1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

নারী কর্মকর্তা নিয়ে ক্ষমতাসীন জোট সরকারে বিতর্ক

ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলোর তুলনায় জার্মানির কর্পোরেট হাউজগুলোতে নারীদের সংখ্যা পুরুষদের তুলনায় বেশ কম৷ কর্মক্ষেত্রে তাই নারী ও পুরুষের মধ্যে ভারসাম্য আনার প্রশ্নটি জোরদার হয়েছে৷ তবে শাসক কোয়ালিশন এ নিয়ে দ্বিধা বিভক্ত৷

default

ফাইল ফটো

জার্মানির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নারীদের আরও বেশি উচ্চপদে নিয়োগ করার জন্য আইন প্রণয়নের পরামর্শ দিলেন জার্মানির খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী দলের মন্ত্রী উরজুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন এবং ক্রিসটিনা শ্রোয়েডার৷ তবে দলের জোটসঙ্গী উদারপন্থী মুক্ত গণতন্ত্রী দল অবশ্য এই প্রস্তাব উড়িয়ে দিয়েছে৷

শ্রমমন্ত্রী উরজুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন এ বিষয়ে ইতোমধ্যে একটি পরিকল্পনা পেশ করেছেন৷ যেখানে বলা হচ্ছে, ২০১৩ সাল থেকে জার্মানির বড় বড় কোম্পানিগুলোর প্রধান কর্মকর্তাদের ৩০ শতাংশ পদে নারীদের নিয়োগ দিতে হবে৷

জার্মানির সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন ‘ডেয়ার স্পিগেল'এ উরজুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন বলেছেন, এর আগে বড় বড় কোম্পানিগুলো তাদের প্রতিষ্ঠানে নারী কর্মীদের আরও বেশি নিয়োগ দেয়ার ব্যাপারে কথা দিয়েছিল৷ কিন্তু তারা সেই কথা রাখতে পারেনি৷ এই ক্ষেত্রে তাদের ব্যর্থতা শোচনীয়৷ তাই সরকার এবছরই এই বিষয়ে একটি আইন করার প্রস্তাব দেবে৷

উরজুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন'এর এই প্রস্তাবের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন পরিবার মন্ত্রী ক্রিসটিনা শ্রোয়েডার৷ তবে এরই মধ্যে খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী দলের জোটসহযোগী মুক্ত গণতন্ত্রীরা এই প্রস্তাবের সমালোচনা করেছেন৷ বিচারমন্ত্রী জাবিনে লয়েটহয়েজার-শারেনব্যার্গার এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন৷ মুক্ত গণতন্ত্রী দলের সাধারণ সম্পাদক ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনার বলছেন, ‘‘কোনো কোম্পানির কর্মী নিয়োগ নীতি কেমন হবে তা তাদের নিজস্ব ব্যাপার৷ এই নিয়ে মাতব্বরি করা রাজনীতিবিদদের কাজ নয়৷''

অন্যদিকে, মধ্য বামপন্থী বলে পরিচিত সামাজিক গণতন্ত্রী দলের নেতা জিগমার গাব্রিয়েল এর বিপরীত মতই প্রকাশ করেছেন৷ খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী দল সিডিইউ'এর সমালোচনা করে তিনি বলেছেন, ৩০ শতাংশ নয়, জার্মান সুপারভাইজর বোর্ডে অন্তত ৪০ শতাংশ নারী কর্মকর্তা রাখা উচিত৷

প্রতিবেদন: জান্নাতুল ফেরদৌস

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়