1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

নারী সাংসদ বেড়েছে, লিঙ্গবৈষম্য কমেনি

আরব বিশ্বেও সংসদে নারীর প্রতিনিধিত্ব বৃদ্ধির হার চোখে পড়ার মতো৷ অনেক দেশের দিকে তাকালেই মনে হবে, রাজনীতিতে নারীর আসন বেশ পাকা হয়েছে৷ কিন্তু বিশ্লেষকরা মনে করেন, প্রকৃত অর্থে বৈষম্য দূর হতে এখনো অনেক বাকি৷

ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন বা আন্তঃসংসদীয় ইউনিয়ন এবং ‘ইউএন উইমেন' নামের দুটি সংস্থা বিশ্বের সব দেশের সংসদের বর্তমান অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে একটা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে৷ প্রতিবেদন অনুযায়ী, এ মুহূর্তে বিশ্বজুড়ে সংসদে শতকরা ২১ দশমিক ৮ ভাগ নারী প্রতিনিধিত্ব রয়েছে৷ গত বছর ছিল ২০ দশমিক ৩ ভাগ৷ ১৯৯৫ সালে সংসদে নারী সাংসদ ছিল তার অর্ধেকেরও কম৷ বিস্ময়কর অগ্রগতি! অথচ ইউএন উইমেন-এর সহকারি নির্বাহী পরিচালক জন হেন্ড্রা মনে করেন, পরিসংখ্যানে অগ্রগতির লক্ষণ দেখা গেলেও রাজনীতিতে নারী-পুরুষ বৈষম্য খুব একটা কমেনি৷

মঙ্গলবার প্রকাশিত ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন এবং ইউএন উইমেন-এর যৌথ উদ্যোগে তৈরি করা এ প্রতিবেদনে বলা হয়, আগের তুলনায় নারী মন্ত্রীও বাড়ছে৷ ২০০৮ সালে বিশ্বের মোট মন্ত্রীর শতকরা ১৬ দশমিক ১ ভাগ ছিল নারী, এখন তা বেড়ে হয়েছে ১৭ দশমিক ১ ভাগ৷ আফ্রিকা এবং অ্যামেরিকা মহাদেশের সব দেশেই অন্তত একজন নারী মন্ত্রী রয়েছেন৷ তবে সৌদি আরব, লেবানন, পাকিস্তান, ব্রুনেই, স্যান ম্যারিনো, বসনিয়া, সলোমন আইল্যান্ডসের চিত্রটা সম্পূর্ণ বিপরীত৷ এ সব দেশে এ মুহূর্তে একজনও নারী মন্ত্রী নেই৷

তবে সংসদে নারীর অংশগ্রহণ বাড়ানোর বিষয়ে সব অঞ্চলেই কিছু না কিছু উন্নতি হয়েছে৷ সর্বোচ্চ ২৫ দশমিক ২ ভাগ নারী সাংসদ আছেন অ্যামেরিকায়৷ আরব বিশ্বে আগের ১৩ দশমিক ২ বেড়ে হয়েছে শতকরা ১৬ ভাগ৷ আফ্রিকা এবং ইউরোপেও উন্নতির ধারা বহমান৷ এই দুই মহাদেশে আগে ছিল ২২ দশমিক ৫ ভাগ, এখন হয়েছে ২৪ দশমিক ৬ ভাগ৷ এশিয়া অঞ্চলে সংসদে নারীর অংশগ্রহণও উল্লেখ করার মতো – ১৮ দশমিক ৪ ভাগ৷

পরিসংখ্যানে উন্নতির লক্ষণ দেখার পরও জন হেন্ড্রা মনে করেন, সংসদে অংশগ্রহণ বাড়লেও বিশ্বজুড়ে নারীর প্রতি দৃষ্টভঙ্গিতে খুব বেশি পরিবর্তন আসেনি৷ তাঁর মতে, নারীদের প্রত্যক্ষ নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ এবং নির্বাচনে জয়ের হার না বাড়া পর্যন্ত অবস্থার উন্নতি নিয়ে আশাবাদী হওয়া ঠিক হবে না৷ তাঁর মতে, ‘‘রাজনীতিতে নারীর অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে লিঙ্গবৈষম্য দূর করতে হলে নারীরা নির্বাচনে অংশ নিতে গেলে যে যে সমস্যার মুখোমুখি হন, সেগুলো দূর করতে হবে৷ বাধাগুলোর মধ্যে লিঙ্গবৈষম্য, নারীকে পুরুষের তুলণায় অক্ষম এবং নেত্রীত্বদান, দুর্নীতি হ্রাস এবং ভোট ক্রয়ে অপারগ মনে করার সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি এবং রাজনৈতিক দল এবং প্রচার মাধ্যমের অপ্রতুল সমর্থনও রয়েছে৷'' ইউএন উইমেন-এর সহকারী নির্বাহি পরিচালকের মতে, এ সব বিষয়ে পরিবর্তন না এলে পরিসংখ্যানে উন্নতি হবে, বাস্তবে নয়৷

এসিবি/ডিজি (রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন