1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

নারীকে নিরাপত্তা দেবে কে?

যে পুলিশ নারীকে নিরাপত্তা দেবে, সেই পুলিশের হেফাজতেই লালসার শিকার হচ্ছে নারী৷ এটা নতুন নয়৷ দিনাজপুরে ইয়াসমিন জীবন দিয়েছিল, তিন পুলিশের ফাঁসিও হয়েছিল৷ কিন্তু এরপরেও সমস্যার কোনো সমাধান নেই৷

এভাবেই নিজের মন্তব্য তুলে ধরেছেন বাংলাদেশ থেকে বন্ধু বাবলা সুলতান৷ লিখেছেন, এবার তো থানার ভেতরেই এহেন কাণ্ড ঘটছে৷ তাহলে এর সমাধান কী? পুলিশের এই যে ক্ষমতার অপব্যবহার – এটা রোধে কোনো আইন নেই৷ বরং রয়েছে অভিযোগ তদন্তের ক্ষেত্রে ভেলকিবাজি, উৎকোচ আর রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক ক্ষমতার প্রয়োগ৷

তাই বাবলা সুলতানের কথায়, স্বাভাবিকভাবেই মানুষ পুলিশ বিমুখ হচ্ছে, আর কোনো কোনো ক্ষেত্রে সন্ত্রাসীরাই ‘প্রোটেকশন' দিচ্ছে সাধারণ মানুষকে৷ তাহলে কি পুলিশের কাছে আশ্রয় নেওয়ার বদলে সন্ত্রাসীদের কাছে আশ্রয় নেওয়া অনেক সম্মানজনক? এ বিষয়টি, তথা সমস্যাটা গুরুত্বের সাথে নেওয়া উচিত, যাতে দেশের সবচেয়ে জরুরি একটি প্রতিষ্ঠান রক্ষা করা এবং জননিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়৷

নওগাঁ, বাংলাদেশ থেকে মুরশিদা পারভিন লিখছেন, আমাদের একটা ফ্যান ক্লাব আছে৷ নাম – করবী অনলাইন ফ্যান ক্লাব৷ নারী হয়েও আমি এটার প্রেসিডেন্ট৷ আপনাদের অনুষ্ঠান আমাদের খুব ভালো লাগে৷ প্রতিদিনই আমি আপনাদের ওয়েবসাইট দেখি এবং ভবিষ্যতেও দেখবো৷

- ধন্যবাদ বন্ধু, অন্যদেরও ডয়চে ভেলের ওয়েবসাইট দেখার জন্য বলবেন কিন্তু৷ কেমন?

সংকলন: দেবারতি গুহ

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন