1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দ্বিগুণ হয়েছে বিদেশিদের উপর সহিংস হামলা

২০১৪ সালে জার্মানিতে চরম ডানপন্থিদের দ্বারা বিদেশিদের উপর সহিংস হামলার ঘটনা ঘটেছিল ৩১৬টি৷ ২০১৫ সালের প্রাথমিক হিসাবে সংখ্যাটি বেড়ে ৬১২টিতে দাঁড়িয়েছে৷ জার্মান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হিসাবে জানা গেছে এই তথ্য৷

জার্মানির বাম দলের রাজনীতিবিদ পেট্রা পাও সম্প্রতি এই তথ্য প্রকাশ করেছেন৷ প্রতিমাসে তিনি সরকারের কাছে ডানপন্থিদের বিভিন্ন হামলা সম্পর্কিত তথ্য জানার আবেদন করেন৷ সরকারই তাঁকে এই তথ্য সরবরাহ করে৷

সাধারণত প্রতিবছর মে মাসে সরকারিভাবে এ সব তথ্য প্রকাশ করা হয়৷ ২০১৬ সালের মে মাসে যখন সরকার ২০১৫ সালের তথ্য প্রকাশ করবে তখন বিদেশিদের উপর সহিংসতার সংখ্যাটি ৬১২ থেকে আরও বেড়ে যেতে পারে৷ কারণ পুলিশ এখনও বেশ কিছু সহিংসতার ঘটনা নিয়ে তদন্ত করছে৷ এর মধ্যে কিছু ঘটনা অবশেষে বিদেশিদের লক্ষ্য করে হামলা বলে বিবেচিত হতে পারে৷

রাজনীতিবিদ পেট্রা পাও-এর ধারণা এমনই৷ তিনি মনে করেন, প্রাথমিক যে হিসাব দেয়া হয়েছে, মে মাসে যখন পুরো পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হবে তখন সংখ্যাটি প্রায় ৩০ শতাংশ বেড়ে যেতে পারে৷ প্রাথমিক ঐ হিসাবে বিদেশিদের উপর হামলা ছাড়াও সমকামী, গৃহহীন মানুষ, এমনকি সাংবাদিকদের উপর জার্মানির চরম ডানপন্থিদের হামলার ঘটনাগুলো অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে৷ এতে দেখা যাচ্ছে, ২০১৫ সালে সব মিলিয়ে সহিংস হামলার ঘটনা ঘটেছে ৯২১টি৷ আর সহিংস ও অসহিংস মিলে অপরাধের সংখ্যা ১৩,৮৪৬৷

২০১৬ সালে চরম ডানপন্থিদের দ্বারা অপরাধ সংঘটনের সংখ্যা না কমে আরও বাড়বে বলে মনে করেন টিমো রাইনফ্রাংক৷ তিনি চরমপন্থা-বিরোধী সংস্থা ‘আমাদেউ-আন্টোনিও-ফাউন্ডেশন'-এ কাজ করেন৷ পরিসংখ্যানও সেরকমই আভাষ দিচ্ছে৷ জানুয়ারি মাসেই শরণার্থী ও তাদের যারা সহায়তা করছে তাদের উপর ২৬টি সহিংস হামলার ঘটনা ঘটেছে৷ এছাড়া শরণার্থীদের আবাস লক্ষ্য করে ২১ বার আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটেছে৷

পেট্রা পাও ডয়চে ভেলেকে বলেন, ইসলামবিরোধী পেগিডা আর ডানপন্থি রাজনৈতিক দল ‘অল্টারনেটিভ ফর জার্মানি' বা এএফডির কার্যক্রম যেভাবে বাড়ছে, তাতে ভবিষ্যতে এ ধরণের হামলার কমার কোনো সম্ভাবনা নেই৷

এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে তিনি গণতন্ত্রে বিশ্বাসীদের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সক্রিয় সদস্য হয়ে এ সবের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার আহ্বান জানান৷

আপনার কী মনে হয়? জার্মানিতে বিদেশিবিদ্বেষ বাড়ার কারণ কী? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন