1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

নবীন-প্রবীণ নিয়ে হজসনের মাথাব্যথা

ইংল্যান্ডের কোচ রয় হজসন ব্রাজিল বিশ্বকাপের জন্য দল বাছতে গিয়ে সেই চিরন্তন তারুণ্য বনাম অভিজ্ঞতার দ্বন্দ্বে পড়বেন৷ বিশেষ করে যখন পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে জয়ে গোল দু'টি করেছেন রুনি এবং জেরার্ড৷

গ্রুপ ‘এইচ'-এ ইংল্যান্ডের শেষ দু'টি কোয়ালিফায়ার ছিল মন্টেনিগ্রো এবং পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে৷ মন্টেনিগ্রোর বিরুদ্ধে হজসন এই প্রথমবার নামান টটেনহ্যাম হটস্পারের উইংগার ২২ বছর বয়সি অ্যান্ড্রোস টাউনসেন্ড-কে৷ ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথম আবির্ভাবেই গোল করেন টাউনসেন্ড ৷ ইংল্যান্ড জেতে ৪-১ গোলে৷

পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলাতেও টাউনসেন্ড ডানদিক ধরে তার দুর্ধর্ষ দৌড়ে একাধিকবার পোলিশ ডিফেন্ডারদের চমকে দিয়েছেন৷ কিন্তু মঙ্গলবার ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের হয়ে যারা গোল করেন, তারা হলেন ২৮ বছর বয়সি ওয়েন রুনি এবং ৩৩ বছর বয়সি স্টিভেন জেরার্ড, যিনি দলের ক্যাপ্টেনও বটে৷

বুধবার লন্ডনের একটি হোটেলে হজসন সাংবাদিকদের বলেন, রুনি আর জেরার্ড যে গোল দু'টি করেছেন, তাতে তিনি খুব খুশি৷ দু'জনেই কোয়ালিফিকেশন পর্যায়ে ‘‘অন্য অনেকের চেয়ে বেশি দায়িত্ব'' নিয়েছেন এবং সে দায়িত্ব পালনও করেছেন৷ কোয়ালিফিকেশনে রুনি-র সাতটি গোলের কথা ভাবলে হজসনের কথার সত্যতা উপলব্ধি করা যায়৷

নবীনে-প্রবীণে

অন্যদিকে রয়েছে নবীনেরা: টাউনসেন্ড, তার স্পার্স-এর সতীর্থ কাইল ওয়াকার, আর্সেনালের মিডফিল্ডার জ্যাক উইলশেয়ার, এভারটন-এর রস বার্কলে, এরা সবাই তাদের নিজের নিজের ক্লাবে ছাপ রেখেছে এবং এখন ইংল্যান্ড দলে ঢুকতে আকুল৷ ওয়েস্ট হ্যাম-এর মিডফিল্ডার ব়্যাভেল মরিসন ইতিমধ্যেই আন্ডার টোয়েন্টিওয়ান দলে; সদ্য-সমাপ্ত কোয়ালিফিকেশনে সে লিথুয়ানিয়ার বিরুদ্ধে দু'টি গোল করে হজসন ও ব্রিটিশ মিডিয়ার নজর কেড়েছে৷

England Nationaltrainer Roy Hodgson

সবদিক না ভেবে কোনো খেলোয়াড়কে বাতিল করে দেবেন না হজসন

পরিস্থিতি বুঝিয়ে দিয়েছেন হজসন নিজে: ‘‘আগামী ছ'মাসে কোন কোন আন্ডার টোয়েন্টিওয়ান প্লেয়ার সত্যিই চ্যালেঞ্জ দিতে পারবে, সেটা দেখা খুবই ইন্টারেস্টিং হবে৷ কিন্তু তাদের প্রথমে মিডফিল্ডার ফ্র্যাংক ল্যাম্পার্ড এবং লেফ্ট ব্যাক অ্যাশলে কোল-এর মতো আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন প্লেয়ারদের হটাতে হবে৷ ঐ দু'জন আর জেরার্ড মিলে ওরা প্রায় ৩০০ বার ইংল্যান্ডের হয়ে খেলেছে৷''

‘‘আমরা কোনো প্লেয়ারদের না ভেবেচিন্তে বাতিল করব না,'' বলেছেন হজসন৷ ‘‘দল বাছাই খুবই কঠিন হবে কেননা আমাদের এক গাদা ভালো তরুণ খেলোয়াড় আছে, আবার দারুণ সব পুরনো খেলোয়াড়ও আছে৷ কাজেই কাজটা খুব সহজ হবে না৷'' অন্যদিকে আগামী বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে নিয়ে মাত্রাধিক প্রত্যাশা কিংবা অতিরঞ্জন দমানোর চেষ্টা করেছেন হজসন: ‘‘আমরা যে বিশ্বকাপ জেতার জন্য ফেভারিট নই, সেটা খুবই স্পষ্ট৷ তবে আমরা যথাসাধ্য করব৷''

তাহলে ফেভারিট কারা? হজসনের মতে দক্ষিণ অ্যামেরিকায় বিশ্বকাপ, অতএব ব্রাজিল কিংবা আর্জেন্টিনা৷ আর ইউরোপ থেকে? সেক্ষেত্রে স্পেন আর জার্মানির নাম করেছেন ইংল্যান্ডের কোচ৷

এসি / এসবি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন