধে এখনই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে৷ তারা বাংলাদেশে যে সহিংসতা শুরু করেছে তা মেনে নেয়া যায়না৷ তাদের এই সহিংতা বন্ধ করে তাদের তৎপরতা নিষিদ্ধ করতে হবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন