1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

দ্বিতীয় রাউন্ডে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি জার্মানি

অবশেষে ভক্তরা হাফ ছেড়ে বাঁচলেন৷ শেষ ম্যাচে ঘানাকে ১-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই জার্মানি গেল দ্বিতীয় রাউন্ডে৷

default

ঘানার জালে ঢুকছে বল

তবে দ্বিতীয় রাউন্ডেই তারা মুখোমুখি হচ্ছে অন্যতম ফেভারিট ইংল্যান্ডের৷ অন্যদিকে শেষ ম্যাচে সার্বিয়াকে হারালেও গোল ব্যাবধানের কারণে কপাল পুড়লো সকারুদের৷

হয় জয়, নয়তো বিদায়, বুধবার ঘানার বিরুদ্ধে মাঠে নামার আগে এই ছিল জার্মানির বিশ্বকাপ সমীকরণ৷ ড্র করলেও উপায় নেই, অন্য ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সার্বিয়া যদি জিতে যায়? তাই যে করেই হোক জেতার জন্য নেমেছিল ইওয়াখিম ল্যোভের দল৷ আর জার্মানি যখন মরিয়া হয়ে খেলে তখন তারা যে ভিন্ন একটি দল তা সকলেই জানে৷

তবে ঘানার বিরুদ্ধে খেলতে গিয়ে বোঝা গেছে এই ঘানাকে কেন আফ্রিকার অন্যতম ফেভারিট হিসেবে ধরা হয়৷ প্রথমার্ধে দুই দলের খেলাই ছিল সমানে সমান৷ সমস্যা হল, এই ম্যাচের আগে ঘানা যে মাত্র দুটি গোল দিয়েছে সেগুলো এসেছে পেনাল্টি থেকে৷ গোল করার সুযোগ পেয়েও ঘানার স্ট্রাইকাররা তা কাজে লাগাতে পারেননি৷ জার্মানদের বিরুদ্ধে ম্যাচেও সেটা দেখা গেল৷ একের পর এক হাফ চান্সকে তারা ফুল চান্স পর্যন্ত নিতে পারেনি৷

অন্যদিকে কাকাউকে একেবারে সামনে রেখে জার্মান দল পুরো ম্যাচ খেলেছে অত্যন্ত

WM Südafrika 2010 Australien vs Serbien

অস্ট্রেলিয়া ও সার্বিয়ার খেলার একটি দৃশ্য

পরিকল্পিতভাবে৷ রক্ষণভাগ ছিল যেমন সতর্ক তেমনি মধ্যমাঠেও বল দখলের লড়াইয়ে তারা ছিল এগিয়ে৷ ম্যাচটির গতিও ছিল সেরকম৷ দুই দলের গতিময় খেলা বেশ উপভোগ্য মনে হয়েছে৷

প্রথমার্ধ গোল শূন্য থাকার পরও কোন দলই তাদের রক্ষণভাগ খালি রেখে খুব বেশি আক্রমণাত্মক হয়নি৷ কিন্তু গোলের চেষ্টা চালিয়ে গেছে একের পর এক৷ মধ্যমাঠে জার্মান মিডফিল্ডার মেসুট ওৎসিলের খেলা ছিল চোখে পড়ার মত৷ তবে গোলের সহজ একটি সুযোগও তিনি মিস করেছিলেন৷ ঘানার গোল কিপারকে একা পেয়েও তিনি ঠিকভাবে শটটি নিতে পারেননি৷ তবে খেলার ৬০ মিনিটের মাথায় জয়সূচক গোলটি আসে তাঁর কাছ থেকেই৷ ডি বক্সের সামনে পাস থেকে বাম পায়ে যে দুর্দান্ত শটটি তিনি নেন তা ঘানার গোলকিপারের আয়ত্ত্বের বাইরে ছিল৷ এরপর ঘানা একের পর এক আক্রমণের চেষ্টা করলেও জার্মান রক্ষণভাগ ভাঙ্গতে পারেনি তাঁরা৷

অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ার জন্য দুর্ভাগ্যই বলতে হবে৷ আগের ম্যাচে জার্মানিকে হারানো সার্বিয়াকে তাঁরা গতকাল যেভাবে ২-১ গোলে হারিয়েছে তা প্রশংসার যোগ্য৷ আসলে এবারের বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে জার্মানির কাছে এক হালি গোল খাওয়ার পর অসিদের পারফরমেন্স চোখে পড়ার মত ছিল৷ কিন্তু সেই গোল খাওয়ার কারণেই তাঁদের কপাল পুড়লো৷ যাই হোক খেলার সবগুলো গোল হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে৷ ৬৯ মিনিটে গোল করেন প্রথম ম্যাচে লাল কার্ড খাওয়া টিম ক্যাহিল৷ এর মাত্র চার মিনিট পর ব্যবধান বাড়ান বদলি হিসেবে নামা ব্রেট হোলম্যান৷ তবে ৪৮ মিনিটের মাথায় একটি গোল শোধ করেন সার্বিয়ার মার্কো প্যানটেলিচ৷

বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের আগে সকারুদের সান্ত্বনা এই যে তাঁরা দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার লড়াইয়ে পুরোদমেই ছিল৷ অন্যদিকে সার্বিয়ার সান্ত্বনা ফেভারিট জার্মানিকে হারানো৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম, সম্পাদনা: জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়