1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

নাদালের দুরবিনে ফেডারারের রেকর্ড

রাফায়েল নাদাল জিতলেন তাঁর ত্রয়োদশ গ্র্যান্ড স্ল্যাম খেতাব৷ কামব্যাক কিড নাদাল এখন নোভাক জোকোভিচকে বিশ্বের পয়লা নম্বর বাছাই থেকে আসনচ্যুত করার মুখে৷ ফেডারারের ১৭টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের রেকর্ডও এখন এই টেনিস-দস্যুর দুরবিনে৷

নিউ ইয়র্কের আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামের নীল সিমেন্টের ওপর ভেঙে পড়লেন রাফায়েল নাদাল, যেন তাঁর হারানো বছরগুলোর জন্য কাঁদছেন৷ দুর্বল হাঁটুর কারণে স্পেনের মাইয়র্কা থেকে রকেটের মতো উঠে আসা চিরকালের সেরা এই ক্লে-কোর্ট প্লেয়ারটিকে যে আবার এই ফর্মে দেখা যাবে, সেটাই বা তাঁর ক'জন ফ্যান ভাবতে পেরেছিল?

হাঁটুর জন্য নাদাল-কে যে পাঁচটি মেজর টুর্নামেন্ট বাদ দিতে হয়েছে, সেগুলি হল: উইম্বলডন ২০০৪, অস্ট্রেলিয়ান ওপেন ২০০৬, উইম্বলডন ২০০৯, ইউএস ওপেন ২০১২ এবং এ বছরের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন৷ গ্রিক কিংবদন্তির বীর আকিলিসের দুর্বলতা ছিল তাঁর গোড়ালি – আর নাদালের ঐ হাঁটু৷ নয়তো অন্তত পিট স্যাম্প্রাসের ১৩টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম খেতাবের খুঁটি তাঁর অনেকদিন আগেই অতিক্রম করে যাওয়ার কথা৷

কাজেই রজার ফেডারারের ১৭টি খেতাবের তুষারাচ্ছন্ন পাহাড়চূড়োটি কোনো অজানা সাগরদ্বীপের উপর মরীচিকার মতো ভাসতেই দেখছিলেন নাদাল – তিনি নিজে যেন কোনো পালতোলা, দাঁড়ভাঙা জাহাজের নাবিক৷ কিন্তু ভাবতে গেলে: নাদালের বয়স আজ ২৭৷ তাঁর বয়সে ফেডারারের সংগ্রহেও ছিল ঐ সাকুল্যে ১৩টি খেতাব৷ কাজেই সাগরদ্বীপ ছাড়িয়ে চিরকালের রেকর্ডের প্রবালদ্বীপে পৌঁছে যাওয়াটা ‘ভাঙা-হাঁটু টেনিস-দস্যু' রাফার পক্ষে অসম্ভব হবে কেন?

জোকোভিচের নিজের ২৭ বছর বয়স হবে আগামী বছর৷ ‘‘২৭ বছরের একজন খেলোয়াড়ের পক্ষে ১৩টা গ্র্যান্ড স্ল্যাম খেতাব জেতা একটা অবিশ্বাস্য ব্যাপার... ও নিশ্চয় করে বিশ্বের চিরকালের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন,'' ম্যাচের পর বলেছেন জোকোভিচ স্বয়ং৷ এককালের টেনিস শ্রেক জন ম্যাকেনরো আরো বাড়িয়ে বলেছেন, ‘‘আমার কাছে নাদাল হল চিরকালের সেরা প্লেয়ার৷''

US Open Tennis Novak Djokovic gegen Michail Juschny

নাদাল ফর্ম ধরে রাখলে বিশ্বসেরার আসন হারাতে পারেন জোকোভিচ

ম্যাকেনরো মন্তব্যটা খোলসা করে দিয়েছেন: ‘‘আমি চিরকাল বলে এসেছি, আমার কাছে রজার ফেডারার হল চিরকালের সেরা প্লেয়ার, তার খেলা সবচেয়ে সুন্দর৷ কিন্তু আমি এখানে দাঁড়িয়ে বলছি, এখন যখন বিতর্ক শুরু হয়েছে, তখন আমি রাফার দিকে ঝুঁকতে শুরু করেছি৷'' ম্যাকেনরো পরিসংখ্যান ঘাঁটলেও দেখতেন: নাদাল ফেডারারের বিরুদ্ধে জিতেছেন ২১ বার, হেরেছেন দশবার; জোকোভিচের বিরুদ্ধে নাদাল জিতেছেন ২২ বার, হেরেছেন ১৫ বার৷

নাদালের কিংবদন্তিস্বরূপ ডিফেন্সিভ স্কিলস আগের মতোই রয়েছে, যুক্ত হয়েছে আরো বেশি ফায়ার পাওয়ার৷ ফোরহ্যান্ডে সেই লুপ করা টপস্পিন কিছুটা কমেছে – এখন বলটা নেটের আরো কাছ দিয়ে যায়, যার ফলে নাদাল ব়্যালিতে আরো আগে আক্রমণ করার সুযোগ পান৷ আর তাঁর বাঁ-হাতি সার্ভ?

গোড়ালি সত্ত্বেও আকিলিস যদি গ্রিক মহাকাব্যের নায়ক হয়ে থাকতে পারেন, তবে হাঁটু সত্ত্বেও নাদালই বা টেনিস মহাকাব্যের নায়ক হতে পারবেন না কেন?

এসি / এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন