1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘দেশে গণতন্ত্র নাই, তাই প্রাণ দিতে প্রস্তুত নই'

প্রয়োজনে দেশের জন্য বা অন্য কিছুর জন্য প্রাণ দিতে পারবেন? ডয়চে ভেলের ফেসবুকে এই পোষ্টটি দেখে পাঠকদের ‘হ্যাঁ' বা ‘না' সূচক উত্তর ছাড়াও নানা ধরণের মতামত প্রকাশ পেয়েছে৷

পাঠক মহসিনের একেবারেই সোজা উত্তর, ‘‘আমি প্রস্তুত না, কারণ আমার দেশে গণতন্ত্র নাই, মানুষের অধিকার নাই৷''

লুজার বয়ের উত্তর, প্রয়োজনে যে মরিতে প্রস্তুত বাচিবার অধিকার তাহারই৷ আল-মামুন কোনোভাবেই দেশের জন্য মরতে প্রস্তুত নন৷

বার্লিনের রাস্তায় কয়েকজন তরুণ-তরুণীর কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, তারা প্রয়োজনে দেশ বা অন্য কিছুর জন্য প্রাণ দিতে পারবেন কিনা৷ ফেসবুকে এই বিষয়ে ছবিঘরটি দেখে, পাঠক রাজীব ইসলামের সোজা উত্তর, ‘না'৷ এর কারণ হিসেবে তিনি লিখেছেন, ‘‘আমি আমার বাবা আর, চাচার মতো বোকামি করতে চাই না৷''

মোহাম্মদ আদিলের উত্তরও অনেকটা এরকমই৷ ৭১-এর মুক্তিযুদ্ধের কথা স্মরণ করেই মনে হয় এ কথা জানিয়েছেন৷

২০১৪ সালের একটি জরিপে দেখা গেছে, বিশ্বের প্রায় ৬০ ভাগ মানুষ নিজের দেশের জন্য প্রাণ দিতে রাজি৷ তবে পশ্চিম ইউরোপে এই হার কিন্তু শতকরা মাত্র ২৫ ভাগ৷

এসএম জিয়াউল হক এবং মোহাম্মদ ফরহাদ, মো.দুরন্ত ফোকরান, প্রিয়া আক্তার, আনোয়ার হোসেন, সুজিত দাস এবং সাদ ইসলাম কিন্তু দেশের জন্য প্রাণ দিতে এক কথায়ই রাজি৷

মুখে বলা আর করে দেখানো যে এক নয়, সেকথা মাথায় রেখেই মনে হয় কিরণ আখন্দ লিখেছেন, ‘‘সবাই বলে, আসলে কিন্তু তা না৷''

দেশের জন্য প্রাণ দিতে রাজি? এই প্রশ্নের উত্তরে ওসামা আহমেদের পাল্টা প্রশ্ন, ‘‘এখন ১৯৭১ না ২০১৫ ...৷''

ফেসবুক বন্ধু কাওসার জুয়েলও দেশের জন্য প্রাণ দিতে চান না৷

‘‘আমি দেশের জন্য না, মানবজাতির জন্য জীবন দিতে পারব৷'' এ কথা জানিয়েছেন আহমেদ মামুন৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন