1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দ্বিতীয় মার্কিন সাংবাদিকের শিরশ্ছেদ

জঙ্গি গোষ্ঠী ‘ইসলামিক স্টেট' বা আইএস-এর জিহাদিরা আরো একজন মার্কিন সাংবাদিকের শিরশ্ছেদ করার দৃশ্য একটি পাঁচ মিনিটের ভিডিও-তে পোস্ট করেছে৷ এবারও মুখোশ পরা আততায়ী ব্রিটিশ ‘অ্যাক্সেন্টে' কথা বলেছে৷ চলছে মার্কিন বিমান হানাও৷

সর্বাধুনিক ফুটেজে ৩১-বছর-বয়সি রিপোর্টার স্টিভেন সটলফ ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে শান্ত গলাতেই বলছেন যে, তিনি প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ইরাকে জিহাদিদের উপর বিমান হানা চালিয়ে যাবার সিদ্ধান্তের শিকার হচ্ছেন৷ ভিডিও-টির খবর দেয় ‘সাইট' ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ, যারা যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে সন্ত্রাসবাদের উপর নজর রাখে৷

স্টিভেন সটলফ-এর আদিবাস মায়ামিতে; তিনি টাইম ম্যাগাজিন এবং ফরেন পলিসি ম্যাগাজিনের হয়ে ফ্রিল্যান্সিং করেছেন; সিরিয়া, মিশর ও লিবিয়া থেকে বিভিন্ন ম্যাগাজিনে নানা ধরনের প্রবন্ধ লিখেছেন৷ যে আইএস যোদ্ধা সটলফ-এর মুণ্ডচ্ছেদ করে, সে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে লক্ষ্য করে বলেছে: ‘‘আমি ফিরেছি, ওবামা, এবং আমি ফিরেছি ইসলামিক স্টেট-এর প্রতি তোমার উদ্ধত বিদেশনীতির কারণে... আমাদের আন্তরিক সাবধানবাণী সত্ত্বেও৷''

আততায়ী আরো বলেছে: ‘‘তোমার রকেট যেমন আমাদের মানুষজনের উপর এসে পড়ছে, তেমন আমাদের ছুরিও তোমার মানুষজনের গলা কাটবে৷’’

আততায়ী ইরাকের মোসুল বাঁধ ও আমির্লি শহরের আশেপাশে মার্কিন বিমান হানার কথা উল্লেখ করে – যা ঘটেছে গতমাসে জেমস ফলির হত্যাকাণ্ডের অনেক পরে৷ জেমস ফলির মুণ্ডচ্ছেদের ভিডিও-তে সটলফকে দেখানো হয়েছিল এবং হুমকিও দেওয়া হয়েছিল, তবে দৃশ্যত সে সময় তাঁকে হত্যা করা হয়নি৷

ফলির হত্যাকাণ্ডের পর মার্কিন বিমান হানা অব্যাহত থাকে এবং মঙ্গলবার সটলফ-এর হত্যাকাণ্ডের ভিডিও প্রকাশিত হবার পরেও বিমান হানা চলেছে৷ তবে বাগদাদে মার্কিন দূতাবাস ও আরো কিছু ভবনের নিরাপত্তা বৃদ্ধি করা হচ্ছে অতিরিক্ত সাড়ে তিন'শো মার্কিন সেনা নিয়োগ করে৷ অপরদিকে আইএস জিহাদিরা তাদের সর্বাধুনিক ভিডিও-য় ডেভিড কথর্ন হেইন্স নামের এক অজ্ঞাত ব্রিটিশ নাগরিককে হত্যা করার হুমকি দিয়েছে৷ যুগপৎ ব্রিটেনকেও হুমকি দেওয়া হয়েছে; সটলফ-এর আততায়ী ভিডিও-তে ঘোষণা করেছে: ‘‘আমরা এই সুযোগে যে সব রাষ্ট্র আইএস-এর বিরুদ্ধে অশুভ মৈত্রীতে অ্যামেরিকার সঙ্গে যোগদান করেছে, তাদের সাবধান করে দিচ্ছি৷''

‘‘এ সেকেন্ড মেসেজ টু অ্যামেরিকা'', যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি দ্বিতীয় সাবধানবাণী নামধারী ভিডিও-টি দৃশ্যত নির্দিষ্ট সময়ের আগেই পোস্ট করা হয় – যা আইএস যোদ্ধাদের মধ্যে বিশৃঙ্খলা, এমনকি বিরোধের নিদর্শন হতে পারে৷

James Foley Journalist Reporter Libyen

সাংবাদিক জেমস ফরলি

যে গোষ্ঠী ভিডিও-টি আগেভাগে প্রকাশ করেছিল, তারা পরে একটি টুইটার মেসেজে বাদবাকি জিহাদিদের কাছ থেকে ক্ষমাপ্রার্থনা করে৷

ব্রিটেন ও ফ্রান্স আইএস-এর এই নতুন হত্যাকাণ্ডকে ‘‘বর্বর'' বলে অভিহিত করেছে৷ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন পুনরায় তাঁর মন্ত্রীসভার একটি জরুরি বৈঠক আহ্বান করেছেন৷ ওদিকে ওয়াশিংটন জানিয়েছে যে, ভিডিও-টির প্রামাণ্যতা যাচাইয়ের জন্য যথাসাধ্য করা হচ্ছে৷ তবে স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র জেন সাকি এ-ও জানিয়েছেন যে, ইসলামিক স্টেট-এর হাতে এখনও কয়েকজন মার্কিন নাগরিক আটক রয়েছে৷ সাকি এর বেশি কোনো খুঁটিনাটি দেননি৷

এসি/ডিজি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়