1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মতামত

‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার'

‘‘অন্য বছরের তুলনায় এবারের ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলোতে পরিবর্তন দেখা গেছে৷ হিন্দু বা মুসলিমদের মধ্যে সাম্প্রদায়িকতার মনোভাব অতটা মনে হয়নি৷'' বাংলাদেশের বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব উদযাপন নিয়ে মন্তব্যটি এক পাঠকের৷ তবে ভিন্নমতও রয়েছে৷

বাংলাদেশে এবারের ধর্মীয় উৎসব উদযাপন সম্পর্কে ডয়চে ভেলের পাঠক আকাশ ইকবাল লিখেছেন, ‘‘অন্য বছরের তুলনায় এবার ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলোতে অনেক পরিবর্তন দেখা গেছে৷ হিন্দু কিংবা মুসলিমদের মধ্যে সাম্প্রদায়িকতার মনোভাব অতটা মনে হয়নি৷ ‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার' কথাটির সাথে এবার কিছুটা মিল পাওয়া গেছে৷''  পাঠক আকাশ তাঁর বক্তব্যে আরো যোগ করেছেন , ‘‘গত বছরগুলোতে দফায় দফায় প্রতিমা ভাংচুর করার খবর পাওয়া গেছে৷ সে তুলনায় এই বছর তেমন বেশি খবর পাওয়া যায়নি৷ এ কথাও ঠিক যে এই বছর নিরাপত্তাটা অন্য বছরের তুলনায় বেশি ছিল৷ আবার এটাও বলা যাবে না যে সাম্প্রদায়িকতা একেবারে উঠে গেছে৷ এই মনোভাব এখনো বাঙালি মুসলমান কিংবা হিন্দুদের মধ্যে আছে৷ আমি একটি মফস্বল এলাকায় থাকি বলে বলতে পারি যে সাম্প্রদায়িকতা  মফস্বল এলাকাগুলোর তুলনায় শহরে অনেকটাই কম৷''

তবে  ডয়চে ভেলের ফেসবুক বন্ধু জেবুন নাহার রূপার কিছুটা ভিন্নমত৷ তিনি  লিখেছেন, ‘‘বাংলাদেশ একটি মুসলিম দেশ এবং সবসময় তা-ই থাকবে৷ আমরা অন্য ধর্মের প্রতিও শ্রদ্ধাশীল৷'' সেই সাথে রূপা আরো জানিয়েছেন যে, ডয়চে ভেলেতে ধর্ম নিয়ে এত লেখালেখি তাঁর তেমন পছন্দ নয়৷ 

পাঠক সুবোধ বর্মনের মতে,  হিন্দুদের ধর্ম তাঁদের কাছেই থাকা ভালো আর মুসলমানদের ধর্ম থাকবে মুসলমানদের কাছে৷ সব মিশিয়ে ফেলার কোনো দরকার নেই৷

অন্যদিকে বিভিন্ন ধর্মের উৎসব নিয়ে ডয়চে ভেলে থেকে প্রকাশিত লেখাগুলো বন্ধু অজিৎ কুমার দত্তের কাছে ভালো লেগেছে৷ তবে তিনি মনে করেন, কিছু পাঠক ফেসবুকে অযথা  হিন্দু ও ভারতবিদ্বেষী মন্তব্য করে৷ সেসব পড়ে তাঁর মন বিষিয়ে যায় বলেও জানিয়েছেন তিনি৷

আর পাঠক নজমুল হুদা খানিকটা দুঃখ নিয়েই ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘শুধুমাত্র মুসলমানদের কোরবানি ঈদ এলেই বাংলাদেশে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের গাত্রদাহ শুরু হয়৷ তখন তাঁরা ভুলে যান শত শত বছরের ধর্মীয় সম্প্রীতির ঐতিহ্যের কথা৷''

সবশেষে জিসান শাহরিয়ারের স্পষ্ট মন্তব্য, ‘‘ আমরা সবাই বাঙালী, আমরা সবাই মানুষ!''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

নির্বাচিত প্রতিবেদন