1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

ধূমপান পুরুষদের বাবা হতে অক্ষম করে দিতে পারে

‘ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর' – সিগারেট প্যাকেট, সিনেমার পর্দা, সর্বত্র পড়া যায় এই সতর্কবাণী৷ ক্ষতির মাত্রা শুধু ক্যানসারের আশঙ্কা নয়, জার্মান বিজ্ঞানীরা বংশবৃদ্ধির উপর এর মারাত্মক প্রভাব প্রমাণ করতে পেরেছেন৷

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর৷ প্রত্যেকেই প্রথমে ফুসফুসের ক্যানসারের কথা ভাবেন৷ কিন্তু অনেকেই জানেন না যে, তামাকের ধোঁয়া পুরুষের প্রজনন ক্ষমতার উপরও প্রভাব ফেলতে পারে৷ অন্যদের তুলনায় ধূমপায়ী পুরুষের বীর্যের ‘মোবিলিটি' ও টিকে থাকার ক্ষমতা অনেক কম৷

জার্মানির সারলান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা ধূমপায়ীদের বীর্যকোষের জিনোমের মেমব্রেনে পরিবর্তন প্রমাণ করতে পেরেছেন৷ অর্থাৎ যে পুরুষ সন্তানের পিতা হতে চান, তাঁদের ধূমপান এড়িয়ে চলা উচিত৷ বায়োকেমিস্ট অধ্যাপক মাটিয়াস মন্টেনার বলেন, ‘‘সিগারেটের ধোঁয়ায় এমন পদার্থ থাকে, যা রাসায়নিক প্রক্রিয়ায় জিনোম পরিবর্তন করে৷ ফলে তা আর ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করতে পারে না৷ তাছাড়া বীর্যের আকার, ডিম্বাণু পর্যন্ত পৌঁছানোর গতি বদলে যায়৷ ফলে স্বাভাবিক প্রজনন প্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত ঘটে৷ এ কারণেই অনেক ধূমপায়ী সন্তানের জন্ম দিতে পারেন না৷''

এছাড়া গবেষকরা ধূমপায়ীদের বীর্যের মধ্যে তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি মাত্রার কোটিন খুঁজে পেয়েছেন, যা নিকোটিন ভেঙেই তৈরি হয়৷ এর অন্যতম পরিণাম হলো, ধূমপানের ফলে বীর্যকোষের ‘ফিটনেস'-এর ক্ষতি হয়, যা স্পষ্ট দেখা যায়৷ বামে অ-ধূমপায়ী আর ডাইনে ধূমপায়ীদের বীর্য রাখলে এই তফাত চোখে পড়ে৷

তামাকের ধোঁয়ার ফলে শরীরে এমন সব ‘ফ্রি ব়্যাডিকাল' বা আগ্রাসী ক্ষুদ্র পার্টিকেল তৈরি হয়, যা শরীরের অন্যান্য অণুর সংস্পর্শে এলে দ্রুত প্রতিক্রিয়া ঘটে৷ ফলে সেই অণুগুলির ক্ষতি হয়৷ অধ্যাপক মন্টেনার বলেন, ‘‘বীর্যের মধ্যে যে ‘ফ্রি ব়্যাডিকাল' সৃষ্টি হয়, তা ফ্যাটি অ্যাসিড বদলে দেয়৷ এর ফলে মেমব্রেনও নষ্ট হয়ে যায়৷ তাছাড়া এই ব়্যাডিকাল কোষের মূলে গিয়ে জিনোম বদলে দেয়৷ এর পরিণাম সাংঘাতিক৷ কারণ পরে ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করার সময় তাতে বিকৃতি দেখা দিতে পারে অথবা প্রক্রিয়াটি আদৌ ঘটতেই না পারে৷''

‘ফ্রি ব়্যাডিকাল' ডিএনএ – অর্থাৎ বীর্যকোষের ক্রোমোজোমের উপর হামলা চালালে তার খোলস নষ্ট হয়ে যায় এবং ক্রোমোজোম ভেঙে যেতে পারে৷

সারলান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মহম্মদ হামাদেহ তাঁর ‘রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন' বিভাগে বীর্য পরীক্ষা করে এমন প্যাথোলজিকাল পরিবর্তন পরীক্ষা করেন৷ এক পরীক্ষার মাধ্যমে বীর্যকোষের অবস্থা বোঝা যায়৷ তিনি বলেন, ‘‘দাগ সহ বীর্য এরই মধ্যে নষ্ট হয়ে গেছে৷ যাতে দাগ নেই, সেই বীর্য স্বাভাবিক৷ ‘টানেল টেস্ট'-এর মাধ্যমে তা জানা গেছে৷ যে বীর্যের ডিএনএ ভেঙে গেছে, তা ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করতে পারে না৷''

পরিবার পরিকল্পনার ক্ষেত্রে ধূমপান একটা বড় বিষয়৷ এক্ষেত্রে ‘প্যাসিভ স্মোকিং' সরাসরি ধূমপানের মতই ক্ষতিকর৷ সিগারেট দূরে রাখলে স্বাস্থ্যকর বীর্যকোষের সম্ভাবনা বেড়ে যায়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক