1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

নারী নির্যাতন

নারী সাংসদরা যৌনবৈষম্য ও সহিংসতার শিকার

বিশ্বের সব অঞ্চলের নারী সাংসদরা তাঁদের পুরুষ সহকর্মীদের দ্বারা যৌনবৈষম্য, হয়রানি ও সহিংসতার শিকার হন বলে এক জরিপে জানা গেছে৷ বুধবার এই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়৷

IPU Parlamentarier (picture-alliance/ dpa)

আইপিইউ-র এক কংগ্রেসে বিভিন্ন দেশের সাংসদরা (ফাইল ছবি)

ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ)-এর করা এই জরিপ বলছে, অনলাইনেও নারী সাংসদরা অবমাননার শিকার হন৷ জেনেভা ভিত্তিক এই সংগঠনের সদস্য ১৭১টি দেশের জাতীয় সংসদ৷

বিশ্বের পাঁচটি অঞ্চলের ৩৯টি দেশের ৫৫ জন নারী সাংসদের সঙ্গে কথা বলে জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হয়৷ সব বয়সের সাংসদরা এতে অংশ নেন৷

৪৪.৪ শতাংশ নারী সাংসদ বলেছেন, তাঁরা দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রাণহানি, ধর্ষণ, প্রহার কিংবা অপহৃত হওয়ার হুমকি পেয়েছেন৷

আইপিইউ বলছে, জরিপের ফল এটিই প্রমাণ করছে যে, সব এলাকার নারী সাংসদরাই কমবেশি বৈষম্য ও সহিংসতার শিকার হন৷

জরিপে অংশগ্রহণকারীরা বলেছেন, অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিরোধী, এমনকি নিজ দলের পুরুষ সহকর্মীদের কাছ থেকে এমন আচরণ পেয়েছেন তাঁরা৷

নারী সাংসদের বয়স ৪০ এর নীচে হলে, তিনি বিরোধী দলের কিংবা কোনো সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের হলে, বৈষম্য ও হয়রানির পরিমাণ আরও বেড়ে যায় বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে৷

সাব-সাহারা আফ্রিকা, এশিয়া, ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের নারী সাংসদরা বলছেন, মাঝেমধ্যে অনলাইনে তাঁদের নগ্ন ছবি প্রকাশ করা হয়েছে, সেইসঙ্গে জুড়ে দেয়া হয়েছে অসম্মানজনক মন্তব্য৷

উল্লেখ্য, নারী সাংসদদের নিয়ে এ ধরণের প্রতিবেদন এটিই প্রথম৷

সারা বিশ্বে সাংসদের সংখ্যা প্রায় ৪৬ হাজার৷ এর মধ্যে ২২.৮ শতাংশ নারী৷

জেডএইচ/এসিবি (রয়টার্স)

প্রিয় পাঠক, আপনার কি কিছু বলার আছে? জানান নীচে মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়