1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ধ্বংসের মধ্য থেকে সম্ভাবনার দ্বার খুলেছে মেরাপি

বিশ্বের বিপদজনক আগ্নেয়গিরিগুলোর মধ্যে একটি ইন্দোনেশিয়ার মেরাপি৷ গত বছর নভেম্বরে আগ্নেয়গিরিটির অগ্ন্যুৎপাত দৃষ্টি কাড়ে বিশ্ববাসীর৷ এতোদিনে স্বাভাবিক জীবনধারায় ফিরে আসতে শুরু করেছে ঐ অঞ্চলের মানুষ৷

default

মেরাপি দেখতে পর্যটকদের ভিড়

এটা ছিল এই আগ্নেয়গিরির একশ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় অগ্ন্যুৎপাত৷ সেই অগ্ন্যুৎপাতে ৩০০'র বেশি মানুষ মারা যান৷ ঘরহারা হন প্রায় চার লাখ মানুষ৷ যার প্রভাব পড়ে পাশ্ববর্তী শহরগুলোতেও৷ তবে মেরাপি আবার পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে সক্ষম হচ্ছে৷

মেরাপি৷ ইন্দোনেশিয়ান ভাষায় শব্দটির অর্থ আগুনের পাহাড়৷ আর এই আগুনের পাহাড়টি ঘিরে গড়ে উঠেছে একটি জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র৷ অপেক্ষাকৃত শীতল আবহাওয়া এবং গ্রামের নয়নাভিরাম দৃশ্য দেখার জন্য পর্যটকরা মূলত সেখানে যেতেন৷ কিন্তু গত বছরের অগ্ন্যুৎপাতের পর থেকে স্থানীয়রা খেয়াল করছেন তাঁদের বাড়িঘর এবং গোটা গ্রাম লাভার ছাই'এ ঢেকে গেছে৷

তবে স্থানীয় ট্যুর এবং ট্রাভেল কোম্পানিগুলো এই আগ্নেয়গিরিকে কেন্দ্র করেই বিভিন্ন রকম বিজ্ঞাপন দিয়ে পর্যটকদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা চালাচ্ছেন৷

ডিউই একজন নার্স৷ জাকার্তা থেকে অল্প কিছুদিনের জন্য এই এলাকা ভ্রমণে এসেছেন৷ বললেন, বাড়িঘরগুলো সব নষ্ট হয়ে গেছে৷ ঘরগুলোর কেবল নিচের অংশই দেখা যায়৷ গ্রামটি পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে৷ গাছগুলো সব পুড়ে গেছে৷ তবে এই পোড়াটা অন্যরকম, ঠিক আগুনে পুড়ে যাওয়ার মতো নয়৷ তিনি বলেন, এই বিপর্যয় আমাদের মনে করিয়ে দেয়, প্রকৃতির কাছে মানুষ কত ছোট৷

ইন্দোনেশিয়া ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেল এজেন্সি'র ইডউইন ইসমেদি হিমনা বলেন, মেরাপির এই বিপর্যস্ত এলাকা ভ্রমণ করার জন্য অনেকেই আগ্রহী৷ সরকারিভাবে কোনো তথ্য-উপাত্ত না থাকলেও হিমনার মতে সেদেশের এবং আন্তর্জাতিক হাজার হাজার পর্যটক অগ্ন্যুৎপাতের পর মেরাপির অবস্থা দেখার জন্য এখানে আসছেন৷ তিনি বলেন, পর্যটকরা আসার কারণে স্থানীয়রা খুবই খুশি৷

হিমনা আরও বলেন, স্থানীয়রা মনে করছেন, পর্যটকরা আসায় তারা আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন৷ তাঁদের কাছে পানীয়, টি-শার্ট বিক্রি করতে পারছেন৷ কিছু কিছু পর্যটক রাস্তার যানজট থেকে মুক্তি পাবার জন্য স্থানীয়দের কাছ থেকে মোটর সাইকেলও ভাড়া নিচ্ছেন৷এবং আরও যদি পর্যটক আসে স্থানীয়রা আরও খুশি৷

প্রায় ৪ লাখ মানুষ মেরাপির অগ্ন্যুৎপাতের পর আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে সপ্তাহের পর সপ্তাহ কাটিয়েছেন৷ তাঁরা এখন বাড়ি ফিরেছেন৷ অনেকেই ফিরে এসে দেখেছেন তাঁদের আর কিছুই নেই৷ কেবল ছাই এবং কাঁদার মধ্যে দাঁড়িয়ে রয়েছে তাঁদের গ্রামটি৷ সামাজিক তেমন নিরাপত্তা নেই৷ তারপরও মানুষগুলো স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাওয়ার জন্য লড়াই করে যাচ্ছেন৷

প্রতিবেদন: জান্নাতুল ফেরদৌস

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়